এক নারীর গল্প

মেয়েটির নাম নমিতা। ধর্মে হিন্দু। বাবা মারা গেছেন। মা বেঁচে আছেন। ৭ ভাই বোনের সংসারে নমিতা সবচেয়ে ছোট।বড় ভাই বোনেদের বিয়ে হয়ে গেছে। অভাবের সংসারে বেড়ে ওঠা নমিতার।
কোন এক বিয়ের অনুষ্ঠানে পরিচয় হয় ছেলেটির সাথে। ছেলেটির নাম বিদ্যুৎ। সেও হিন্দু। এবং একই সম্প্রদায়ের। ছেলেটির বাবা মা কেউই বেঁচে নেই। বিদ্যুতের ভাই বোনের সংখ্যা ১০। বড় ৫ টি ভাই ও তিন বোনের বিয়ে হয়ে গেছে। বাকি আছে শুধু বিদ্যুৎ ও একটি ছোট বোন।
পরিচয় থেকে প্রেমও হয়ে যায় দুজনের মধ্যে। প্রেম ছাড়াও আরও একটি সম্পর্ক আছে ওদের মধ্যে। সেটি হল বিদ্যুৎ ও নমিতার দুজনেরই বড় ভাই পরস্পরের ভায়রা।
৪ বছর ধরে প্রেম চলে দুজনের। এ চার বছরে বিদ্যুতের অসংখ্যবার আসা যাওয়া হয় নমিতাদের বাসায়। এবং গত ১১ নভেম্বর ২০১৫ ইং তারিখে নমিতা ও বিদ্যুৎ পরস্পরের সম্মতিতে সামাজিকভাবে হিন্দুমতে আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে করে । বিদ্যুৎ তার পরিবারকে জানায়নি। এবং নমিতার পরিবার জানাতে চাইলে বিদ্যুৎ জানাতে না করছে। বিদ্যুৎ মেয়ের পরিবার থেকে মোটা অংকের টাকাও নিয়েছে সংসার করবে বলে। কিছুদিন সংসারও হয় তাদের।
১৫/২০ দিন সংসার করার পর হঠাৎ করে সবধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় বিদ্যুত। এবং তার কয়েকদিন পর একটা ডিভোর্স পেপার হাতে পায় নমিতা। ডিভোর্সের কারন হিসেবে বিদ্যুৎ উল্লেখ করে যে- তাকে জোর করে ধরে বিয়ে দেওয়া হয়েছে। যদিও প্রমান করতে পারেনি তা। কেননা বিয়ের ছবিগুলোতে হাস্যোজ্জ্বল অবস্থায় দেখা গেছে বিদ্যুতের।
যাইহোক, নমিতাকে মেনে নিতে চাচ্ছে না বিদ্যুৎ ও তার পরিবার। এর মধ্যে দুইবার নমিতা বিদ্যুতের বাড়িতে ওঠার চেষ্টা করে। এবং ব্যর্থ হয়। গ্রামে সালিশ হয়েছে তিনবার। এবং কোন সালিসেই বিদ্যুৎ উপস্থিত থাকেনি। সর্বশেষ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের অনুমতিপত্র নিয়ে আজ ১১/ ০৪/২০১৬ তারিখে বিদ্যুতের বাসায় ওঠার চেষ্টা করে নমিতা। এবং বেধড়ক নির্যাতনের শিকার হয়। বিদ্যুতের বড় ভাইদের বউগুলো অমানসিক নির্যাতন করে নমিতাকে গোবর সারের গর্তে ফেলে রাখে। পরবর্তীতে ইউপি চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে মেয়েটা বাসায় ফিরতে পারে।

জানি না নমিতা তার অধিকার ফিরে পাবে কিন। বাংলাদেশের আইন কি পারবে নমিতাকে তার অধিকার ফিরিয়ে দিতে।
হয়ত প্রশ্ন উঠতে পারে তাদের বিয়ের পদ্ধতিগত ত্রুটি নিয়ে। কিন্তু বিদ্যুৎ যে মেয়েটির সাথে ৪ বছর প্রেম করল তার কি হবে? এটা কি প্রতারণা নয়? প্রতারনার বিচার কি হবে না? না সারাজীবন আইন প্রভাবশালীদের স্বার্থ রক্ষা করবে?

গল্পটির সকল চরিত্র বাস্তব।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

56 + = 61