তসলিমা নাসরিন অশ্লীল, তসলিমা নাসরিনের লেখা অশ্লীল?

গত এক দিনে ৪৫০ কি.মি. জার্নি করেছি। বাসে, ট্রেনে নিজের মতো থাকি। আশেপাশে কিছুর দিকেই কখনো মন যায় না। মানববাদী লেখক তসলিমা নাসরিনের লেখা “নারীর কোনও দেশ নেই” বইটি সাথে করে নিয়ে গেছিলাম এবার। বইটি আগেও পড়েছি। একটি একটি করে প্রায় সব কলামই পড়া। তাও আবারও পড়ি। পড়া জিনিসই নতুন…

বিস্তারিত পড়ুন...

কিরণ। ধারাবাহিক উপন্যাস পর্ব – ৫।

  কিরণ বুঝতে পারে মালতির এই “আর ..” বলে থেমে যাওয়ার অর্থ। মালতি সঙ্কোচ করছে। কিন্তু এটা সঙ্কোচের সময় নয়। এই মুহূর্তে মালতি এবং বন্যার দায়িত্ব কিরণের। হাসপাতালের যাকিছু ফর্মালিটি, তা কিরণ পূর্ণ করবে। দায়িত্বের অর্থ কিরণ বোঝে। কিরণ একটা জীবনকে একসময় না বুঝে অন্ধকারে ঠেলে দিয়েছিল। সেই অন্ধকার থেকে…

বিস্তারিত পড়ুন...

কিরণ। ধারাবাহিক উপন্যাস পর্ব – ৪।

মোবাইলটা বেজে উঠতেই কিরণের সারিন্দার সুর থেকে মনটা সরে গেলো। বেশ ছিল সুরটি। সুরের স্রোতে কিরণ ভেসে গেছিলো তার সাত বছর বয়সে, সৌম্যর সাথে প্রথম আলাপের দিনটিতে। – রাত আটটা। – এসময় আবার কে ফোন করলো! – মোবাইলটি হাতে নিয়ে স্ক্রিনের দিকে তাকাতেই মালতি নামটি ভেসে উঠলো। – এসময় মালতি!…

বিস্তারিত পড়ুন...

কিরণ। ধারাবাহিক উপন্যাস পর্ব – ৩

৩। সারিন্দার আওয়াজে কিরণ ভেসে যায় সাত বছরের ছোট্ট মেয়েটির কাছে। বাবা, মা’র সাথে কিরণ সেবার ভুবনেশ্বরে যাচ্ছিল। হাওড়া স্টেশন থেকে রাত দশটায় ট্রেন ছাড়ে। শতাব্দী এক্সপ্রেসে রিজার্ভেশন কামড়া। কিরণ সিটে বসে বসে আনন্দলোকের কমিক পড়ছিল। শক্তিমান কমিক। নব্বইয়ের দশকের বাচ্চাদের কাছে শক্তিমান কমিক এপিসোডগুলি ভীষণ জনপ্রিয় তখন। কিরণ প্রতিটা…

বিস্তারিত পড়ুন...

কিরণ। ধারাবাহিক উপন্যাস পর্ব – ২।

পর্ব ২। কিরণ পড়েছিল হিরোশিমা – নাগাসাকির ভয়াবহতা। শুধু তো পড়ে নি, অনুভব করেছিল সেই ভয়াবহতার গভীরতা। তখন ১৯৪৫ সাল। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের চূড়ান্ত পরিণতি হতে চলেছে। জাপান, জার্মান, ইতালি মিলে গড়ে উঠেছে এক অক্ষশক্তি। যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধ থামাতে এক চূড়ান্ত ও ভয়ঙ্কর পদক্ষেপ নেয়। ৬ই আগস্ট সকালবেলাটা আর সব দিনের মতোই…

বিস্তারিত পড়ুন...

কিরণ। ধারাবাহিক উপন্যাস পর্ব – ১।

১। রোজকার সাপ্তাহিক কলকাতা ভীষণ ব্যস্ত থাকে। সেই সকালবেলায় শুরু হয় আনাচ হকার, মাছ ব্যাবসায়িদের ক্যাঁচরম্যাচর শব্দ, বাসে, লোকাল ট্রেনে ভিড়, একটু বেলা হতেই চাকুরীজীবীদের আফিস যাত্রা, ছাত্রছাত্রীদের স্কুল – কলেজে বেরিয়ে পড়া, এভাবেই চলতে থাকে ব্যস্ত কলকাতা। কিরণ ভীষণ সাধারণ থাকে। কর্মঠ, বুদ্ধিমান, আধুনিক এবং নম্র স্বভাবের জন্য কিরণকে…

বিস্তারিত পড়ুন...

শুভ জন্মদিন লেখক তসলিমা নাসরিন।

(শুভ জন্মদিন মেয়েমা) আজ ২৫ শে আগস্ট, লেখক তসলিমা নাসরিনের জন্মদিন। চারিদিকে যেদিকেই দেখি, লক্ষ্য করছি মহা সমারোহে চলছে লেখকের জন্মদিন উৎসব পালন করার তোড়জোড়, প্রস্তুতিপর্ব। আমি ভেবেছিলাম কবিতা লিখবো। কিন্তু কবিতা লিখতে যে পরিমাণ পরিস্কার মাথার প্রয়োজন হয়, খোলা মনের প্রয়োজন হয়, এই মুহূর্তে আমি সেই পরিস্থিতিতে নেই। শরীরেও…

বিস্তারিত পড়ুন...

মহুল’দের আর্তনাদ

অনেকদিন বাদে, প্রায় তিন মাস পর পত্রিকাতে ফিরছি। পড়াশোনা, পরীক্ষা, কলাম লেখার প্রতি অনীহা সবকিছু মিলেই ছিল এই দূরে থাকা। এর মধ্যে অবশ্য একটি কবিতার পাণ্ডুলিপি শেষ করলাম – “উৎসর্গ নির্বাসিত লেখক’কে।” কি লেখা যায় ভাবছিলাম। হঠাৎ করেই মনে হল এমন একজন মানুষকে নিয়ে লিখি যা’কে আমি নিজের মতো করে…

বিস্তারিত পড়ুন...

ভালো আছো লেখক!

কেমন আছো তুমি, তোমার কথা ভাবি রোজ, কল্পনাতেই আঁকি নানান ছবি! ইচ্ছেগুলো পাড়ি দিতে চায় আকাশমেঘে, তোমার আদর্শকে রূপ দিতে চায় হাজারও, লাখো জনমানসে, ততক্ষণে আমি হয়ত হয়ে যাই তুমি! যেন তুমিটাই আমি! আমার ভীষণ জানতে ইচ্ছা করে তুমি কেমন আছো, কেমন করে বাঁচো! একা থাকো তো! দুশ্চিন্তা হয় এখানে…

বিস্তারিত পড়ুন...

“কোথাও আমার হারিয়ে যাওয়ার নেই মানা, মনে মনে ..”

দিদি, মনে আছে একদিন তোমায় বলেছিলাম, “আমি তোমার কাছে গেলে, আমায় কাছে টেনে নেবে একটু! একটুখানি ভালোবেসে দেবে!” তোমার উদার মন। ভালোবাসাতে কখনো দ্বিধা করো নি। আমি যাওয়ার পর, দূর থেকে যখনই আমায় দেখেছ, হাত নেড়ে কাছে ডেকে, কাছে টেনে আদর করে দিয়েছিলে। মুহূর্তটি আমার কাছে ভীষণ আবেগের ছিল। আমি…

বিস্তারিত পড়ুন...