নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • মৃত কালপুরুষ
  • নরসুন্দর মানুষ
  • সিয়ামুজ্জামান মাহিন
  • সলিম সাহা
  • নির্যাতিতের দীর...
  • সুখ নাই

নতুন যাত্রী

  • মোঃ হাইয়ুম সরকার
  • জয় বনিক
  • মুক্তি হোসেন মুক্তি
  • সোফি ব্রাউন
  • মুঃ ইসমাইল মুয়াজ
  • পাগোল
  • কাহলীল জিব্রান
  • আদিত সূর্য
  • শাহীনুল হক
  • সবুজ শেখর বেপারী

আপনি এখানে

অনন্য আজাদ এর ব্লগ

ভুঁড়ি নাকি পুরুষের অহংকার


অধিকাংশ বাঙালি পুরুষই নিজের শরীর নিয়ে সচেতন নয়। কিন্তু অন্যের শরীর নিয়ে তাদের অনেক চিন্তা-দুশ্চিন্তা-ভাবনা। তারা অন্যের শরীর নিয়ে যতোটা সমালোচনা করতে আগ্রহী, ততোটাই নিজের দিকে তাকাতে অনাগ্রহী।

আমাদের সমাজব্যবস্থা যেহেতু প্রভুদের দখলে, তাই নিজের দিকে লক্ষ্য রাখা খুব একটা জরুরী নয়। কিন্তু বিপরীত লিঙ্গের শরীর নিয়ে তারা বড্ড সচেতন। কোথায় মাংস বেশি, কোথায় চর্বি বেশি, কে কতো মোটা, কে কতো চিকন, কার কোন অংশে মাংস বেশি ও কম, শরীরের কোন অংশ বেশি চোখে পড়ে, কার শরীরে কোথায় দাগ, চামড়া কতোটা ঝুলে পড়েছে, আরও কতো কী ঝুলে পড়েছে, রঙ, উচ্চতা এইসব তো আছেই।

ইউরোপ জুড়ে ডানপন্থীদের উত্থান


দূর থেকে ইউরোপকে যতটা সুন্দর, শান্তিময়, ঝামেলামুক্ত, উদার বলে মনে হয় তা কি আদৌ সত্য? এটা বলা যেতেই পারে যে অন্য মহাদেশ থেকে ইউরোপ হয়তো তুলনামূলক নিরাপদ। কিন্তু এখানে যে একদমই উগ্রতা নেই তা এক বাক্যে উড়িয়ে দেওয়া যাবে না। ডানপন্থীদের উত্থান যে শুধু এশিয়া বা আফ্রিকা বা আমেরিকাতেই হচ্ছে তা নয়, ইউরোপের বাতাসও সেই দিকেই প্রবাহমাণ।

Autocracy in the name of progress


I want to highlight the discrimination's Hungarian government is doing to the refugees and asylum seekers.

What Hungarian government is doing with refugees is highly unacceptable. I was a target of religious fanatics when I was in Bangladesh, they tried to kill me. Now when I’m in Europe thinking that I'm not going to face any prejudice, I became a victim of Victors Right-wing government.

ভিকারুননিসা নূন কলেজের ছাত্রীদের চরিত্রহনন


ভিকারুননিসা নূন কলেজের সাথে নটরডেম কলেজের অদৃশ্য এক বিরোধ লেগেই থাকতো। মূলত, এমন আচরণ দুটি শিক্ষাঙ্গনের কতিপয় শিক্ষার্থীদের মনস্তাত্ত্বিক রোগের বহিঃপ্রকাশ। দুটি শিক্ষাঙ্গনের কতিপয় শিক্ষার্থীরা প্রতিযোগিতাকে যুদ্ধে পরিণত করেছিল। বিজ্ঞানমেলা, বিতর্ক প্রতিযোগিতা, উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফল নিয়ে ঘোষিত যুদ্ধে শহিদ হলেও দুটি শিক্ষাঙ্গনের অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের মাঝে ছিল ঘোষিত-অঘোষিত, প্রকাশ্য-অপ্রকাশ্য প্রেম।

মধ্যবিত্তের স্বপ্ন


মধ্যবিত্তদের সবচেয়ে বড় সম্বল হচ্ছে তাদের স্বপ্ন। মধ্যবিত্তরা স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসে। মূলত, স্বপ্নের সাথেই তাদের ওঠাবসা। মন খারাপের দিনগুলিতে তারা কাল্পনিক জগতে নিজেদের মগ্ন রাখতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। মধ্যবিত্তদের স্বপ্নগুলো যে সব সময় ঘুমের ভেতর আসে তা নয়; তারা জেগে জেগে স্বপ্ন দেখার ক্ষমতা রাখে। মধ্যবিত্তদের সহনীয় সহ্য ক্ষমতা নিয়েই এই জগতে পদার্পণ করতে হয়। উপর থেকে লাত্থি আর নিচ থেকে গুঁতো খেতে অভ্যস্ত থাকতে হয়। এই লাত্থি ও গুঁতোর মধ্যবর্তী স্থানে অবস্থান করেই তারা নিজেদের শক্তিশালী করে তোলে এবং উদ্ধত অহমিকায় বেঁচে থাকে।

