দেশী প্রকৌশলীর সাফল্য

সত্যিই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। মেধাকে ছাইচাপা দিয়ে আটকানো যায় না। সত্যিকারের মেধা বিষ্ফোরন হবেই। আমাদের দেশের সোনার ছেলেরা মেধা দিয়ে দেশের মুখ উজ্জল করছে। তেমনি জ্বালানি খরচ ছাড়াই মটর বাইকের ইঞ্জিন আবিস্কার করেছেন নেত্রকোনার তরুণ ইঞ্জিনিয়ার মো. আতিকুর রহমান শরীফ। পরিবেশবান্ধব ই-বাইক সোলার প্যানেলের মাধ্যমে চলবে। ছোট বেলা থেকেই নতুন কিছু আবিষ্কার করার অদম্য ইচ্ছেই তার অনুপ্রেরণা। তার আবিষ্কৃত ই-বাইকটি কোন প্রকার কার্বন ডাই অক্সাইড ছড়ায় না। শব্দও উৎপন্ন করে না। তাই বায়ু ও শব্দ দূষণের সুযোগ নেই। জ্বালানি হিসেবে সোলার প্যানেলের সাহায্যে চলবে তার এই বাইক। একবার ফুলচার্জ হলে ১২০-১২৫ কি.মি. চালানো যাবে। যখন সৌরশক্তি থাকবে না তখন বিদ্যুতের মাধ্যমে এটি চার্জ করা যাবে। ই-বাইকটি ঘণ্টায় ৮৫-৯০ কি.মি. গতিতে চলবে। ছোট ও পাতলা সোলার প্যানেলগুলো একত্রে ই-বাইকের সাইড বক্সে বহন করা যাবে। সামনের চাকা হাইড্রোলিক এবং পিছনের চাকা ড্রাম ব্রেক। একবার চার্জ করতে দুই ইউনিট বিদ্যুৎ খরচ হবে, যার মূল্য ৭ টাকা থেকে ১০ টাকা। অর্থাৎ ১০ টাকায় চালানো যাবে ১২০ থেকে ১২৫ কিলোমিটার। আর সূর্যের আলো থাকলে তো সেটাও দরকার হবে না। ই-বাইকটি উৎপাদন খরচ পড়বে ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকা। ক্রমবর্ধমান জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সংকট মোকাবেলায় ই-বাইক হবে সফল সমাধান।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 52 = 54