ফটিকছড়ি হত্যাকাণ্ডের দায় অবশ্যই সরকারের

খুব উত্তেজনার সাথে পোস্টটি লিখতে হচ্ছে।কারণ আমরা এখনও পরিষ্কারভাবে জানি না আসলেই ফটিকছড়িতে আসলেই কী হয়েছে অথবা ক’জন হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন।তবে যাই হোক না কেন,বেশ কিছু মানুষ যে চরম নির্মমতার শিকার হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন তা নিশ্চিত।

দুঃখিত ভুল বললাম তারা ঠিক মানুষ নন তারা আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী।এবং তারা হরতালের বিরুদ্ধে মিছিলে নেমেছিলেন এবং দিনশেষে ফিরেছেন লাশ হয়ে।আমরা জানি প্রত্যেক দলেই অন্ত:প্রাণ কিছু লোক থাকেন যারা জানপ্রাণ দিয়ে দলকে রক্ষা করতে সচেষ্ট থাকেন এবং মিছিলে তারাই সবার সামনে থেকে মার খেয়ে, নিজেদের লাশ বানিয়ে যেকোন আন্দোলনের সাফল্য নিয়ে আসেন।

আওয়ামী লীগের সব চেয়ে বড় সৌভাগ্য এখানেই যে তাদের প্রচুর নিবেদিতপ্রাণ কর্মী আছে এবং সবচেয়ে বড় দুর্ভাগ্যও এটা যে তারা এই এডভান্টেজকে না পারে কাজে লাগাতে না পারে এদের সম্মান দেখাতে।আমরা যদি পিছনের কয়েকদিনের ফলোআপ দেখি তাহলেই এটা পরিষ্কার হবে।কেননা তখন আমরা দেখতে পারব কীভাবে ধর্মনিরপেক্ষতার আর বাকস্বাধীনতার ম্যান্ডেট নিয়ে ক্ষমতায় আসা একটা দল কিভাবে নিজেদের অপমান করছে।দেখতে পাব কিভাবে একটা মৌলবাদী সম্মেলনকে এই দলের মন্ত্রীরা অভিনন্দন জানাচ্ছেন আর কিভাবে মুক্তচিন্তার সৈনিকদের ধরে ধরে জেলে পুরছেন।
এসব কারণেই ফটিকছড়ির ঘটনা খানিকটা পূর্ব অনুমিত ছিল।সরকার গত কিছুদিন যাবৎ যে ডাবল গেম খেলছে তার চরম খেসারত আজ তাদের দিতে হল।পাকিস্তানীরা যেমন একদিকে তালেবানের সাথে হাত মিলিয়ে আর অপর দিকে আমেরিকাকে ধোঁয়া দেখিয়ে এখন নিজের দেশকেই বারটা বাজিয়ে দিয়েছে তেমনি বাংলাদেশেও সরকারের এরকম উভলিঙ্গিক আচরণের ফলাফলের এটি পূর্বাভাস মাত্র।

তাই এই মৌলবাদী সন্ত্রাসের দায় শেষ পর্যন্ত সরকারের ঘাড়েই পারে।এবং এই সরকার স্রেফ প্রশাসনিক ক্ষেত্রেই ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে না বরং নিজেদের দল পরিচালনায়ও অদূরদর্শীতার পরিচয় দিচ্ছে।তবে এই ঘটনার একমাত্র ভাল দিক হচ্ছে ক’দিন থেকে যে দুই নৌকায় পা দেয়ার আলোচনা উঠেছে আশা করি এর ফলে আওয়ামী লীগের এর ফলাফল সম্পর্কে শিক্ষা হয়েছে।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৫ thoughts on “ফটিকছড়ি হত্যাকাণ্ডের দায় অবশ্যই সরকারের

  1. ভাই হাটহাজারী ঘটনায় আমরা
    ভাই হাটহাজারী ঘটনায় আমরা সবাই শোকাহত।কিন্তু এটার দায় দায়িত্ব তো সরকারের নিয়ন্ত্রনের বাইরে।আমাদের নিজেদের কি কিছু করা উচিত নয়?এরা কারা?

    1. স্রেফ একজনের নাম বললে ভুল
      স্রেফ একজনের নাম বললে ভুল হবে।দেশে হঠাৎ করেই মৌলবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে।তার চেয়েও বড় ব্যাপার এটা নিয়ে রাজনীতি করা হচ্ছে।

  2. ভালোই লিখেছেন, আসলেই এই দলের
    ভালোই লিখেছেন, আসলেই এই দলের অনেক নিবেদিত প্রাণ নেতা কর্মী আছে কিন্তু তারা শুধুই দিয়ে যাচ্ছে বিনিময়ে বুলেট আর জেল পেয়েই আসছে।

  3. অবশ্যই সরকারের দায় অনেক।
    অবশ্যই সরকারের দায় অনেক। সরকার জামায়াত-শিবির নিয়ে আমাদের সাথে রাজনীতি খেলতে গিয়ে আজকে প্রাণ দিতে হচ্ছে সরকার দলীয় কর্মীদের। বাংলাদেশের রাজনীতিতে লাশের খেলা অনেক পুরানো। তবে এই খেলা এখন অচল। আগে মানুষ বিশ্বাস করত, এখন করেনা। রাজনীতিবিদদের ছলাকলা এখন মানুষ খুব দ্রুতই ধরে ফেলতে পারে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

39 + = 46