নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • সিয়ামুজ্জামান মাহিন
  • মৃত কালপুরুষ
  • নরসুন্দর মানুষ
  • সলিম সাহা
  • নির্যাতিতের দীর...

নতুন যাত্রী

  • মোঃ হাইয়ুম সরকার
  • জয় বনিক
  • মুক্তি হোসেন মুক্তি
  • সোফি ব্রাউন
  • মুঃ ইসমাইল মুয়াজ
  • পাগোল
  • কাহলীল জিব্রান
  • আদিত সূর্য
  • শাহীনুল হক
  • সবুজ শেখর বেপারী

আপনি এখানে

মাছির ডানার ব্যবচ্ছেদ


মাছির ডানা বিষয়ক হাদিস এবং সেই হাদিস নিয়ে ইসলামী এপোলোজিস্টদের দাবি খন্ডন করার উদ্দেশ্যে আর্টিকেলটি লিখা হলো।

হাদিস

হাদিসটি থেকে আমরা জানতে পারি, আমাদের পানীয় দ্রব্যে যদি মাছি পড়ে তাহলে পানীয় দ্রব্যটি ফেলে না দিয়ে মাছিটি প্রথমে ডুবিয়ে দিয়ে পরে তা উঠিয়ে ফেলা উচিৎ, কারণ মাছির এক ডানায় থাকে রোগ এবং অপর ডানায় থাকে রোগের প্রতিষেধক। অথচ বিজ্ঞানের কল্যাণে আজ আমরা সবাই জানি, মাছির ডানায় রোগজীবাণু থাকে যা স্বাস্থ্যের জন্য ভয়াবহ। পানীয় দ্রব্যে মাছি বসলে আর সেই মাছিকে তাতে ডুবালে এবং পরে সেই পানীয় দ্রব্য পান করলে যেকেউ অসুস্থ হয়ে পড়বে।

এপোলোজিস্টদের দাবি

এপোলোজিস্টরা এক গবেষণামূলক প্রবন্ধ ব্যবহার করে দাবি করেন, আধুনিক বিজ্ঞানে প্রমাণিত যে মাছি কেবল প্যাথোজেন (রোগজীবাণু) বহন করেনা বরং, এমন উপাদানও বহন করে যা এসকল প্যাথোজেন সীমিত করে, যা মাছির ডানার হাদিস বৈজ্ঞানিক ভাবে সত্য বলে প্রমাণ করে।

তারা প্রধানত ব্যাক্টেরিওফাজকে এই প্রতিষেধক বলে চিহ্নিত করেন।

বিশ্লেষণ

ব্যাক্টেরিওফাজ (ফাজ) হলো ভাইরাস যা ব্যাকটেরিয়াকে সংক্রমিত করে। সাধারণত সকল স্বাভাবিক ব্যাকটেরিয়া পপুলেশন ফাজ ও পরিবেশ দ্বারা সীমাবদ্ধ। তবে, এসব উপাদানকে প্রতিষেধক বলে দাবি করায় বিশাল ফাঁক বিদ্যমান। স্তন্যপায়ী প্রাণীও প্যাথোজেন দ্বারা সীমাবদ্ধ, তাই বলে এমন দাবি করা খুবি বোকামি যে, প্যাথোজেন স্তন্যপায়ী প্রাণীর প্রতিষেধক।

তারা ভ্রান্ত দাবি করে

ক. তারা দাবি করেন, ব্যাক্টেরিওফাজ ব্যাকটেরিয়ার প্রতিষেধক।

ব্যাক্টেরিওফাজ সংক্রমণের শেষ পর্যায়ে তাদের বাহক ব্যাকটেরিয়ার বিশ্লেষণ ঘটায়। যার ফলে পপুলেশনের অন্য ব্যাকটেরিয়াল কোষসমূহ সংক্রমিত করতে নতুন ফাজ কণাসমূহ মুক্ত হয়। যাইহোক, স্বাভাবিক পরিবেশে যেকোনো একটি সময়ে ব্যাকটেরিয়াল কোষসমূহের কেবল একটি নগণ্য অনুপাত সংক্রমিত হয়। ঠিক যেমন, মানুষের একটি নগণ্য অনুপাত যেকোনো একটি সময়ে ফ্লু ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত হয় [1]

খ. তারা দাবি করেন, যেহেতু মাছি রোগ বহন করেন সেহেতু মাছি অবশ্যই রোগের প্রতিষেধক বহন করে।

From the perspective of logic, if the fly did not carry some sort of protection in the form of an antidote or immunity, it would perish from its own poisonous burden and there would be no fly left in the world.

