একজন লেখকের জীবন বাঁচাতে প্রয়োজন মাত্র ২০ লক্ষ টাকা

?oh=417862b86cbef95482521a4fff50b1e4&oe=54F878CA” width=”300″ />

এতোকাল বাংলাদেশের চিকিৎসকরা তাঁর চিকিৎসা করিয়েছেন সাধারণ একজন কিডনি রোগী হিসেবে। স্থানীয় চিকিৎসকরা কোনভাবেই তাঁর রোগের গুরুত্ব উপলব্ধি করতে পারেন নি। সেতুর শারীরিক অবস্থার ক্রমাবনতি হতে শুরু করলে তাঁর পরিবার চেন্নাইয়ের এনএনসিতে নিয়ে যান। সেখানেই ধরা পড়ে তিনি মাত্র একটি কিডনি নিয়ে এই পৃথিবীতে এসেছিলেন। এবং সে কিডনিটিও মাত্র ৭৫% কার্যকর। সেই সাথে যুক্ত হয়েছে ডায়াবেটিস। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন তাঁকে দ্রুত কিডনি ট্রান্সপ্ল্যান্ট (প্রতিস্থাপন) করতে হবে। দ্রুত কিডনি ট্রান্সপ্ল্যান্ট করতে না পারলে তিনি অকালে ঝরে যাবেন। একজন আত্মপ্রত্যয়ী মানুষকে আমরা অকালে চলে যেতে দিতে পারি না। তা সে আস্তিক, নাস্তিক, হিন্দু, মুসলিম যে ধর্ম গোত্রেরই হোক না কেন। একজন মানুষ হিসেবে আরেকজন মানুষকে বাঁচানো আমাদের কর্তব্যের মধ্যেই পড়ে। নইলে নিজেকে মানুষ হিসেবে পরিচয় দেয়ার অধিকার আমরা হারিয়ে ফেলি।

আমি জানি অনলাইনে আমার বন্ধু তালিকায় এবং গোটা বাংলা অনলাইন কমিউনিটিতে অনেক সামর্থবান মানুষ আছেন, যাঁরা ছুটি কাটাতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের পাঁচ তারকা হোটেলে রাত্রিযাপন করেন; অঢেল টাকা খরচ করেন। কেউ কেউ আছেন বিলাসী খাদ্যদ্রব্য, কেনাকাটা, কিংবা ধূমপান করেও অনেক খরচ করেন। আবার অনেকেই রয়েছেন যাঁরা টিউশনি করে জীবিকা নির্বাহ করেন। আমি তাঁদের সকলকে অনুরোধ করছি কিডনি প্রতিস্থাপনের জন্য এই মেধাবী মানুষটির দিকে একটু সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। তা মানুষটি আপনার মতের, অমতের, পক্ষের কিংবা বিপক্ষের হোক না কেন; তিনি একজন মানুষ। একজন মরাণাপন্ন মানুষ আপনার আমার দিকে বেঁচে থাকার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন, তাঁকে বাঁচতে সহযোগিতা করলে আপনার কী এমন ক্ষতি হবে?

মানুষটি জীবনে কারুর কাছে কখনো হাত পাতেননি, কারো দয়াও চান নি। তাঁর লেখনীর উপযুক্ত মূল্যায়ন করলেই আমরা তাঁর জীবন যুদ্ধের সংগ্রামে সহযোদ্ধা হতে পারি। সম্প্রতি প্রকাশিত তাঁর লেখা ‘তাহারা এবং হাজার সরীসৃপ’ নামক বইটি ক্রয়ের মাধ্যমে চিকিৎসা খরচ চেয়েছেন তিনি। বইটির মূল্য মাত্র ৩০০ টাকা। আমি সকল অনলাইন কমিউনিটির সবার কাছে, বিশেষভাবে ইস্টিশন ব্লগের সকল যাত্রী ও পাঠকদের আমি বিনীত অনুরোধ করবো তাঁর চিকিৎসার জন্য, খরচ বহনের জন্য নগদে অর্থ সাহায্য করতে না পারলেও তার লেখা বইটি কিনে হলেও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে পারেন।

যে মানুষটির কথা বলছি, তাঁর নাম সেতু আশরাফুল হক। তিনি একজন লেখক ও কবি, যাঁর পছন্দের বিষয় কবিতা, দেশপ্রেম, রাজনীতি, আধুনিকতা, বাঙালি সংস্কৃতি এবং মুক্তিযুদ্ধ। চট্টগ্রাম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের বাঙলার প্রভাষক।

বই ক্রয় কিংবা যে কোন আর্থিক সাহায্যের ব্যাপারে সরাসরি তাঁর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন নিচের মাধ্যমে।

সেতু আশরাফুল হক: +৮৮০ ১৭১৮ ৫৪২০৫১

হিসাবের নাম: আশরাফুল হক
সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর: ১২৯.১৫১.২৩৮৮৬
ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড,
সিডিএ এভিনিউ, চট্টগ্রাম।
অথবা-
ডাচ-বাংলা মোবাইল
ব্যাংকিং নং-০১৭১৮-৫৪২০৫১২
অথবা-
হিসাবের নাম: আবু ইসমাইল
মোঃ আশরাফুল হক
সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর: ১১৯৪২/৮
জনতা ব্যাংক, ওয়াসা শাখা,
চট্টগ্রাম।

যারা বিকাশ মাধ্যমে সাহায্য প্রেরণ করতে চান তাঁরা সেতুর মোবাইল ফোন নম্বরেই বিকাশ করতে পারবেন।

