নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • মৃত কালপুরুষ
  • নরসুন্দর মানুষ
  • সিয়ামুজ্জামান মাহিন
  • সলিম সাহা
  • নির্যাতিতের দীর...
  • সুখ নাই

নতুন যাত্রী

  • মোঃ হাইয়ুম সরকার
  • জয় বনিক
  • মুক্তি হোসেন মুক্তি
  • সোফি ব্রাউন
  • মুঃ ইসমাইল মুয়াজ
  • পাগোল
  • কাহলীল জিব্রান
  • আদিত সূর্য
  • শাহীনুল হক
  • সবুজ শেখর বেপারী

আপনি এখানে

দুর্নীতি

এলমে মারিফাত বা গুরুবাদের অপ্রিয় সত্য যাহা


সকল পাঠকের অবগতির জন্য তরীকাতে সুন্নাতাল্লাহির পক্ষ থেকে একটি বিষয় উপস্থাপন করতে চাই। সম্মানিত পাঠক, অপ্রিয় হলেও সত্য এই যে, প্রতিটি শিক্ষার ই একটা ধারাবাহিকতা আছে, এবং প্রতিটি শিক্ষারই শুরু এবং শেষ আছে, এবং শিক্ষা গ্রহণে প্রতিটি ক্লাশ বা শ্রেণী বা ধাপ এর নির্দিষ্ট নাম আছে। আর সেই ক্লাশসমূহের প্রত্যেক ক্লাশ উত্তীর্ণ হওয়ার জন্য নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু একমাত্র এই এলমে তাসাউফ বা গুরুর কাছে বাইয়াত গ্রহণের পরে শিক্ষানবিশ বা শিষ্যের শিক্ষা বিষয়ের কোন ধারাবাহিকতা নাই। নাই শিক্ষার কোন ক্লাশ বা শ্রেণী বা ধাপ। সেই সাথে নাই শিষ্যত্ব গ্রহণের পরে কত সময় বা কত দিন বা কত মাস বা কত বছর পরে

সরকার যদি থাইল্যান্ডকে সত্যই অনুসরণ করে তবে বদির পরিবার হত ইতিহাস৷ একরামুলের জন্য মায়া কান্না নয়, করুণা হয়


ভয়াবহ আকার ধারণ করছে ইয়াবা৷ থাইল্যান্ডে দিনে দুপুরে মানুষ হত্যা সব রকমের অপরাধ করত ইয়াবা সেবনকারীরা৷ এটা যখন মহামারি আকার ধারণ করলো তখন থাইল্যান্ড সরকার উপায় না দেখে ৩০০০ জনকে গুলি করে মেরেছে এবং পরে তা পুরোপুরি শিথিল করতে সক্ষম হয়েছে৷

বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠার নীতিমালা


শুরু করিতেছি আমি আমাকে স্মরণ করে।

১.ব্যক্তি মালিকানাধীন কোন সম্পদ থাকতে পারবে না। সমস্ত সম্পত্তি হতে হবে রাষ্ট্রের। আর রাষ্ট্রের প্রত্যেক নাগরিক রাষ্ট্রের সমস্ত সম্পদে সমান অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

২.রাষ্ট্রে মালিক শ্রমিকের ভেদাভেদ থাকতে পারবে না। এখানে সবাই মালিক আবার সবাই শ্রমিকের মর্য্যাদা পাবে, এবং রাষ্ট্রের সমস্ত স্থাবর এবং অস্থাবর সম্পদে প্রতিটি নাগরিকের সমান অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। যিনি সব কিছু সৃষ্টি করেছেন একমাত্র তিনিই আমাদের মালিক, ইহা ব্যাতীত অন্য যে কোন মালিকে বিশ্বাস কারা শেরেকি গোনাহর আওতাভুক্ত।

উন্নয়নের জোয়ারে, ভেসে যায় আহারে!


উন্নয়ন, উন্নয়ন, উন্নয়ন। সব সময়েই উন্নয়ন,সব জায়গাতেই উন্নয়ন। উন্নয়নের মেঘমন্দ্রিত সরকারি গর্জনে কান ঝালাপালা হওয়ার দশা। মাইকের মতো অবিরত যারা কল্পিত উন্নয়নের শিবের গীত গাচ্ছেন তারা কি একবার দয়া করে বলবেন উন্নয়ন বলতে আপনারা কী বোঝেন? কোন স্কেল দিয়ে আপনারা উন্নয়ন পরিমাপ করছেন? উন্নয়ন পরিমাপ করার সূচকগুলো কী? উন্নয়ন মানে কি ত্রিশ বিলিয়ন ডলারের ফরেন রিজার্ভ, ছয় শতাংশ প্রবৃদ্ধি, সুউচ্চ সুরম্য প্রাসাদের আধিক্য, মেট্রোরেল আর পদ্মাসেতু এবং চৌদ্দশ ডলার মাথাপিছু আয়? উন্নয়ন মানে কি চার লক্ষ কোটি টাকার বাজেট, সাবমেরিন, মিগ টুয়েন্টি নাইন?

বেলাশেষে মিথ্যাচারগুলোই দুর্বল হয়


কিন্তু অপ্রিয় হলেও সত্য, শত-সহস্র মিথ্যাচার, ষড়যন্ত্র করেও খালেদা জিয়াকে সত্যের কাছ থেকে মুক্ত করতে পারেনি। সুশাসনের কাঠগড়া থেকে মুক্ত করতে পারেনি। তিঁনি দুর্নীতিতে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদন্ডে খালেদা জিয়া এখন কারাভোগ করছেন। মিথ্যে সাজানো মঞ্চায়ন করার পরেও দেশের সচেতন মানুষকে খালেদা জিয়ার পক্ষে মাঠে নামাতে পারেননি।

বাঙলাদেশ সেনাবাহিনী দূর্নীতি করেনা এমন কথা মনেপ্রাণে যে বিশ্বাস করে সে মূর্খ


বাঙলাদেশ সেনাবাহিনী বাঙলাদেশের গৌরব, সেনাবাহিনী ঘুষ-দূর্নীতি মুক্ত একটি প্রতিষ্ঠান। এখন আমি যদি হুট করে বলে ফেলি সেনারা কালোবাজারি অবৈধ কাজের মূলহোতা; জাতি হয়তো মনে মনে বলে উঠবে শালা মাথামোটায় কয় কি?

লজ্জার মাথা খাইয়া নিঃসংকোচে বলছি বাঙলাদেশের সেনাবাহিনী কালোবাজার ও চোরাচালানের সাথে জড়িত।

১৩.০২.২০১৮ বেলা আনুমানিক ১২.০০, ঘটনাস্থল ঘুঘরাছড়ি রাবার বাগান। বিজিতলা সেনাছাউনি থেকে একজন জুনিয়র কমিশন্ড অফিসারের নেতৃত্বে এক প্লাটুন সেনাসদস্য ঘুঘরাছড়ি রাবার বাগানের ভিতর দিয়ে যাচ্ছে গহীন অরণ্যে উপযুক্ত একটি পাহাড় খুঁজে বের করে এম্বূসড ঘেড়ে প্রশিক্ষণ করার জন্য।

পৃষ্ঠাসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর