অবাক সুসং !

?oh=7b06a1577ab1e20de44a7244f3dc2de0&oe=57BFFF72″ width=”400″ />

উঠেছে সালজং জলে নেমেছে হাজং
রমণীর জাখামারা সমস্বরে সুসং
লালকালো ডোরাকাটা শীতল বসন
ক্ষয়ীষ্ণু ভীরুতা তার উচাটন মন
যেন তারা মন কাড়া তকলের বন !

আহা ! দ্যাখ, সোমেশ্বরী গাঙের স্বচ্ছ জল !
অবিরাম খেলে যায় লাছুয়ার দল
সাদা পাহাড় বিজয়ের উকি দেয় মনোরম
স্নিগ্ধ সলাজ মান্দি সাবালিকার ছল
অধরে মত্ততা তার কথা চঞ্চল !

ওহে বন্ধু ! ঐ শোন দামা দামামা বাজে
নাচে মান্দি যুবক তালে দোলমাল
রে-রে সুরে সত্য সুন্দর জীবনের গান
প্রেমে অনুরাগে অথই ঝঙ্কারে ফোঁটে
জলফুল বনফুল পাহাড়ের টান ।

ওগো প্রেমীক ! দ্যাখো শিমুলের বৃন্দাবন
বসন্ত বাতাসে গায় বারোমাসী গান
বিরহের সুর লাগে মনের ভেতর
গহীণ ভীষন অনুরাগী হাজং এ মন
টলমল ছলছল প্রিয় প্রেমের ভূবন !

ওহে সুহৃদ ! দ্যাখো সবুজের মাঠ
হেলেদুলে মেলামেশা নিতাই ভোগাই চলে
জ্বেলে দীপ বনঝিরি জোনাকীর আলো
আলোড়ন সংকীর্তন অবাক চরমাগন
সুসং-‘র মায়া সে যে সাধনার ধন ।

———————-
সাদা পাহাড় বিজয়ের- দূর্গাপুরের বিজয়পুর গ্রামের সাদামাটির পাহাড়। রূপকার্থে- স্বপ্নের পাহাড় ।
লাছুয়া- সুস্বাদু বিশেষ মাছ যা সোমেশ্বরী নদীতে পাওয়া যায়।
তকলে- পাহাড়ের সুস্বাদু গুল্মফল যা ছেলেমেয়েদের আকর্ষণ করে।
দামা- মান্দিদের বাদ্যযন্ত্র বিশেষ।
সালজং- সূর্য বা সূর্যদেবতা (মান্দিদের প্রাণশক্তির দেবতা)
রেরে – মান্দিদের ঐতিহ্যবাহী গান বিশেষ।
জাখা- হাজংদের মাছ ধরার যন্ত্র বিশেষ ।
নিতাই- পাহাড়ের একটি নদীর নাম।
ভোগাই- পাহাড়ের একটি নদীর নাম।
চরমাগন- পার্বন উপলক্ষে হাজংদের ধান সংগ্রহ ও বন্দনাগীত।
বারোমাসী গা্ন- হাজংদের বারোমাসী বিরহ সংগীত।

————————————–
বিপুল হাজং-‘র আদিবাসী কাব্য ও কবিতা (বিরহ সংকলন)

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 3 = 6