আরেকটি উজ্জল নক্ষত্র হারিয়ে গেল !!! (জীহান রানা)

আবার আরেকটি উজ্জল নক্ষত্র হারিয়ে গেল না ফেরার দেশে !!
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ছাত্র এবং ব্লগার নাজিমুদ্দিন সামাদ কে গত বুধবার রাতে কুপিয়ে এবং গুলি করে হত্যা করা হয়েছে | অপরাধ অনলাইনে ধর্মান্ধদের বিরুদ্ধে লেখালিখি |

খুনের স্টাইল আগের মতই | হত্যার সময় বারবার “আল্লাহুআকবার” বলে আনন্দ উল্লাস | সরকার , পুলিশ , প্রশাসন সবার প্রতিক্রিয়াও আগের মতই আছে | সরকার নিশ্চুপ , পুলিশ হত্যাকারীদের খোজার বদলে তদন্তের নামে মৃতের লেখালিখি ঘেটে দোষ বের করার চেষ্টায় ব্যাস্ত | মোল্লারা সবাই মিলে মৃত্যুর উল্লাসে আত্নহারা | আর সাধারণ পাবলিক তো পাবলিকই | নিজে বাচলে বাপের নাম , কে কই মরলো তা জেনে তাদের কী দরকার | বিশ্ববিদ্যালয়ের সহপাঠী , সহকর্মীরা কিছুদিন রাস্তায় নেমে বিচারের দাবি | অতঃপর পুলিশের তদন্ত নামক ডুমুরের ফল ধরার অপেক্ষায় একসময় সবকিছু স্বাভাবিক এবং হত্যার ঘটনা পুরনো ইস্যুতে পরিণত হবে | এভাবেই তো চলছে সব | নিরপরাধ মানুষ হত্যারই বিচার হয় না , আর ব্লগার হত্যার বিচার কী হবে ! ব্লগাররা তো মানুষই না , তাদের অপরাধের তো শেষই নেই | লেখালিখির মত বড় অপরাধ আর কী হতে পারে !!

সবই আগের মতই থাকলেও শুধু একটা বিষয়ে বেশ পরিবর্তন লক্ষ্য করছি | দেশের বড় বড় অনলাইন নিউজ পেপারগুলো হত্যার বিষয়ে তেমন কোন খবরই প্রচার করছে না | কিছু সাইটে অতি সাধারণ এক হেডলাইন দিয়ে হত্যার কথা প্রকাশ করা হচ্ছে কিংবা কোথাও আবার শুধু বিক্ষোভকারীদের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে খবর প্রচার করেই খালাস | সবকিছু দেখে মনে হচ্ছে চারিদিকে যেন ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার এক বিশাল নীলনকশা তৈরি হচ্ছে |

সরকার ও প্রশাসনের এমন নিস্তব্ধতা কি নিসন্দেহে হত্যাকারীদের শক্তি যোগাচ্ছে না ? পুলিশ তদন্ত করে তেমন কিছুই খুজে পায় না | অথচ হত্যার হুমকি সহ পোষ্ট দিব্যি আমাদের আশেপাশে ঘুড়ে বেড়ায় | আমরা হত্যার হুমকি সহ হুমকিদাতার খোজ পেয়ে যাই , অথচ পুলিশ কিছু খুজে পায় না | আর পাবেই বা কী করে ! সরিষা দিয়ে ভূত তাড়াবো , সরিষার মাঝেই যদি ভূত থাকে তাহলে আর কী করার !! যাদের ঘাড়ে তদন্তের ভার , তারাও তো এক একজন মহা আস্তিক | মৃত্যুর উল্লাস তো তাদের জন্যও প্রযোজ্য | তাছাড়া একটা নাস্তিক হত্যার ন্যায় বিচার করার স্বার্থে কাজ করলে যদি আবার সৃষ্টিকর্তা নারাজ হয় , তাহলে তো আবার স্বর্গের হুর পাওয়া হবে না | তাই এসব হত্যার হুমকি , হুমকিদাতা কোনটাই তাদের চোখে পড়ে না |

একটা কথা পরিষ্কার বলতে যাই , পুলিশ প্রশাসন যদি অপরাধী কিংবা সাসপেক্ট খুজে বের করতে ব্যর্থ হয় , তবে তদন্ত তদন্ত নাম জপ না করে আমাদের দায়িত্ব দেয়া হোক অপরাধী খুজে বের করার | এটুকু বলতে পারি অন্তত পুলিশের চেয়ে বেশী ক্লু জোগাড় করতে পারবো |

আর মোল্লাগণ কী ভাবছেন আপনাদের জয় হয়েছে ? মোটেও না | হত্যার মত জঘণ্য কাজ করার সময় আল্লাহুআকবার বলা , অতঃপর একজনের মৃত্যুতে আনন্দ প্রকাশ করা আপনাদের ধর্ম এবং ধর্মজ্ঞানের মান সম্পর্কে পুরো বিশ্ববাসীকে যথেষ্ট অবগত করেছে | আপনারা নিজেদের কর্মকাণ্ডের মাধ্যমেই ইসলামকে নীচ ও বর্বর প্রমাণ করেছেন | ভেবেছেন কী হত্যা করেই কলম রুখে দিতে পারবেন ? তাহলে বলছি শুনুন , নাজিম মরে নি বরং অমর হয়েছে | চিরদিন সে বেচে থাকবে আমাদের হৃদয়ে | একটা রাজিব, অভিজিৎ , নিলয় , নাজিম মারা যেতে পারে , কিন্তু এমন আরো হাজারো অভিজিৎ ,নিলয়,নাজিম জন্ম নিচ্ছে প্রতিদিন , প্রতিক্ষণ | হত্যা করতে করতে একদিন রক্তের বন্যায় নিজেরাই ভেসে যাবেন |

রাজপথে লেখকের রক্ত পরিষ্কার বলছে, নক্ষত্র হারিয়ে যায় নি বরং নিজের চিরস্থায়ী আসন করে নিয়েছে | মনে রেখো, যতবারই হত্যা করো , যতই রাজপথ রক্তে রাঙাও , আবার জন্মাবো , ফিরে আসবো আবার এই মাটির তরে …

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on “আরেকটি উজ্জল নক্ষত্র হারিয়ে গেল !!! (জীহান রানা)

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

6 + 2 =