ভিয়েলিটার প্রতিবাদ এবং ইতালীর ‘কমলা যুদ্ধ’

কলমা খাইতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু কেউ যদি ঢাউস একখান কমলা কষে আপনার গায়ে ছুড়ে মারে তাইলে আপনার রিঅ্যাকশন কি হতে পারে? নির্ঘাত তার ক্যান্ডি পঅ করে ছাড়বেন। তবে ইতালির লোকজন হইলে হিসাব আলাদা। কারন তারা তো ঘটা করে, ব্যান্ড বাজায়, হই হই রই রই করে কমলা ছোড়াছোড়ি করে।


কলমা খাইতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু কেউ যদি ঢাউস একখান কমলা কষে আপনার গায়ে ছুড়ে মারে তাইলে আপনার রিঅ্যাকশন কি হতে পারে? নির্ঘাত তার ক্যান্ডি পঅ করে ছাড়বেন। তবে ইতালির লোকজন হইলে হিসাব আলাদা। কারন তারা তো ঘটা করে, ব্যান্ড বাজায়, হই হই রই রই করে কমলা ছোড়াছোড়ি করে।

তাও সেসব কমলা আবার যেমন তেমন নয়, কড়া শক্ত ফ্রোজেন কমলা। এ কারণে উৎসবে রক্তপাতের ঘটনাও ঘটে প্রচুর। তাতে কি! উৎসব তো উৎসবই। উত্তর-পশ্চিম ইতালির বাসিন্দারা বছরে একবার এমন এক কমলা ছোড়া উৎসবের আয়োজন করে। ইতালির ইভরিয়া শহরের এ উৎসবের নাম দ্য ব্যাটল অব অরেঞ্জ ।


হুম যুদ্ধই বটে! অনেকটা সুগঠিত যুদ্ধের মতোই। ৯টি সেনা দলে ভাগ হয়ে এ যুদ্ধ হয়, অস্ত্র হলো কমলা। একদল আরেকদলের দিকে কমলা ছুড়ে মারে। তাদের সাজও হয় যুদ্ধের দুই বাহিনীর মতোই। শুধু নিজ শহরের বাসিন্দারা না এই যুদ্ধে যোগ দেইয় বিভিন্ন দেশের পর্যটকরা।


ইভরিয়া শহরেরর বাসিন্দাদের লোকমুখে প্রচলিত আছে যে, অনেকে আগে ইতালির স্বৈরাচারী এক শাসক ভিয়োলিটা নামের এক সাধারণ যুবতীকে ধর্ষণ করার চেষ্টা করে, পরে সেই নারী প্রতিবাদী হয়ে শাসকের প্রাসাদ জ্বালিয়ে দেয়। ভিয়েলিটার প্রতি সম্মান দেখাতেই প্রতিবছর আয়োজন করা হয় এই কমলা ছোড়ার যুদ্ধ।


প্রতিবছরের উৎসবে একজন নারী ভিয়োলিটা বানানো হয়। ওইদিন ওই এলাকায় কারো রক্ষা নাই। তবে রক্ষা যদি পেতেই হয় আপনেকে নিতে হবে কৌশল। উৎসব চলাকালে কারো মাথায় যদি লাল টুপি পরে থাকে তাহলে তার দিকে কমলা ছোড়া হয় না। কারন তাকে বিপ্লবী মনে করা হয়।


এ উৎসবে আগে সীমের দানা ছোড়া হতো। পরে ছোড়ার জন্য কেন কমলাকে বেছে নেয়া হলো তার কোনো নির্দিষ্ট ব্যাখ্যা নেই। এমনকি ইটালীর ওই এলাকায় কমলা চাষও হয় না।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৩৪ thoughts on “ভিয়েলিটার প্রতিবাদ এবং ইতালীর ‘কমলা যুদ্ধ’

  1. আফসুস হলুদ রঙয়ের কমলাগুলোর
    আফসুস হলুদ রঙয়ের কমলাগুলোর জন্য।
    যাই হোক বড়লুকের বড় কারবার, এইসব দেইখ্যা গরীবের ছেড়া খ্যেতায় হুইয়া লাখ ট্যাকার স্বপ্ন দেহা :দীর্ঘশ্বাস: :দীর্ঘশ্বাস: :দীর্ঘশ্বাস: :দীর্ঘশ্বাস: :দীর্ঘশ্বাস:

    1. আমরাও কি কম অপচয় করে উৎসব
      আমরাও কি কম অপচয় করে উৎসব করি? ঈদ আসলে এতো জামাকাপড় থাকতেও একগাদা কেনা কাটা করি। পুজায় এতো টাকা খরচ করে প্রতিমা বানায় আর খাওয়া দাওয়া তো আছেই। খালি অন্যের অপচয় দেখলেই হপে :জ্ঞান: :জ্ঞান: :জ্ঞান:

