গুপ্ত হত্যা বন্ধ করার জন্য কিছু সুপারিশ

পত্রিকার পাতা বা টেলিভিশন চ্যানেল যাই খুলি না কেন সব সময়ই একটি শব্দ আমাদের বার বার শুনতে হয়, তা হোল ইসলাম মানে শান্তি এবং ইসলাম কোন ধরনের হত্যা কে সমর্থন করে না । তখন আমরা যারা ইসলামের পতাকাতলে নেই তারা হীনমন্যতায় ভুগি এই ভেবে যে যতো অশান্তির কারন বোধহয় আমরাই এবং যতো হত্যা কাণ্ড ঘটছে তা বোধহয় আমরাই ঘটাচ্ছি, কেননা শান্তি তো আসছে না এবং হত্যা তো হচ্ছেই ।
ব্লগার, প্রকাশক, বিধর্মী , ধর্মত্যাগী , পুরোহিত, সাধু, শিক্ষক বা সেতারবাদক যাকেই হত্যা করা হয় তখনই আপনারা মানে যারা জ্ঞানী গুণী ( যাঁদের জ্ঞানলব্ধ কথা শুনে শুনে আমরা একটু একটু জ্ঞানী হচ্ছি বলে মনে করি )বলতে থাকেন ইসলাম মানে শান্তি এবং ইসলাম কোন ধরনের হত্যা কে সমর্থন করে না । তা হলে কারা এই হত্যা কাণ্ড ঘটাচ্ছে ? এর উত্তর ও পাই আপনাদের কাছ থেকে , তবে পরিষ্কার ভাবে নয় ভাসা ভাসা ।
কেউ কেউ বলেন এগুলো ইয়াহূদী নাসারারাদের কাজ ইসলামকে কলঙ্কিত করার জন্য ।
কেউ কেউ বলেন, এখানে ঘাটিবানানোর জন্য এগুলো আমেরিকার কাজ

কেউ কেউ বলেন মানবতা বিরোধী শাক্তির শাস্তি বাঞ্ছাল করার জন্য এ হত্যা।
কেউ কেউ বলেন দেশে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন না থাকলে এ ধরনের উগ্রপন্থার জন্ম হয়।
কেউ কেউ বলেন এটার সাথে আই এস জড়িত নয় এটা দেশীয় জঙ্গির কাজ।
তবে সব চেয়ে বাস্তব মনে হয় এটা , যখন আপনারা বলেন যে, যারা হত্যাকাণ্ডের স্বীকার তারা ইসলাম বিরোধী কিছু লিখে বা প্রকাশ করে কারো অনুভূতিতে আঘাত দিয়েছে কিনা ? যদি আরও বাস্তব সন্মত হতো যদি আপনারা প্রশ্ন রাখতেন তারা বিধর্মী ,ধর্মত্যাগী , পুরোহিত, সাধু, পীর , শিক্ষক , সেতারবাদক, সমকামী বা সমকামী এবং হিজড়াদের অধিকার নিয়ে কাজ করে কিনা ? যদি করে থাকে তা হলে মুমিনদের অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার কারনে তাঁরা হত্যার স্বীকার হতে পারেন।
আপনারা হত্যাকারীদের কে জঙ্গি বলেন কেন ? যে সমস্ত হত্যাকাণ্ড ঘটছে ইসলামের পবিত্র কেতাব কোরআন এবং হাদিস অনুযায়ী প্রতিটি হত্যাই জায়েজ । আপনারা কি মনে করেন যারা এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত তাঁরা নাস্তিক ?
শুধু শুধু ইয়াহূদী নাসারারাদের দোষ না দিয়ে যদি সত্যি সত্যি হত্যাকাণ্ড বন্ধ করতে চান তা হলে পত্রিকা, রেডিও , টেলিভিশনেঃ
যে কারনে গুপ্ত হত্যা হচ্ছে সেই কারন গুলো হত্যার শিকার লোক গুলো যেন না করেন তার প্রচার কারুন ।
কেননা গুপ্ত হত্যাকারী পবিত্র কেতাবের নির্দেশ অনুযায়ীই তাঁদের কাজ করছেন ।
কেতাবের নির্দেশ তো আর পরিবর্তন করা যাবে না ।
প্রায় সবাই না জেনেই এবং মডারটদের উস্কানিতে কাজ গুলো করছে এবং হত্যার শিকার হচ্ছে ।
তাই হত্যাকাণ্ড কে ইয়াহূদী নাসারারাদের কাজ না বলে পবিএ কেতাবের সূএ সহ প্রচারনা চালানো হোক যে কি কাজ করলে কেতাব অনুযায়ী কি শাস্তি ভোগ করতে হবে ।
দেখবেন হত্যা অনেক কমে যাবে ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

80 − 79 =