ফতুল্লায় গোপন বৈঠক, মাঠে নামছে ইসলামী ছাত্রী সংস্থা ও মহিলা হেফাজতিরা

১৩ দফা দাবির সমর্থনে এবার মাঠে নামছে হেফাজতে ইসলামের মহিলা কর্মীরা। কওমী ধারার মহিলা মাদ্রাসাগুলোতে মহিলা কর্মীরা সংগঠিত হচ্ছে। কওমী মাদ্রাসার মেয়েদের এর আগে তেমন কোনো কর্মকান্ড না থাকলেও সম্প্রতি হেফাজতের ১৩ দফা নিয়ে মাঠে নামছে তারা। সারা দেশে কওমী মাদ্রাসাগুলোর মহিলা শাখাসহ আড়াই হাজার মহিলা মাদ্রাসা আছে। এইসব মাদ্রাসা থেকে ১৩ দফা দাবির সমর্থনে পুরুষদের পাশাপাশি মহিলাদের মধ্যেও হেফাজতে ইসলাম ব্যাপক সমর্থন লাভ করবে এমন পরিকল্পনা থেকেই মহিলাদের মাঠে নামানো হচ্ছে। তাছাড়া এমন কাজ আছে যা হেফাজতের পুরুষ কর্মীদের করা সম্ভব হবে না। এসব জায়গায় মহিলা হেফাজতিদের কাজে লাগাতে চায় তারা।

হেফাজতিরা মনে করে, ১৩ দফা দাবি নিয়ে বিভিন্ন নারী সংগঠনকে উস্কানি দেয়া হচ্ছে অথচ এইসব নারী সংগঠনগুলোর চেয়েও অনেকগুণ বেশি মহিলা দেশে একটি শরীয়ত সম্মত পরিবেশ প্রত্যাশা করে। আর এইকেই তারা গুটি হিসেবে ব্যাবহার করতে চায়। গ্রাম, শহর সবখানে মহিলাদের মগজ ধোলাই দিয়ে রাস্তায় নামানোর প্লান।

বিশেষ করে হেফাজতের ৪র্থ দাবিটি নিয়ে বিতর্ক ও কৌতুকের সৃষ্টি হয়। ৪র্থ দাবিতে বলা হয়, ব্যক্তি ও বাক-স্বাধীনতার নামে সকল বেহায়াপনা, অনাচার, ব্যভিচার, প্রকাশ্যে নারী-পুরুষের অবাধ বিচরণ, মোমবাতি প্রজ্জ্বালনসহ সকল বিজাতীয় সংস্কৃতির অনুপ্রবেশ বন্ধ করতে হবে। দেশের নারী সংগঠনগুলোসহ সকল স্তরের মানুশ এ দাবিকে মধ্যযুগীয় বলে আখ্যা দেয়। এ কারণেই হেফাজতের নারী কর্মীরা এ দাবির পক্ষে জনমত গঠন করতে মাঠে নামছে।

এদিকে ৫ তারিখের সমাবেশ সামনে রেখে একই কর্মপরিকল্পনা নিয়ে সক্রিয় হয়ে উঠেছে জামায়াত-শিবির সমর্থিত ছাত্রী সংস্থা। বিভিন্ন ক্যাম্পাসে সক্রিয় তৎপরতা চালাচ্ছে তাদের শতাধিক কর্মী। শিবির ক্যাডাররা ক্যাম্পাসে ঢুকতে না পারলেও এখন ছাত্রী সংস্থা তাদের কার্যক্রম চালাচ্ছে।
সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগ, বিজ্ঞান অনুষদের ছাত্রীদের কমন রুম, কলা অনুষদের ইসলামের ইতিহাস বিভাগ, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ এবং অন্য কয়েকটি বিভাগের সেমিনার কক্ষে ছাত্রী সংস্থার কর্মীদের মিটিং করতে দেখা গেছে। ক্যাম্পাসে তাদের তৎপরতা আগের যেকোনো সময় থেকে বেড়ে গেছে।

তারা গ্রাম থেকে আসা সহজ-সরল ও দরিদ্র ছাত্রীদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে দলে ভেড়ানোর চেষ্টা করছে বলে জানা যায়। ব্যবস্থাপনা বিভাগের কয়েকজন শিক্ষার্থীর অভিযোগ ‘মাঝেমধ্যে এ বিভাগের সামনে বোরকা পরা মেয়েদের মিটিং করতে দেখা যায়। মানুষ দেখলে তারা কথা বলা বন্ধ করে দেয়।’ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসেও নতুন করে সক্রিয় হয়েছে ছাত্রী সংস্থা।

গত ১৯ মার্চ নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় গোপন বৈঠকের সময়ে জামায়াতের ছাত্র সংগঠন ছাত্রশিবিরের ছাত্রী সংগঠন ছাত্রী সংস্থার ফতুল্লা থানা কমিটির সভানেত্রী ও সাধারণ সম্পাদিকাসহ ১৮ জনকে আটক করে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে বিপুল সংখ্যক বই, রেজিস্ট্রেশন খাতা, ছাত্রী সংস্থার সদস্য ফরম।