গুজবমানা


বর্তমান সময়ে সবচেয়ে ভয়ংকর কিছু গুজবঃ

-যখন কেউ শেখ হাসিনাকে ‘মাদার অফ এডুকেশন’ উপাধিতে অভিহিত করে।
-যখন কেউ শেখ হাসিনাকে ‘মাদার অফ হিউম্যানিটি’ উপাধিতে সম্বোধন করে।
-যখন কেউ শেখ হাসিনাকে ‘গণতন্ত্রের মানসকন্যা’ বলে থাকে।
-যখন কেউ শেখ হাসিনাকে ‘বিপন্ন মানবতার বাতিঘর’ বলে থাকে।
-যখন কেউ শেখ হাসিনাকে ‘বিশ্ব শান্তির অগ্রদূত’ বলে থাকে।

কাফনে মোড়া সড়ক


আমাদের কাছে সড়ক দুর্ঘটনা নতুন কিছু নয়। কেউ সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হলে দুইতিন চিৎকার চেঁচামেচি করা বাঙালির চরিত্র। বাঙালির উত্তেজিত হতে সময় লাগে না, আবার রসমালাইয়ের লোভও সামলাতে পারে না। চূড়ান্ত সমাধানে বাঙালি কোনকালেই বিশ্বাসী নয়। দুইচারটা রসমালাইয়ের গোল্লা মুখে দিতে পারলেই তারা নিজেদের জয়ী মনে করে।

ঘুমন্ত শহর


আমাদের শহরে এখন আর কেউ ভালোবাসার গপ্পো কয় না,
সারাদিন ধরে চলে সংবাদ পরিবেশনা।
মৃত্যু ও ধর্ষণের পাশবিকতা এখন আর আমাদের ছোঁয় না,
আমাদের শহরে এখন আর কেউ ভালোবাসার গপ্পো কয় না।
পথচারীর পকেট থেকে দশ টাকা চুরি আমাদের মারমুখী করে তোলে, অথচ
গুচ্ছিত হাজার কোটি টাকা গায়েব- আমাদের প্রতিবাদী করে তোলে না।
আমাদের শহরে এখন আর কেউ ভালোবাসার গপ্পো কয় না।
আমাদের শহরে দুঃখের গপ্পোগুলি খুব জনপ্রিয়, আর সুখের গপ্পোগুলি খুবই নিন্দনীয়।
মানুষের কষ্টে আমরা স্বস্তিবোধ করি এবং সুখে অস্বস্তিতে ভুগে মরি।
আমাদের শহরে এখন আর কালবৈশাখীর ঝড় হয় না, বরং

সংস্কৃতিপ্রেমী আর ধর্মপ্রেমী



চুম্বন বড়ই অশ্লীল কাজ। ছিঃ। ছোট্টকালে বুড়োদের মুখ থেকে আমরা প্রায় সবাই শুনেছিলাম, চুম্বন করলেই নাকি বাচ্চা হয়ে যায়, নারী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে যায়। কী সব হাস্যকর, ভিত্তিহীন, ভয়ভীতি, অন্ধত্বের মধ্যে দিয়ে আমরা বেড়ে উঠেছি! আমাদের দেশে চুম্বনের স্বাধীনতা নেই। ভালো মানুষের প্রকাশ্যে চুম্বন করে না। ভালো মানুষেরা চারদেয়ালের ভেতর দরজা জানালা বন্ধ করে পর্দা টেনেটুনে লুকিয়ে চুম্বন করে। আমাদের সমাজে চুম্বন ঘোরতর অপরাধ। আমাদের সমাজ প্রকাশ্য চুম্বনবিরোধী।

প্রগতির অন্তরায়


চুম্বন বড়ই অশ্লীল কাজ। ছিঃ। ছোট্টকালে বুড়োদের মুখ থেকে আমরা প্রায় সবাই শুনেছিলাম, চুম্বন করলেই নাকি বাচ্চা হয়ে যায়, নারী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে যায়। কী সব হাস্যকর, ভিত্তিহীন, ভয়ভীতি, অন্ধত্বের মধ্যে দিয়ে আমরা বেড়ে উঠেছি! আমাদের দেশে চুম্বনের স্বাধীনতা নেই। ভালো মানুষের প্রকাশ্যে চুম্বন করে না। ভালো মানুষেরা চারদেয়ালের ভেতর দরজা জানালা বন্ধ করে পর্দা টেনেটুনে লুকিয়ে চুম্বন করে। আমাদের সমাজে চুম্বন ঘোরতর অপরাধ। আমাদের সমাজ প্রকাশ্য চুম্বনবিরোধী।

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

অনন্য আজাদ
অনন্য আজাদ এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 6 দিন ago
Joined: শুক্রবার, সেপ্টেম্বর 4, 2015 - 10:56অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর