ব্যাক্তিগত কথা সকলের তরে

পৃথিবীর যেকোন স্থানেই হোক, ভদ্রতা এবং সৌজন্যতার খাতিরে একজন ব্যক্তির সর্বপ্রথম কাজটি হচ্ছে তার পরিচয় দেয়া। ভূলবশতঃ এই ব্লগে আমি তা করিনি প্রথমে। তারপরেও আমার প্রথম পোস্ট একাত্তরের শ্লোগানগুলো এটিতে আমি আশানুরুপ ফল পাইনি। জানিনা কি কারন তবে যেহেতু নতুন তাই হয়তো অতটা গুরুত্ব পাইনি অথবা একাত্তরে আমাদের শ্লোগান ছিলো এগুলোই কিনবা থাকলেও তা কালের বিবর্তনে হারিয়ে গিয়েছে এবং আমরা তা ভুলে গিয়েছি। তবুও আশা করি আগামীতে হয়তো ভরে উঠবে।

এবার শুরু করা যাক নিজেকে নিয়ে কিছু কথা। প্রথম পোস্টেই বলেছিলাম হয়তো; তাও আবারো পুনরাবৃত্তি করি। পেশাগত কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে বিচরন ছিলনা, শুধুমাত্র প্রচার মাধ্যম থেকে দেশের বর্তমান অবস্থা জেনে কিছুটা আগ্রহ আর কৌতুহল নিয়েই প্রবেশ।

বিদেশে জন্ম হলেও আমি বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত এবং দেশে অনেকগুলো বছর কাটিয়েছি জ্ঞান আহরনে। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের হাওয়াই প্রদেশে হনলুলু শহরের নিবাসী। ফিনিক্স ইউনিভার্সিটির অদুরে বিশপ স্ট্রীট ক্যাফের আশেপাশে নিবাস।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এসে বেশকিছুটা সমস্যার সম্মুখীন হয়েছিলাম অনলাইন ভাষাগুলোর কারণে। ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলের বাংলাদেশে অন্যান্য ভাষার পাশাপাশি অনলাইনেও একটি ভাষা আছে। তবে এই ভাষা ব্যবহার অনেকটা ভাষা দূষণ ছাড়া আর কিছুই নয়।

আর এর জন্য মূলত দায়ী স্বশিক্ষার অভাব, অনলাইনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে জনপ্রিয় অথবা মধ্যম শ্রেণীর ব্যবহারকারীগন যে ভাষা ব্যবহার করেন তৃতীয় শ্রেণী আবার সেই ভাষায় অভ্যস্ত নন। চতুর্থ শ্রেণীর কথা বাদই দিলাম, তন্মধ্যে উঠতি বয়স্ক ছেলে-মেয়েদের ভাষাদূষনও ব্যাপক লক্ষ্যনীয়।

আর এইসব দিক চিন্তা করেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি অনলাইন ভাষাদূষণ রোধ করবার। আর যেহেতু আমি একজন পেশাদার তাই এক্ষেত্রেও এটিকে পেশা হিসেবে নিয়েই কাজ করব। কয়েকটি ভাগে বিভক্ত করেছি ভাষাদূষণরোধে করণীয় পন্থা। যার মধ্যে রয়েছে কোর্স পদ্ধতি।

বিনামূল্যে নিতে চাইলে আমাকে অনুসরন করে আমার বিভিন্ন আলোচনাদিতে অংশগ্রহন করে কোর্স নিতে পারেন।
বিশেষভাবে চাইলে সেই সুবিধাও রয়েছে।
ব্যক্তি পর্যায়েও বিশেষভাবে সুবিধা রয়েছে।

এছাড়াও আমার ব্যক্তি পর্যায়ে ভাষা সংমিশ্রণ করে সহজতর একটি ভাষা আবিষ্কার করেছি যা উপরের বিশেষ প্রশিক্ষনগুলোতে বিনামুল্যেই দেয়া হবে।

সবসময়ই মনে রাখবেন, সুশিক্ষিত দিয়ে নয় স্বশিক্ষিত ব্যক্তি দিয়ে রাষ্ট্র থেকে শুরু করে অন্যান্য কাজ করানো উচিৎ। সুশিক্ষিতরা অন্যকে অনুসরন করে আর স্বশিক্ষিতরা নিজের আবিষ্কৃত পথে চলে তবে তার আগে অবশ্যই কিছুটা হলেও সুশিক্ষিত হতে হবে।

আজ এইখানেই ইতি টানছি। সকলে ভালো থাকুন (সব হ্যাপি র)

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৮ thoughts on “ব্যাক্তিগত কথা সকলের তরে

  1. তবে ভাষার এলাকাভীত্তিক
    তবে ভাষার এলাকাভীত্তিক প্রয়োগ কে দূষন বলা যাবে না। এক দেশের বুলি আর এক দেশের গালি। আর যে কোন বেপারেই শ্রেনীবৈষম্য বেপারটা ভালোলাগেনা।

  2. কোর্স বিনা মূল্যে হলে বেশী
    কোর্স বিনা মূল্যে হলে বেশী ভাল হয় ! কারণ নেটের বিল, ল্যাপটপে বিদ্যুতের বিল, বাসার বাতির বিল, সর্বোপরি সারাদিন ব্যস্ত সময় কাটানোর পর ঘুম জেগে আপনার কোর্সে অংশগ্রহণ করবো সেটাই বা কম কিসে ?

  3. কোর্স করবো ঠিক আছে।
    কিন্তু

    কোর্স করবো ঠিক আছে।
    কিন্তু বেনসনের টাকগুলা আপনার কাছ থেকে নিব…এই বলে দিলাম… :চশমুদ্দিন:

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

58 − 57 =