আপডেট:
এছাড়াও লেখক এবং গ্রাহকদের সুবিধার্থে বইটি কারিগর.কম এ পাওয়া যাচ্ছে। কারিগর.কম কোন ধরনের লাভ ছাড়াই বইটি বাজারজাত করছে। ?oh=0414bab6474bb8d39b3f1f18e1167ddb&oe=54F17113&__gda__=1421141486_84f1eba46108633f7f1dd54577a658e9″>পেজ লিংক
ওয়েব সাইটে নিজেও অর্ডার করতে পারেন। অর্ডার করতে হলে ক্লিক করুন।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১২ thoughts on “একজন লেখকের জীবন বাঁচাতে প্রয়োজন মাত্র ২০ লক্ষ টাকা

  1. আমি সকলকে অনুরোধ জানাই বই
    আমি সকলকে অনুরোধ জানাই বই ক্রয় তাকে সহযোগীতা করুন। ৩০০ টাকা হয়ত অনেকের কাছে বেশি হয়ে যেতে পারে। বিকল্প হিসাবে আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী সেতু’কে সহযোগীতা করুন। আমরা অনলাইনে এত মানুষ থাকতে একজন তরুন লেখক টাকার অভাবে চিকিৎসা না করতে পেরে মারা যাবে? …… এটা কি হতে পারে? কত টাকা আমরা অপব্যয় করি। একদিনের সিগারেটের খরচটা না হয় সেতুর চিকিৎসায় খরচ করি।

    সেতুর জন্য সবাইর প্রতি আরো একটি অন্যায় আবদার করব- ‘অন্তত এই পোস্টটা শেয়ার করে সেতুর সহযোগীতার আহবান সমগ্র অনলাইন কমিউনিটিকে জানিয়ে দিন।

  2. আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি এই
    আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি এই পোষ্ট দেয়ার জন্য এবং তা স্টিকি করার জন্য। আমি একজন শিক্ষক এবং সামান্য লেখালেখি করি। আমার বেঁচে থাকার পুঁজি এটুকুই। একজন কিডনি ফেউল্যুর রোগী হিসেবে যে চিকিৎসা ব্যয় তা আমার সামর্থের বাইরে। সকলে যদি আমার প্রকাশিত গল্পগ্রন্থটি কেনেন, তবে হয়তো সে চিকিৎসা ব্যয়ের তহবিল সংগ্রহ সহজ হবে।
    বিনীত

    ডাক যোগে বইটি পেতে হলে নিচের পদ্ধতিটি অনুসরণ করুন।
    ==================
    ১. তিনশত টাকা বিকাশ করুন ০১৮৪৭১০৯৬৪৪-এই নম্বরে।
    ২. এখন ফেসবুকে-এর ওয়ালে যান। ইনবক্সে অথবা ০১৭১৮৫৪২০৫১-মোবাইলের মেসেজে আপনার পাঠানো বিকাশ নম্বরটি লিখুন।
    ৩. আপনার ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বারটি লিখুন।

    যেমন:
    [ বিকাশ নম্বর: ০১৭*******(স্পেস) দেলওয়ার হোসেন, হাজি সাহেবের বাড়ি; ৪০৫, আটা পাড়া, উত্তর নগদা গেট, বগুড়া। মোবাইল: ০১১********। ]

    এইভাবে ইনবক্স করুন। সুবিধার জন্য অবশ্যই মোবাইল নাম্বার দিবেন।
    ৪. পোষ্ট করুন।

    আমরা আপনার ঠিকানায় ডাকযোগে বইটি পাঠিয়ে দিবো। তবে শর্ত থাকে যে, পাঁচটির অধিক বইয়ের ক্ষেত্রে কুরিয়ারের ডেলিভারি হবে, অন্যগুলো সরকারি ডাকযোগে পাঠানো হবে।
    (অনেকে বিকাশ নম্বর নিয়ে বিভ্রান্তিতে ভেগেন; এখানে এজেন্ট বিকাশ নম্বর হচ্ছে-০১৮৪৭১০৯৬৪৪ এবং ব্যক্তিগত বিকাশ নম্বর হচ্ছে-০১৭১৮৫৪২০৫১।
    আপনাদের সকলের সহযোগিতা পেলে সেতু আশরাফুল হক সুস্থ্য জীবনে ফিরে যেতে পারে।

  3. এই লেখাটি আমি ফেসবুকে শেয়ার
    এই লেখাটি আমি ফেসবুকে শেয়ার দিলাম। সামরথ থাকলে আরও বেশি কিছু করতে হয়তো পারতাম। সমাজের ধনবান ব্যাক্তিরা এই ব্যপারে এগিয়ে আসবেন আশা করি…।

    1. ভাগ্যিস বলে বসেননি, একটা বই
      ভাগ্যিস বলে বসেননি, একটা বই কিনে কি হয়? তারচেয়ে যদি লেখককে অন্য কোনভাবে.. ব্লা..ব্লা..ব্লা..
      ৩০০টাকার একটা বই কিনতে ধনবান হওয়া লাগে না। ইচ্ছেশক্তিটাই অনেক।

  4. ফেসবুকে শেয়ার করছি । নিজের
    ফেসবুকে শেয়ার করছি । নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী সাহায্য করার চেষ্টা করবো । আশাকরি সবাই এগিয়ে আসবেন ।

  5. সামর্থ্য থাকলে অনেক কিছুই
    সামর্থ্য থাকলে অনেক কিছুই করতাম। কারিগর ডট কমের মাধ্যমে একটা বই ক্রয় করে ক্ষুদ্র চেষ্টা করলাম। আপনি দ্রুত সুস্থ্য হয়ে উঠুন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

5 + 2 =