ডিজিটাল পদ্ধতি স্কুল পরিদর্শনে

প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে ডিজিটাল পরিদর্শন ও তদারকি ব্যবস্থা চালু করছে বর্তমান সরকার। প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচির মাধ্যমে অনলাইন স্কুল পরিদর্শন ব্যবস্থা চালু হচ্ছে। শিক্ষার্থী নিয়মিত ক্লাসে আসে কিনা, সে তথ্য কাছে নেই। এর জন্য শিক্ষক আর কর্মকর্তাদের তথ্যের ওপর নির্ভর করতে হয়। বিষয়টি প্রামাণ্য করতে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে তাদের হাজিরা গ্রহণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। ডিজিটাল পরিদর্শন ও তদারকি ব্যবস্থার প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে, সরেজমিন স্কুল পরিদর্শন কার্যক্রম। ক্লাস কার্যক্রম তদারকি, শিক্ষক কর্তৃক শিক্ষার্থীর বাড়ি-ভিজিটসহ অন্যান্য দিক উঠে আসবে। প্রত্যেক সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা তার দায়িত্বে থাকা স্কুলগুলোতে গিয়ে ১৭টি মূল দিকসহ অন্যান্য দিক দেখবেন। এরপর স্কুলে বসেই ৫ পৃষ্ঠার একটি তথ্য ফরম পূরণ করবেন অনলাইনে। তা ডিপিই’র কেন্দ্রীয় সার্ভারে আপলোড করবে।এইউইওরা যে ১৭টি দিক তা হচ্ছে, কর্মরত ও অনুপস্থিত শিক্ষক, ছুটির ধরন, শিক্ষক কর্তৃক শিক্ষার্থীর বাড়ি-ভিজিট, শ্রেণী কার্যক্রম বা পাঠদান কেমন ক্লাসে শিক্ষার্থীকে বোর্ডে অনুশীলন করানো হয় কিনা, পাঠদানে মানোন্নয়নে পরামর্শ। আরও আছে বার্ষিক সার্বিক পরিকল্পনা বিদ্যালয় কার্যক্রম কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী অগ্রগতি ব্যবস্থাপনা কমিটি সমাপনী পরীক্ষা, বিদ্যালয়ে সহপাঠ কার্যক্রম শারীরিক কসরত, ক্রীড়া, সাহিত্য-সংস্কৃতি, চারু ও কারুকলা ইত্যাদি অভিভাবক সমাবেশ, স্কুলের পারিপার্শ্বিক দিক, শিক্ষার্থীর ইউনিফর্ম সংক্রান্ত তথ্য, আগের পরিদর্শনকারীর পরামর্শ। বিদ্যালয়ের তথ্য, পরিদর্শনকারীর তথ্য এবং পরিদর্শনকারীর মতে প্রধান শিক্ষকের যোগ্যতাসহ সার্বিক মন্তব্য ও সুপারিশ থাকছে এই ব্যবস্থায়। ব্যবস্থাটি চালু হলে কেবল ১৭টি মূল দিকই বেরিয়ে আসবে না, তাদের সরেজমিন যেতে হবে। আর একজন পরিদর্শক যখন স্কুলে যাবেন, তখন স্কুলের লেখাপড়া, পারিপার্শ্বিকতা এবং প্রশাসনিক ব্যবস্থা উন্নত হবে।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

8 + 1 =