বাংলাদেশে বিপরীত লিঙ্গে বিবাহ কী অস্বাভাবিক ও অপ্রাকৃতিক? মুসলিম অনুজীববিদের সমান্তরাল ভাবনায়

যদি ডাম্বলডোর সমকামীই হবেন, তবে কেন হ্যারী পটার চলচ্চিত্রে তাকে আলাদা করে দেখানো হলো না?

কারণ সমকামীরা আমাদের মতই সাধারণ মানুষ, তাদের স্বতন্ত্রভাবে চিহ্নিত করার প্রয়োজন নেই।-

জে কে রাউলিং, ভক্তদের প্রশ্নের জবাবে

স্ক্রিনশটে যে ব্যক্তির পোস্ট দেখছেন, তার বক্তব্যকে ধর্তব্যের মধ্যে নিলে বলতে হয় সমকামিতা একটি অস্বাভাবিক ও অপ্রাকৃতিক ভাবনা। কিন্তু তার ভাবনাকে আমলে নিলে আরো বলতে হয়, পৃথিবীজুড়ে অন্তত নিদেনপক্ষে বাংলাদেশে বিপরীত লিঙ্গের বিবাহও অস্বাভাবিক, অপ্রাকৃতিক ও কুপ্রবৃত্তি। কিভাবে? চলুন একেবারে গোড়া থেকে বিশ্লেষণ করি।

এই মহামহিম জীববিজ্ঞানী বাংলাদেশের একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনুজীববিজ্ঞানে স্নাতক করেছেন। এরপর উচ্চ শিক্ষার জন্য পাড়ি জমিয়েছেন ক্যামব্রিজে। কিন্তু উচ্চ শিক্ষার জন্য পাড়ি জমালে কী হবে, মননে মগজে বহন করে চলেছেন রাজ্যের অন্ধকার, ঘৃণাবোধ, বিদ্বেষ। আর ধর্মান্ধতা আচ্ছন্ন করে রেখেছে তার হৃদয়, তার সত্তাকে। সেই ঘৃণাবোধকে পুজি করে সমকামীবিদ্বেষী পোস্ট নিয়ত ছড়ানোই তার মুল লক্ষ্যতে পরিণত হয়েছে এখন। যাই হোক, এড হোমিনিন ফ্যালাসি রেখে পোস্টের কথায় আসি।

প্রথম কথা হলো, ডাটা এনালাইসিস থেকে সত্যই দেখা গিয়েছে, যুক্তরাজ্যে বিপরীত লিঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের হার গত ৫০ বছরে সর্বনিম্ন ও সমলিঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের হার গত এক বছরে ৩ গুণ বেড়েছে।

এবার, ছাগলের ৩ নং বাচ্চার মত একটা লাফ না দিয়ে বিষয়টাকে একটু বিবেচনা করা যাক।
১) প্রথমত এই ডাটা এনালাইসিসটা হয়েছে, শুধুমাত্র ইংল্যান্ড এবং ওয়ালসের মত দুইটি রাজ্যে। তাই এই ধরনের উপাত্ত কখনোই পুরো এলজিবিটি সমাজকে প্রতিনিধিত্ব করে না।

২) যে দুইটা স্টেটে মাত্র এক বছরে (২০১৬ থেকে ২০১৭) বিবাহ বিচ্ছেদের হার ৩ গুণ হয়েছে, সেই দুইটা স্টেটে বিবাহ লিগ্যালাইজ হয়েছেই মাত্র ৪ বছর আগে (২০১৪ সালে)। গবেষকরা কিন্তু কোনো অনুপাত (বিবাহের সাথে বিবাহ বিচ্ছেদের) প্রকাশ করে নি, তারা প্রকাশ করেছে সংখ্যা। গবেষকরাও এই বিষয়টাকে ইণ্ডিকেট করে দেখিয়েছে, যেহেতু সমলিঙ্গে বিবাহ লিগালাইজ হয়েছেও সাম্প্রতিক সময়ে, তাই সমপ্রেমীদের বিবাহ রেজিস্ট্রি হবার হারও তড়িৎগতিতে বৃদ্ধি পেয়েছে, তার সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে ডিভোর্সের পরিমাণ।[1]

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশেও বিষমকামীদের মধ্যে ডিভোর্সের হার তীব্র গতিতে বাড়ছে, বরিশালে মোট জনসংখ্যার হিসেবে এই ডিভোর্সের হার সবচেয়ে বেশি আবার ডিভোর্স সংখ্যা হিসেবে ঢাকাতে প্রতি ঘন্টায় একটা করে ডিভোর্স এর আবেদন হচ্ছে।[2]

