টাক মাথা ও সাদা চুলের গল্প

প্রায় ৮০-বছরের বৃদ্ধ আমি। লাঠিতে ভর দিয়ে হাঁটতে হয় আমাকে। কৈশোর যৌবনে গ্রামে ভেজালমুক্ত নির্ভেজাল সব খাবার খেয়েছি বলে হয়তো এখনো চলাফেরা করতে পারি একাকি। তাই এ বয়সেও ভারতের এপার-ওপার ঘুরে বেড়াই প্রতি বছর। এবং এ ভ্রমণে ট্রেনযাত্রা সবচেয়ে প্রিয় আমার। তা দুটো্ কারণে! প্রথমত ভারতীয় ট্রেন তুলনামূলক সস্তা বিমান…

বিস্তারিত পড়ুন...

২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা ও বল্টুর কতিপয় প্রশ্ন

১। আহভি রহমান যখন CMH-এ চিকিৎসাধীন, তখন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া হাসপাতালে যান তাকে “দেখতে”! যতক্ষণ হাসপাতালে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী, ততক্ষণ আইভি রহমানের সন্তানদের একটা কক্ষে তালা মেরে আটকে রাখা হয়! : বল্টুর প্রশ্ন : প্রধানমন্ত্রী মৃত্যুপথচারী আহতের সন্তানদের সান্ত্বনা দেবেন নাকি তালা মেরে আটকে রাখবেন? বোঝা যাচ্ছে “ডালমে কুচ…

বিস্তারিত পড়ুন...

“হিরো” হওয়ার সাধ গল্প : পর্ব-৩ (শেষ পর্ব)

আমার জন্যে ফ্রিয়া নামের উপুলু দ্বীপের এ সুন্দরী পরীকন্যা বসবাস করবে এ কালোজলের অমান দিঘিতে ঐ কুৎসিত রাক্ষুসে মাছের সাথে। তা কোনভাবেই মানতে পারছিলাম না আমি। তাই তৎক্ষণাৎ সিদ্ধান্ত নিলাম পুরনো ইরানি জাহাজে যাবো এই জলদেবতার প্রতিদ্বন্দ্বিকে তুলে আনতে। নৌকোসহ বন্ধুদের নিয়ে উপস্থিত হলাম ইরানির মাস্তল বরাবর। কিন্তু হায়! আমাকে…

বিস্তারিত পড়ুন...

“হিরো” হওয়ার সাধ গল্প : পর্ব-২

এর মধ্যে প্রবল বৃষ্টি নামলো নদীর তীরে। সবাই ভিজে যাচ্ছে প্রচন্ড বৃষ্টিতে কিন্তু আমার গায়ে এক ফোঁটা জলও পড়ছে না। বন্ধুরা সবাই এসে আমার গা-ঘেষে দাঁড়ালো বৃষ্টি থেকে বাঁচতে। এ দৃশ্য দেখে বন্ধু নিরঞ্জন বললো, একটা কাজ করা যায়। বাজারের কাছে প্যান্ডেল করে সার্কাস দেখানো হচ্ছে। সেখানে বিল্টুকে দেখিয়ে টাকা…

বিস্তারিত পড়ুন...

“হিরো” হওয়ার সাধ গল্প : পর্ব-১

কৈশোরে আমার নানাবিধ সখের অন্যতম ছিল “বড়শি বাওয়া”। কেঁচো, তেলাপোকা, মরা চিংড়ি, বিশেষ লাল পোকা বা এক রকম গ্রাম্য ফলকে টোপ বানিয়ে পুকুরে, নদীতে, বিলে বড়শি ফেলতাম আমরা বন্ধুরা দল বেঁধে। আমার দ্বীপগাঁয়ে প্রচুর মাছের আধিক্য থাকার পরও, আমরা সখে প্রতিযোগিতা করে বড়শি দিয়ে মাছ ধরতাম। একবার স্কুল বন্ধের দিন…

বিস্তারিত পড়ুন...

জান্নাতের হুর পরীর বর্ণনা শুইনা মাথা ঘুইরা যাইবো ! (৩০১৮ সনের ঐতিহাসিক যেভাবে লিখবে ২০১৮ সনের ইতিহাস)

২০১৮ সনের মুসলমানদের পবিত্র ধর্মীয় বিশ্বাস ছিল যে, মৃত্যুর পর কবরে আল্লাহর তরফ থেকে ২-জন দেবদূত (যাকে তারা ফেরেস্তা বলতো) এসে প্রত্যেক মৃত ব্যক্তির হিসেব চাইবে ও নানাবিধ প্রশ্ন করবে। যারা ঐসব প্রশ্নের সঠিক জবাব ও হিসেব ঠিকভাবে দিতে পারবে না, তাদের ‘কবর’ থেকেই তাৎক্ষণিক কঠিন শাস্তি দেয়া শুরু হবে,…

বিস্তারিত পড়ুন...

বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ রিভিউ : দেশপ্রেমের এক অনুপম কাব্যমালা

বিস্তারিত পড়ুন...

আমাদের ১৫টা সুগার মিল ও তা বাঁচিয়ে রাখার উপায়

বিস্তারিত পড়ুন...

নিকষ বন্ধ্যা জমিতে চাষাবাদের গল্পকথা

বিস্তারিত পড়ুন...

হেরে গলার গান “এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি”

বিস্তারিত পড়ুন...