আটককৃতদের মধ্যে নাসিমা ফতুল্লা থানা ছাত্রী সংস্থার সভানেত্রী, কানিজ ফাতেমা সাধারণ সম্পাদিকা। বাকিদের বেশিরভাগই স্থানীয় দারুননেছা ইসলামিক মাদ্রাসার ছাত্রী। আটককৃতরা হলো, পলি আক্তার, মুক্তা, আয়েশা, নাসিমা, আসমা, ফাহেমা, নিলা, মেহেরুন নেছা, কানিজ ফাতেমা, নাসিমা, নাসরিন সুলতানা, নিলুফা, মালেকা, উর্মি আক্তার, কেফায়েতউল্লার দুই মেয়ে ইডেন কলেজের ছাত্রী ফাহিমা ও সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী লতিফা এবং দুই ছেলে রুহুল আমিন ও আহসান। এই ফতুল্লাকে বলা হয় জামাত শিবিরের অন্যতম আস্তানা। জানা গেছে ফতুল্লায় বিভিন্ন মাদ্রাসার ছাত্রীনিবাসে বেশ কয়েকটি গোপন বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১৩ দফা সরকার প্রত্যাখান করার পর মরিয়া হয়ে উঠেছে হেফাজতিরা। ৫ তারিখের সমাবেশে বাধা দিলে সরকার পতনের ডাক দেয়া হবে বলেও হুমকি দিয়েছে তারা।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১৬ thoughts on “ফতুল্লায় গোপন বৈঠক, মাঠে নামছে ইসলামী ছাত্রী সংস্থা ও মহিলা হেফাজতিরা

  1. গেলমানেরা সব ভিত্রে অহন তাইলে
    গেলমানেরা সব ভিত্রে অহন তাইলে হুরগো রাস্তাত নামানো হইবে?

    তা এর মাঝে কি পাপিয়া আফা বুরখা পিন্ধ্যা থাকবে? তাইলে কইলাম নারী পুলিশ স্পটেই শ্যাষ।

    1. নারী পুলিশ কি!! তাকে থামাতে
      নারী পুলিশ কি!! তাকে থামাতে আফ্রিকা্র আমাজান থেইক্যা জলহস্তি আনন লাগবো।
      মারে নাম শুইন্নাই ডরাইছি

  2. যাদের জ্ঞান স্বামীর পায়ের
    যাদের জ্ঞান স্বামীর পায়ের নীচে স্ত্রীর বেহেস্ত, তাদের মুরোদ জানা আছে। এদেরকে রাস্তায় না নামিয়ে স্বামীর শ্রেষ্ট সেবাদাসী হিসাবে তৈরী করার কর্মসুচী থেকে হেফাজতিরা ফিরে এসে যদি এদেরকে মাঠে নামায়, আমি শিওর ওরা আর রাস্তা থেকে ঘরে ফিরে স্বামীর সেবা দাসী থাকবেনা। আমি ওয়েলকাম জানাইলাম। নারী বেরিয়ে আসো শৃঙ্খল ভেঙ্গে। বাইরের মুক্ত বাতাসে নিঃশ্বাস নিয়ে দেখো, পৃথিবীটা কত চমৎকার।

  3. আমি ওদেরকে স্বাগত জানাই
    আমি ওদেরকে স্বাগত জানাই ।অনেকদিন থেকে ওরা একরকম গৃহবন্দি হয়ে আছে,ওরা বাইরে বের হওয়া মানে পরোক্ষভাবে হেফাজতিদেরই জুতা মারা ।

  4. হেফাজতি মহিলাদের মহিলা বলাতে
    হেফাজতি মহিলাদের মহিলা বলাতে আমার অফিসের একজন মজা কইরা কইলো, এরা তো নারী।
    তারে উত্তর দিলাম, এরাই রিয়েল মহিলা। মহলে থাকলে যদি হয় মহিলা, তাইলে এরা তো দেহের সাথেই একটা মহল নিয়ে ঘোরে

  5. বিপদের কথা। ভন্ডগুলার
    বিপদের কথা। :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: ভন্ডগুলার ভন্ডামী সীমা ছাড়ায় যাচ্ছে। :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: শালারা নারীদের ঘরের ভিতর বন্দী কইরা রাখতে চায় আবার স্বার্থের সময় তাদের রাস্তায় নামাইতেও বাধে না। :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি:

    1. মতিঝিলে সমাবেশে বোরকা পইরা এক
      মতিঝিলে সমাবেশে বোরকা পইরা এক থেকে দেড়শ মাইয়া হেফচুতিয়াগো পানি খাওয়াইছে। আর নাদিয়া শারমিনরে দেইখ্যায় ঈমান খাড়া হইয়া গেছিল

  6. মেশিনম্যান জেলে, তাই ছাত্রী
    মেশিনম্যান জেলে, তাই ছাত্রী সংস্থার কলিজুরা ফ্রী আছে। তাদের কাজে লাগানোর ভাল রাস্তা বের করছে। 😀

    1. বোরকা পড়া একদল মহিলা হেফাজতি
      বোরকা পড়া একদল মহিলা হেফাজতি তেড়ে আসছে, ভাবলে আমারও তো হাসি পাইতেছে :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

  7. এতদিন না এরারে বাইরে আনা
    এতদিন না এরারে বাইরে আনা অধর্ম আছিল ?
    এগোরে ঘরে ভইরা রাখাই নাকি পৌরুষ আছিল?
    জেনানা ,বিশেষ কইরা বেগানা আওরত যুদ্ধক্ষেত্রে আনয়ন তো নয়া ইতিহাস/মাইলফলক স্থাপন করিবে।
    ইকটুস খানি ফলোআপ দিয়েন ,আগ্রহ নিয়া ফলাফল জানতাম চাই।
    এর অন্যথা হইলে কইলাম ধাওয়ামু কামড়ানের লাইগা।
    :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য:

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

3 + 5 =