মানুষ যেসব ভাইরাসের কারণে মারা যায় সেইসব ভাইরাসের কারণে মাছি মারা যায়না। তারা কেবল মাত্র বাহক। যারা এধরনের দাবি করে থাকেন তারা হয়তো প্যাথোজেনিসিস বুঝেন না। মানুষ যেসব রোগে মারা যান, সেসব রোগে মাছি মারা যায়না।

 মাছি মলমূত্রে অথবা পচনশীল মৃতদেহে অবতরণ করে – মলমূত্রের সামান্য প্রামাণিক চিহ্ন নিজের মধ্যে স্থানান্তর করে।

 মাছি মানুষের খাবারে অবতরণ করে – মলমূত্রের সামান্য প্রামাণিক চিহ্ন মানুষের খাদ্যে স্থানান্তর করে।

 মাছি অন্য কোথাও উড়ে চলে যায় – মানুষ কলুষিত খাবার খান এবং অসুস্থ হয়ে পড়েন।

 মাছি পরবর্তীতে স্বাভাবিক ভাবেই অব্যাহত থাকে এবং স্বাধীনভাবে সাইকেলটির পুনরাবৃত্তি করে।

গ. তারা অসাধুভাবে এমন সম্পর্ক দাবি করেন যার কোনো অস্তিত্ব নেই।

The existence of similar bacteria-killing mechanisms in two bacteriophages suggests that antibiotics for human infections might be designed on the basis of these cell wall-destroying proteins. Science 292 (June 2001) p. 2326-2329.

ব্যাকটেরিওফাজের ইনফেকশনের জন্য দরকারি এন্টিবায়োটিক ডিজাইন করার ক্ষমতাই প্রমাণ করেনা যে ফাজ সমূহ ব্যাকটেরিয়ার প্রতিষেধক। এন্টিবায়োটিক আর ফাজ সমূহ এক নয়।

তারা খুব পরিষ্কারভাবেই ভ্রান্ত বিবৃতিদান করে

Only in modern times was it discovered that the common fly carried parasitic pathogens for many diseases including malaria, typhoid fever, cholera, and others. It was also discovered that the fly carried parasitic bacteriophagic fungi capable of fighting the germs of all these diseases.

এখানে দুইটা ভুল আছে।

I. আমাদের পরিচিত মাছি ম্যালেরিয়া বহন করেনা। ম্যালেরিয়া Anopheles মশা দ্বারা বাহিত এবং প্রেরিত হয় [2]।

II. Bacteriophagic ছত্রাক বলে আদৌ কিছু নেই। এই শব্দটি সাধারণ মানুষের মন ভোলাতে পারে, তবে বাস্তবে ব্যাক্টেরিওফাজ হলো ভাইরাস এবং ছত্রাক ছত্রাকই।

তারা এমন সায়েন্টিফিক আর্টিকেল তুলে ধরে যা কিছু ভুল ধারণ করে

These fly microbiota are bacteriophagic or "germ-eating". Bacteriophages are viruses of viruses. They attack viruses and bacteria. They can be selected and bred to kill specific organisms. The viruses infect a bacterium, replicate and fill the bacterial cell with new copies of the virus, and then break through the bacterium's cell wall, causing it to burst. The existence of similar bacteria-killing mechanisms in two bacteriophages suggests that antibiotics for human infections might be designed on the basis of these cell wall-destroying proteins. Science 292 (June 2001) p. 2326-2329.

ক. ব্যাক্টেরিওফাজ অন্য ভাইরাস সমূহে আক্রমণ করেনা [3]।

খ. সকল ব্যাক্টেরিওফাজ বাহক কোষ সমূহ বিশ্লেষণ করতে কোষ প্রাচীর বিনাশকারী প্রোটিন এনকোড করেনা?

তারা বৈজ্ঞানিক তথ্যের ভুল ব্যাখ্যা করে

Gnotobiotic [=germ-free] insects (Greenberg et al, 1970) were used to provide evidence of the bacterial pathogen-suppressing ability of the microbiota of Musca domestica [houseflies] .... most relationships between insects and their microbiota remain undefined. Studies with gnotobiotic locusts suggest that the microbiota confers previously unexpected benefits for the insect host.

