সুখ-দুঃখ

পারিপার্শ্বিকতা
আজকাল আমাদের বাধ্য করে
অশুভ যাত্রাপথে।
পৃথিবীতে আমরা অনিঃশ্চয়তার
একটি পথ আবিষ্কার করে ফেলি প্রায়শঃ
ভালো লাগে নিজেকে আঁকড়ে রাখতে
অন্য এক নষ্টালজিয়ায় ।

নিষিদ্ধ পণ্যের প্রতি মানুষের আকাংখা চিরায়ত

সুখের মাঝে একঘেয়েমি
দুঃখের মাঝে যেটুকু সুখ
মাদকের নেশার মত বেড়ে যায় অবিরত

আমরা আসলে নিজেই জানিনা
সুখ না দুঃখকে ভালবাসি ।।

[অনেকদিন কবিতা লিখা হয় না। পুরানো নিজের ভাললাগা কবিতাগুলোর মধ্যে এটি একটি। যদিও জানি, কবিতার পাঠক এখন নাই বললেই চলে। ব্লগে সংরক্ষণের জন্য পোস্ট দিলাম। কবিতাটি সম্ভবত ১৯৯৪ এর এপ্রিলে লিখেছিলাম]

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৪ thoughts on “সুখ-দুঃখ

  1. সুখ হাড়ানোর ভয় থাকে । দুঃখ
    সুখ হাড়ানোর ভয় থাকে । দুঃখ বাস্তবিতার নিয়ম তৈরী করে ।

    কবিতা লেখার একটা আধুনিক সমাজ আছে ,সে সমাজের নাম ভাষা । কবিতা একটা নারী ,অলংকার তার সৌন্দর্য্য ।

    শুভেচ্ছা রইল ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 4 = 1