      1. ঈদের জামা আর খানা খাদ্য তো
        ঈদের জামা আর খানা খাদ্য তো ছুঁড়ে ফেলে দেই না আমরা। :কনফিউজড:
        পূজার প্রতিমার ব্যাপারে কিছু কইলাম না, ব্লাসফেমির বাঁশ খাইতে চাই না। :কেউরেকইসনা:

    1. এই জাতী তো পুরাই চিরিয়াস জাতি
      এই জাতী তো পুরাই চিরিয়াস জাতি হয়ে গেছে। হোয়ায় সো চিরিয়াস :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি:

  2. আমি ভাবতেছি আমাদের দেশে যদি
    আমি ভাবতেছি আমাদের দেশে যদি এমন কোন উৎসব থাকতো তবে আমরা কি নিয়ে ছুঁড়াছুঁড়ি করতাম?
    কাঁঠাল? আম? জাম? পচা ডিম?
    নাকি
    .
    .
    .
    .
    .
    .
    .
    .
    .
    .
    .
    .
    ককটেল?

    1. লে হালুয়া জোস আইডিয়া…….
      লে হালুয়া জোস আইডিয়া……. বিলাতিরা টমাটু, কাদা, কমলা ইত্যাদি ছুইড়া উৎসব করে আর মজা লয় আর আমরা ককটেল ছুইড়া উৎসব কইরা মজা লই :আমারকুনোদোষনাই: :আমারকুনোদোষনাই: :আমারকুনোদোষনাই: :আমারকুনোদোষনাই: :আমারকুনোদোষনাই:

  3. আমি ইতালিতে থেকেও এই উৎসবের
    আমি ইতালিতে থেকেও এই উৎসবের খবর রাখিনা!!! আসলে আমি যে শহরে থাকি সেখানে সম্ভবত এই উৎসবটা হয়না। তবে এখানে আসলেই কমলার অনেক ছড়াছড়ি, আর দামেও অনেক সস্তা তাই প্রচুর খাওয়া হয় ফলটা আমার। এখানে কয়েক ধরনের কমলাই পাওয়া যায়, যেমনঃ মানদারিনো, ক্লিমিনতিনো, আরাঞ্চা আরো দু’একটা নামেও আছে সম্ভবত। এগুলোর চাষ হয় সাধারণত বড় বড় কৃষি খামারে এবং পাহাড়ের পাদদেশের ঢালু জমিগুলোতে। তবে মাঝে মাঝে বাড়ির আঙ্গিনায়ও এই গাছগুলো দেখা যায়। সম্ভবত সেগুলো সুন্দর্য্য বন্ধর্যের জন্যই রাখা হয়, কারণ যখন গাছে ফল থাকে তখন সেখানে দেখার মত একটা দৃশ্য হয় তৈরি হয়। শামীমা মিতুকে ধন্যবাদ এমন একটা বিষয় সম্পর্কে ধাওনা দেওয়ার জন্য……..

  4. এইরকম একটা উৎসব কইরে আমাদের
    এইরকম একটা উৎসব কইরে আমাদের দেশের দুর্নীতিবাজ শাসকদেরকে যদি পচা ডিম মারা যাইতো… :মাথানষ্ট: :মাথানষ্ট: :মাথানষ্ট:

  5. দুনিয়াতে এত জিনিস থাকতে
    দুনিয়াতে এত জিনিস থাকতে ভিয়োলিটা ম্যাডাম’রে সন্মান দেখানির লাইজ্ঞা কমলা ছোঁড়াছুড়ি ক্যান ??!! :মানেকি: … পুরাই তো :মাথানষ্ট:

    ভিয়োলিটা ম্যাডামের কি কমলা অপছন্দ ?? নাকি ভিয়োলিটা ম্যাডামের পর-জনমে ডাক নাম “কমলা বানু” “অরেঞ্জ বেগম” “সানতারা খাতুন” এই টাইপের কিছু, সেইডা :ভাবতেছি: :ভাবতেছি: :ভাবতেছি:

    1. হতে পারে ভিয়োলিটা, অসাধু
      হতে পারে ভিয়োলিটা, অসাধু রাজার কমলা এর বাগানে কাজ করত। রাজার অসত ঊদ্দেশ্য থেকে নিজের সম্ভ্রম রক্ষার্থে কমলাকাননে কর্মরত ভিয়োলিটা সেই মুহূর্তে রাজার চোখে কমলা ছুড়ে মেরেছিলেন এবং নিরাপদ স্থানে সরে যেতে সক্ষম হয়েছিলেন।

  6. আপু এক সিনেমায় টম্যাটো ছুড়তে
    আপু এক সিনেমায় টম্যাটো ছুড়তে দেখেছিলাম ! এই পোস্ট পড়ে মনে পড়ল ! ভাল লাগসে তথ্যমূলক এবং বিনোদন দুটোই পেলাম ! :মুগ্ধৈছি:

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

64 + = 74