মূলত বলা হয়েছে, পোকামাকড়ের মাইক্রোবায়োটার তাদেরকে তাদের প্যাথোজেন থেকে রক্ষা করা। মানব প্যাথোজেন পোকামাকড় দ্বারা বাহিত হওয়ার ব্যাপারে এখানে কিছুই বলা হয়নি।

An article in Vol. 43 of the Rockefeller Foundation's Journal of Experimental Medicine (1927) p. 1037 stated: The flies were given some of the cultured microbes for certain diseases. After some time the germs died and no trace was left of them while a germ-devouring substance formed in the flies - bacteriophages. If a saline solution were to be obtained from these flies it would contain bacteriophages able to suppress four kinds of disease-inducing germs and to benefit immunity against four other kinds. Cited in `Abd Allah al-Qusami, Mushkilat al-Ahadith al-Nabawiyya wa-Bayanuha (p. 42).

এটা কেবল ব্যাক্টেরিওফাজের অস্তিত্ব প্রমাণ করে। যা প্রমাণ করে না তা হলো, ব্যাক্টেরিওফাজ মানুষকে মাছি দ্বারা বাহিত মানব প্যাথোজেন থেকে রক্ষা করে কিনা।

সংযোজিত দাবি

The fly microbiota were described as "longitudinal yeast cells living as parasites inside their bellies. These yeast cells, in order to perpetuate their life cycle, protrude through certain respiratory tubules of the fly. If the fly is dipped in a liquid, the cells burst into the fluid and the content of those cells is an antidote for the pathogens which the fly carries." Cf. Footnote in the Translation of the Meanings of Sahih al-Bukhari by Muhammad Muhsin Khan (7:372, Book 76 Medicine, Chapter 58, Hadith 5782).

ডান পাখায় কেবল ফাজই থাকেনা, ইস্ট কোষও থাকে মাছির পাকস্থলী এবং শ্বাসনালীতে। আমাদের মনে হচ্ছে তারা এন্টাবায়োটিক বলতে এই ইস্ট কোষ সমূহকে বোঝাচ্ছে। অতি সামান্য পরিমাণ এন্টিবায়োটিকের উপস্থিতি মানুষকে আন্ত্রিক রোগ থেকে রক্ষা করতে পারেনা। এপোলোজিস্টরা এন্টিবায়োটিক সম্পর্কে বিভ্রান্ত ,তারা জানেন না অথবা বুঝেন না কিভাবে এন্টিবায়োটিক কাজ করে। আধুনিক এন্টিবায়োটিক কৃত্রিম এবং একেবারে বিশোধিত হয়। ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশনের চিকিৎসার জন্য ভারী ডোজের বিশোধিত এন্টিবায়োটিক প্রয়োজন হয় যা স্বাভাবিক পরিবেশে পাওয়া যায়না।

তারা ব্যাক্টেরিওফাজের ব্যবহার কনফিউজ করে তোলে

Bacteriophagic medicine was available in the West before the forties but was discontinued when penicillin and other "miracle antibiotics" came out. Bacteriophages continued to flourish in Eastern Europe as an over-the-counter medicine. The "O1-phage" has been used for diagnosis of all Salmonella types while the prophylaxis of Shigella dysentery was conducted with the help of phages. Annales Immunologiae Hungaricae No. 9 (1966) in German.

ক. O1-Phage সালমোনেলা নির্ণয়ের জন্য ব্যবহার করা হয়, চিকিৎসা করার জন্য নয় [4]।

খ. ১৯৪০ সালে ব্যাক্টেরিওফাজ থেরাপি এন্টিবায়োটিক থেরাপি কর্তৃক অন্তর্ভুক্ত হয় কারণ সেটা অধিক পরিমাণে অকার্যকর ছিলো। এন্টিবায়োটিকের পূর্বে চিকিৎসকেরা আরোগ্য করার জন্য এমন মরিয়া ছিলেন, তারা যেকোনো কিছু ব্যবহার করবেন এমনকি ব্যাক্টেরিওফাজ থেরাপিও, তবে তা এটা প্রমাণ করেনা যে, ব্যাক্টেরিওফাজ থেরাপি প্রকৃত অর্থে কাজ করে। যেকোনো ঘটনায়, চিকিৎসা করতে একজন চিকিৎসকের অনেক পরিমাণ ডোজের প্রয়োজন হবে, যা স্বাভাবিক পরিবেশে আসে না। মাছির ডান ডানা কিংবা বাম ডানা এমনকি পুরো শরীর ডুবানোও কোনো কাজে আসবে না।