এবার অনুজীববিজ্ঞানীর সুরে সুর মিলিয়ে একটা প্রশ্ন করি, ইংল্যান্ডে এবং ওয়ালসে বিষমকামীদের বিবাহের হার গত ৫০ বছরে সবচেয়ে কমেছে, কিন্তু সমকামীদের বিবাহ বিচ্ছেদের হার বেড়েছে। এজন্য ভদ্রলোক সিদ্ধান্তে এসেছেন, সমকামিতা কুচিন্তা, কুপ্রবৃত্তি ও অপ্রাকৃতিক। তাহলে একইভাবে নিশ্চয়ই এটা বলা যায়, বাংলাদেশের বিষমকামীদের মধ্যে যেহেতু বিবাহ বিচ্ছেদের হার গত ৬ বছরে (যেমনঃ সমকামীদের এক বছরে ৩ গুণ) বেড়েছে, তাই বাংলাদেশের বিষমকামীদের বিবাহ একটি কুপ্রবৃত্তি ও অপ্রাকৃতিক ভাবনা। তাই না? কেন এ শিরোনাম দিলাম, বুঝা গিয়েছে কী?

৩) এবার আসা যাক, অন্যান্য দেশের ব্যাপারে, ডেনমার্কের ১৯৯৭ সালে ডাটা থেকে দেখা গিয়েছে, বিষমকামীদের যেখানে ৪৬ শতাংশ বিবাহ বিচ্ছেদ এর মধ্যে দিয়ে যায়, সেখানে মাত্র ১৭ শতাংশ সমকামী দম্পতির ডিভোর্স হয়। [3]

৪) নরওয়ে ও সুইডেনের দম্পতিদের বিবাহ বিচ্ছেদের ডাটা বিশ্লেষণ করে দেখা গিয়েছে, সমকামীদের বিবাহ বিচ্ছেদের হার বিষমকামীদের চেয়ে অন্তত ৫০ শতাংশ কম।[4]

  1. ৫) যুক্তরাষ্ট্রে হওয়া গবেষণা থেকে দেখা গিয়েছে, সমকামী ও বিষমকামী উভয় বিবাহিত দম্পতিতে বিবাহ বিচ্ছেদের হার ২ শতাংশ।[5] একদম শুুরুতেই রাউলিং এর যে উদ্ধৃতি দিলাম, তারা কী সুন্দর একে অপরের সাথে মিশে গেলো, তাই না?

প্রশ্ন উঠতে পারেই, সমকামীদের বিবাহ বিচ্ছেদের এরকম ভ্যারাইটি বা বৈচিত্র দেখে ঠিক কী সিদ্ধান্তে আসা যায়? প্রথমত এখানে অনেক জটিলতা, তথ্যগত গ্যাপ রয়েছে। বিষমকামীদের বিবাহ অনেক বছর ধরে চলে আসছে এবং এ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহও বহুবছর ধরে হয়ে আসছে। ফলে বিপরীত লিঙ্গের বিবাহ-বিচ্ছেদ নিয়ে ডাটা সংগ্রহ ও এনালাইসিস করা খুবই সহজ। কিন্তু সমকামীদের বিবাহ স্বীকৃতি পাচ্ছে গত কয়েক বছর ধরে, তাই তাদের বিবাহ নিয়ে কোনো উপাত্ত সংগ্রহ করতে গেলে, সেই উপাত্তের পরিমাণ হবে খুবই স্বল্প এবং তার উপর ভিত্তি করে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া নিঃসন্দেহে একটি ভুল সিদ্ধান্ত হবে

তাহলে এত সহজ একটা বিষয় কেন বুঝতে পারলেন না পোষ্টদাতার মত এত উচ্চশিক্ষিত ব্যক্তি?

