আপনারা নাগরিক দায়ীত্ব পালন করবেন না , অথচ সব কিছু সঠিক চাইবেন , সেটা কি হয় ?

সম্প্রতি ঢাকার রাস্তার পাশে দাড়ানো দুইজন ছাত্র গাড়ীর তলে পড়ে নিহত হওয়ার প্রেক্ষিতে ব্যপক ছাত্র আন্দোলন শুরু হয়। তাদের নানা রকম দাবী দাওয়া ছিল।সরকার তাদের দাবী দাওয়া মেনে নেয়ার পরেও আন্দোলন থামছে না। কারন কি ? তাছাড়া তাদের দাবী দাওয়া রাতারাতি কি আদৌ সব পুরন করা সম্ভব ? সোজা কথায় বাংলাদেশের মত একটা অতি জনবহুল দেশে কি সত্যিই নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়ন করা সম্ভব ? আসলে বাংলাদেশের গোটা জনগোষ্ঠি একটা ডিল্যুশনে বা ঘোরের মধ্যে ভুগছে। তারা আসলে কি চায় , সেটা জানে না , আর যা চায় তা কিভাবে বাস্তবায়ন করা যায় , সে সম্পর্কে ন্যূনতম জ্ঞান তাদের নেই। ডিল্যুশনের মধ্যে তারা আর তাদের মধ্যে নেই।

সম্প্রতি ঢাকার রাস্তার পাশে দাড়ানো দুইজন ছাত্র গাড়ীর তলে পড়ে নিহত হওয়ার প্রেক্ষিতে ব্যপক ছাত্র আন্দোলন শুরু হয়। তাদের নানা রকম দাবী দাওয়া ছিল।সরকার তাদের দাবী দাওয়া মেনে নেয়ার পরেও আন্দোলন থামছে না। কারন কি ? তাছাড়া তাদের দাবী দাওয়া রাতারাতি কি আদৌ সব পুরন করা সম্ভব ? সোজা কথায় বাংলাদেশের মত একটা অতি জনবহুল দেশে কি সত্যিই নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়ন করা সম্ভব ? আসলে বাংলাদেশের গোটা জনগোষ্ঠি একটা ডিল্যুশনে বা ঘোরের মধ্যে ভুগছে। তারা আসলে কি চায় , সেটা জানে না , আর যা চায় তা কিভাবে বাস্তবায়ন করা যায় , সে সম্পর্কে ন্যূনতম জ্ঞান তাদের নেই। ডিল্যুশনের মধ্যে তারা আর তাদের মধ্যে নেই।

একটা শহরের মানুষের যাতায়াত সাবলীল ও নিরাপদ করতে , সেই শহরের কমপক্ষে ২৫% যায়গা রাস্তার জন্যে ছেড়ে দিতে হয়। সর্বশেষ জরীপ অনুযায়ী দেখা যায় , ঢাকা শহরের জন্যে সেটা মাত্রই ৭%। আনুমানিক মাত্রই ৩০০ বর্গ কিলোমিটারের ঢাকা শহরে ২০১৬ সালের হিসাবে প্রায় ১ কোটি ৮০ লক্ষ মানুষ বাস করে। যে কেউ হিসাব করে বের করতে পারবেন , প্রতি বর্গ কিলোমিটারে প্রায় ৬০,০০০ জন মানুষ বাস করে। যা পৃথিবীর সব চাইতে জনবহুল। সেই হিসাবে ফিলিপাইনের ম্যানিলাতে বাস করে প্রতি বর্গ কিলোমিটারে ৪৩,০০০ জন , কলকাতায় ২৪,২৫০ জন, টোকিওতে ৬২০০ জন , সিংগাপুরে ৮২৫০ জন , হংকং এ ৬৩০০ জন এরকম। এখন আপনারাই বলুন , বাংলাদেশের মত একটা গরীব ও সম্পদহীন দেশ কিভাবে ঢাকা শহরের প্রতি বর্গ কিলোমিটারে বাস করা ৬০,০০০ জন মানুষের চলাচল নিরাপদ ও সাবলিল করবে ? আর সেটা করতে না পারলেই জ্বালাও পোড়াও আন্দোলন করলে কি সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে ? দেশের নাগরিক হিসাবে আপনারা কি করেছেন ? আপনারা তো শুধুই দেশের জনসংখ্যা বাড়িয়ে গেছেন , এখনও বাড়াচ্ছেন ,কোন থামা থামি নেই।

এবার দেশ হিসাবে আসা যাক , দেখা যাক , বিভিন্ন দেশের জনঘনত্ব :

বাংলাদেশে বর্তমানে কম করে হলেও লোকসংখ্যা ১৮ কোটি হবে। যদি দেশের ক্ষেত্রফল ১৪৭০০০ বর্গ কিলোমিটার হয় , তাহলে প্রতি বর্গকিলোমিটারে বাস করে ১২২৪ জন। এখন এর সাথে অন্যান্য দেশের জনসংখ্যার ঘনত্ব তুলনা করা যাক ====
বাংলাদেশ —- ১২২৪ জন
চীন —-১৪৫ জন
ভারত—-৩৬৪ জন
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র- ৩৩ জন
কানাডা —-৩.৪ জন

তাহলে জনসংখ্যার ঘনত্ব অনুযায়ী, পৃথিবীতে সব চাইতে বেশী লোক বাস করে কোন দেশে ? এখন এই যে জনবিস্ফোরন ঘটেছে বাংলাদেশে , এটার জন্যে কি সরকার দায়ী , নাকি দেশের জনগন দায়ী ? গত চল্লিশ বছর আগ থেকে দেশে পরিবার পরিকল্পনা নিয়ে বহু অভিযান হয়েছে , যদি সেটা না হতো তাহলে দেশের পরিস্থিতি আজকে কোথায় গিয়ে দাড়াত ? তারপরেও কি পরিবার পরিকল্পনা অভিযান সত্যিকার অর্থে বাংলাদেশে কি সফল হয়েছে ? বর্তমানে হয়ত একটা উল্লেখযোগ্য সংখ্যক পরিবারে মাত্রই দুটি সন্তান আছে , কিন্তু ঠিক তেমনিই উল্লেখযোগ্য সংখ্যক পরিবারে দুই এর বেশী সন্তান আছে। দেশের বিরাট সংখ্যক মানুষ যে পরিবার পরিকল্পনা গ্রহন করে না , তার কারন কি ? কারা মানুষকে পরিবার পরিকল্পনা করতে নিষেধ করে ? কেন করে ? সেসব কি আপনারা কখনও ভেবে দেখেছেন ?

আপনারা নাগরিক দায়ীত্ব পালন করবেন না , অথচ সব কি্ছু ঠিক ঠাক চাইবেন , সেটা তো হয় না । আগে আপনারা চিন্তা করে দেখুন , দেশের মূল সমস্যাটা কোথায় । যদি মূল সমস্যাটাকে গোপন করে , ডাল পালা নিয়ে নাড়াচাড়া করেন , তাহলে তো সমস্যা সমস্যাই থেকে যাবে। সহিহ মুমিনদেরকে জঙ্গি আখ্যা দিয়ে গুলি করে হত্যা করে , সহিহ মুমিনদের আদর্শকে ধ্বংস করা যায় না।

7 total views, 1 views today

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of