মাদ্রাসা ছাত্রদের আদব দেখে মুগ্ধ হলেন দাদা!

?oh=5f36ca4f9fae0518d9c3e9c936b6b305&oe=57B94614″ width=”400″ />

প্রত্ন খননের জায়গাটার পাশেই একটা মাদ্রাসা। বৈশাখের দাবদাহ থেকে বাচতে মাদ্রাসার বারান্দায় এসে বসলাম। গতকাল থেকেই এরা আমাদের দেখছে, বিস্ময়ে বড় বড় চোখ করে। ওখানে বসতেই দুজন ছাত্র হাতপাখা নিয়ে বাতাস করতে শুরু করলো। আমাদের শহুরে ভ্যালুজ দিয়ে এই বাচ্চাগুলোর বাতাস দেয়া মেনে নিতে পারলাম না। যতবার মানা করি শোনে না। শেষ পর্যন্ত হাত থেকে পাখা কেড়ে নিতে গেলাম, আর ছেলেটা ভ্যা করে কেঁদে দিল। আমি বিব্রত, কাদে কেন? গ্রামের মানুষ বলল, ওদের বাতাস করতে দিন, ওটাই ওদের আদব, আপনি মুরুব্বি এবং অতিথি আপনাকে এই সন্মান করাটাকে ওরা কর্তব্য মনে করেছে। আমি স্তব্ধ হয়ে বসে থাকি।

কত কিছুই যে জানিনা। দেশের অধিকাংশ মানুষ এর জীবন আর মুল্যবোধের সাথে পরিচয় ই হয়নি আমার। আমার কাছে সবসময় বইয়ের সাথে টেক্সট মার্কার পেন আর নানা ধরণের পেইজ মার্কার থাকে। ফিরে আসার সময় আমি ওকে একটা টেক্সট মার্কার দিলাম, আর অরিজিন অব স্পিসিস পড়ছি সেখান থেকে খুলে নিয়ে পেইজ মার্কার দিলাম। সে দৌড়ে ভিতরে গেল, এবার হাতে একটা বই, নুরানি নামাজ শিক্ষা, লক্ষ্য করলাম অরিজিন অব স্পিসিস থেকে খুলে দেয়া পেইজ মার্কার সেখানে ঠাই নিয়েছে।-Pinaki Bhattacharya April 19 at 7:58pm ·

মাদ্রাসা ছাত্র সম্পর্কে আমাদের ধারনা মিশ্র । তবে এটা শহুরে অতি আধুনিক মানুষের কাছে। এদের মধ্যে কেউ মনে করেন মাদ্রাসা শিক্ষায় ভাল না আবার একটা অংশ মনে করেন এটা ভাল পদ্ধতি।

মাদ্রাসায় যে কোমল মতি বাচ্চারা যায় তারা সত্যিই অসাধারন। ছোটবেলা থেকেই তাদেরকে যে আদব শেখানো হয় তা তাদেরকে সমাজের একজন সৎ ও সুন্দর চারিত্রিক মানুষ হিসাবে গড়ে তোলে।আমার জীবনে দুএকবার মাদ্রাসার কোমলমতি ছাত্রদের সাথে দেখা করার সুযোগ হয়েছিল। দেখেছি আসাধারন আদবের সেসব শিশুকে।

আমাদের সমাজের একটা পথভ্রষ্ট অংশ আছে যারা মাদ্রাসার সমালোচনা করে। কিন্তু তারা মাদ্রাসা সম্পর্কে কিছুই জানেনা। এই শ্রেনীটাই সমাজের শান্তি নষ্ট করছে। এটা খুবই দু:খজনক।

পিনাকী দাকে ধন্যবাদ তার অসাধারন সত্য বলার সাহসকে। সত্য বলার সাহস সবার থাকে না। যে সত্য বলতে পারে সেই আসল মানুষ, সার্থক মানুষ!

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৪ thoughts on “মাদ্রাসা ছাত্রদের আদব দেখে মুগ্ধ হলেন দাদা!

  1. এরেই কয় বাটপাড়। পিনাকী মিথ্যা
    এরেই কয় বাটপাড়। পিনাকী মিথ্যা বলায় ওস্তাদ। হাত থেকে পাখা কেড়ে নেয়ায় ভ্যা করে কেঁদেই দিল শিশুটি। এত আদব শেখায় তাদের!

    আমাদের একটি মাদ্রাসা আছে। আমি নিজে দেখেছি কেমন আদব বাচ্চাদের শিক্ষা দেয়া হয়। ব্যক্তিত্বহীন মূর্খ হুজুররা বাচ্চাদের অপদার্থ করে তোলে।

    বড় হুজুরের নেতৃত্বে আমাদের এখানে মাদ্রাসার ছাত্ররা নাফরমানি কাজ কর্ম প্রতিহত করার নামে যেখানেই সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের উদ্যোগ নেয়া হত সেখানেই ঝাপিয়ে পড়ত, এখনো অবস্থা একই থাকার কথা।

    1. পিনাকী সাহেব তার অভিজ্ঞতা
      পিনাকী সাহেব তার অভিজ্ঞতা বর্ননা করেছেন। কিন্তু আপনি সেটা আন্দাজে মিথ্যা বলে দিলেন। এটা এক ধরনের স্বভাব! যাই হোক আপনি আপনার মন্তব্যের শেষাংশের মাধ্যমে স্বীকার করেছেন যে যেখানে অশ্লীলতা সেখানেই বাধা দেয় মাদ্রাসার ছাত্ররা।
      ধন্যবাদ।

  2. খুব সুন্দর পোস্ট। মাদ্রাসার
    খুব সুন্দর পোস্ট। মাদ্রাসার বাচ্চাদের ভদ্রতা সত্যি মুগ্ধ হবার মতন। পিনাকি ভট্টাচার্য একজন বিবেকবান ; সুন্দর মনের মানুষ বলে সত্য কথাটি বলেছেন।

    1. এই সত্য কথাগুলো শুনলে নষ্ট
      এই সত্য কথাগুলো শুনলে নষ্ট স্বভাবের মানষের গা জ্বালা করে।
      ধন্যবাদ আপনাকে সুন্দর মন্তব্যের জন্য।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 1 = 3