না, আমি আশ্চর্য হই নি। কারণ ইতোমধ্যে পুনঃপুন গবেষণাগুলো দেখিয়েছে অত্যধিক ধার্মিক পরিবারের আবহে বড় হওয়া সন্তানেরা ধর্মনিরপেক্ষ পরিবারের সন্তানের তুলনায় অধিক হিংস্র হয়। [6] তাই কেন উচ্চস্তরের শিক্ষার্থী হওয়া সত্ত্বেও এই ব্যক্তি সমকামী বিদ্বেষী মনোভাব পোষণ করে বুঝতে সমস্যা হওয়ার কথা নয়। গবেষণাগুলো আরো দেখিয়েছে, ধর্মের সাথে স্কিৎসোফ্রেনিয়ার একটা সংযোগ আছে।[7] স্কিৎসোফ্রেনিয়ার রোগীরা যেমন নিজের দুনিয়ায় থাকে, নিজের দুনিয়াকেই আপন দুনিয়া মনে করে, ধার্মিকরাও, তাদের ধর্মগ্রন্থ আর ধর্মকেই আপন দুনিয়া মনে করে। এর বাইরে কিছু বুঝার বা কিছু দেখার ক্রেডিবিলিটি তাদের নাই। গবেষণা এও দেখিয়েছে, ধর্মাসক্ত আর মাদকাসক্ত ব্যক্তির মস্তিষ্ক একইভাবে রেসপন্স করে [8], দেখিয়েছে ধার্মিক আর মদ্যপরা একইভাবে সমকামী বিদ্বেষী হয় [9] এবং যারা তুলনামুলক বেশি বুদ্ধিমান হয়, তাদের ধর্মকর্ম পালনে সমান অনীহা থাকে [10]। শুধু তাই না, গবেষণা এও দেখিয়েছে, অধিক ধার্মিকরা পদার্থ, গণিতের মত বিশ্লেষণ করতে হয়, এজাতীয় বিষয়ে তুলনামুলক কম দক্ষ হয়। [11]

এসমস্ত ভিন্ন ভিন্ন গবেষণার ফলাফলকে আমলে নিলে বুঝতে কখনো অসুবিধা হয় না, এই ভদ্রলোক নিজে বিশ্বের শ্রেষ্ঠতম বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত থাকা অবস্থায়ও পরিসংখ্যানের বেসিক পয়েন্টটা কেন বুঝতে পারেন নি। তার বিশ্বাস, তার দৃষ্টিভঙ্গী তাকে বুদ করে রেখেছে, করে রেখেছে আচ্ছন্ন। এই বিশ্বাসের ভাইরাস তাকে যে অন্ধকার কুপে নিক্ষেপ করেছে, সেই কুপে তিনি নিয়মিত ঘুরপাক খাচ্ছেন, ফলশ্রুতিতে প্রতিটা নতুনত্ব, প্রতিটা আলোরছটা তার চোখ ঝলসে দেয়, তাকে করে তুলে পীড়িত। তবুও মন থেকে চাইব, যে বিশ্বাসের ভাইরাস তাকে গ্রাস করে রেখেছে, সেই করাল গ্রাস থেকে তার মুক্তি ঘটুক। নতুনত্বকে বিশ্লেষণে, বাস্তবতাকে বুঝতে এবং সত্যকে উষ্ণ অভ্যর্থনায় আলিঙ্গনে তিনি যেন হয়ে উঠেন সক্ষম।

মুছে যাক গ্লানি, ঘুচে যাক জরা,
অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা।
আনো আনো আনো তব প্রলয়ের শাঁখ
মায়ার কুজ্ঝটিজাল যাক দূরে যাক।।

তথ্যসূত্র

1) https://www.independent.co.uk/news/uk/home-news/uk-divorce-rate-heterosexual-couples-low-latest-figures-millennial-a8555351.html
2) https://www.prothomalo.com/amp/bangladesh/article/1555110/ঢাকায়-ঘণ্টায়-এক-তালাক
3) https://www.psychologytoday.com/intl/articles/199705/lessons-gay-marriage
4) http://www-same-sex.ined.fr/WWW/04Doc124Gunnar.pdf
5) https://www.washingtonpost.com/news/monkey-cage/wp/2014/12/15/same-sex-divorce-rate-not-as-low-as-it-seemed/?noredirect= https://www.washingtonpost.com/news/monkey-cage/wp/2014/12/15/same-sex-divorce-rate-not-as-low-as-it-seemed/?noredirect=on
ধর্ম আর বেকুবির সংযোগ সংক্রান্ত রেফারেন্স
6) http://www.cell.com/current-biology/fulltext/S0960-9822(15)01167-7
7) https://link.springer.com/article/10.1007%2Fs00127-009-0151-0
8) https://www.sciencealert.com/brain-scans-on-mormons-show-religion-has-a-similar-effect-to-taking-drugs
9) http://onlinelibrary.wiley.com/doi/10.1002/cbm.2066/full
10) http://www.jstor.org/stable/3512216?seq=1#page_scan_tab_contents
11) http://onlinelibrary.wiley.com/wol1/doi/10.1002/acp.3248/abstract

205 total views, 3 views today

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of