তারা জীবাণু ঘটিত নয় এমন আন্ত্রিক রোগ এড়িয়ে যায়

যদি ধরে নেই মাছির ডানা মানুষের জন্য জীবাণুঘটিত রোগের প্রতিষেধক বহন করে তারপরও তারা মানুষকে জীবাণুঘটিত নয় এমন নেই সংক্রমিত করতে পারে। মাছি Pinworm, Tapeworm, Viral Gastroenteritis, Amebic Dysentery, Giardia Enteritis এবং Enteric Hepatitis এর মতো রোগও বিস্তার করে। ব্যাক্টেরিওফাজ কিংবা ছত্রাক এসব রোগের বিরুদ্ধে একেবারেই অকার্যকর।

উপসংহার

বৈজ্ঞানিক তথ্য প্রমাণ মাছির ডানার হাদিসটি সমর্থন করেনা। কারণ :

• ব্যাক্টেরিওফাজ মাছির কোনো বিশেষ ডানায় সীমাবদ্ধ নয়।
• ব্যাক্টেরিওফাজ স্বাভাবিক অবস্থায় কোনো ব্যাকটেরিয়াল রোগের প্রতিষেধক নয়।
• ব্যাক্টেরিওফাজ ব্যাকটেরিয়াল রোগ নয় এমন রোগের জন্য একেবারেই অকার্যকর। অর্থাৎ যদি আমরা ধরেও নেই মাছির ডানা ব্যাকটেরিয়াল রোগের প্রতিষেধক বহন করে, তারপরও মাছি ব্যাকটেরিয়াল রোগ নয় এমন রোগ দ্বারা আমাদের অসুস্থ করতে পারে।
• ফাজ থেরাপি সাধারণত মেডিকাল থেরাপি বলে গণ্য হয় না। কারণ সেটা অত্যধিক পরিমাণে অর্কাযকর।

এপোলোজিস্টদের জবাব

১) Nature.com অনুযায়ী, “এটা উদঘাটিত হয়েছে যে পোকার ডানা ব্যাকটেরিয়া টুকরো টুকরো করে কেটে ফেলে।“

আলোচ্য আর্টিকেলটি ঘুর্ঘুরে পোকার ডানা নির্দেশ করে [5]। একটি ঘুর্ঘুরে পোকা আর একটি মাছি এক জিনিস নয়। ঘুর্ঘুরে পোকা সাধারণত পঙ্গপাল এবং ঝিঁঝিঁ পোকার মতো হয় যা মাছির মতো মল পছন্দ করেনা বরং, নিরামিষভোজী হয়। আপনি যদি একটি মাছির ডানা অণুবীক্ষণ যন্ত্রের নিচে পরিদর্শন করেন তাহলে আপনি দেখতে পারবেন, মাছির ডানার গঠন ঘুর্ঘুরে পোকার ডানার গঠনের চেয়ে ভিন্ন। মাছির ডানা মসৃণ এবং নিম্নাভিমুখে আকুঁচিত, অপরদিকে ঘুর্ঘুরে পোকার ডানা একেবারেই সেরকম না।

References

o Stephen T. Abedon, "An Expanded Overview of Phage Ecology", Ohio State University at Mansfield Bacteriophage Ecology Group, January 1, 2002.
o "Malaria", World Health Organization Media Centre, Fact sheet No. 94, Reviewed March 2013.
o Dr. Gary Kaiser, "The Lytic Life Cycle", Community College of Baltimore County, January 16, 2002.
o "Typing of Salmonellae", Avinash Abhyankar, Internet Archive capture dated October 27, 2009.
o Trevor Quirk, "Insect wings shred bacteria to pieces", Nature, March 4, 2013.

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

মারুফুর রহমান খান
মারুফুর রহমান খান এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 12 ঘন্টা ago
Joined: বুধবার, জানুয়ারী 10, 2018 - 1:19পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর