জাকির নায়েকের ডিম্বতত্ব: পাবলিক ভোদাই বানানোর সহজ তরিকা

জাকির নায়েক ইসলামের আধুনিক বৈজ্ঞানিক ব্যখ্যাকার। দুনিয়ার সকল বিজ্ঞানের তত্ত্ব যে কোরান হাদিসে আছে , সেটা তিনিই সর্বপ্রথম ব্যাপকভাবে আবিস্কার করে , তা সকল রকম মিডিয়ার মাধ্যমে দুনিয়া ব্যাপী প্রচার করছেন আর আমরা আম জনতা ধর্মপ্রান মুমিনেরা ভোদাই হয়ে যাচ্ছি। তার অভ্রান্ত যুক্তি দেখে আমরা সবাই শুধু ভোদাই ই হচ্ছি না , একই সাথে ছাগলের তিন নম্বর বাচ্চার মত লাফালাফি করছি। এধরনের একটা তত্ব জাকির নায়েক আবিস্কার করেছেন , যাকে বলা হয় ডিম্ব তত্ব।

কোরানের নিচের আয়াতটার মধ্যে জাকির নায়েক ডিম্বের সন্ধান পেয়েছেন —-

সুরা নাজিয়াত- ৭৯: ৩০: পৃথিবীকে এর পরে বিস্তৃত করেছেন
সূত্র :http://www.quraanshareef.org

জাকির নায়েক এই আয়াতটাকে নিজের মত করে অনুবাদ করে বলেছেন –

” পৃথিবীকে এর পরে উট পাখির ডিম্বের মত বানিয়েছেন “

অর্থাৎ পৃথিবীর আকৃতি হলো উট পাখির ডিমের মত। সুতরাং জানা গেল পৃথিবী আসলে কমলা লেবু বা আপেলের আকৃতির মত না , বরং তা উট পাখির ডিমের মত। সুতরাং বিজ্ঞানীরা যেটা বলেছে , সেটা ভুল। কিন্তু মুস্কিল হচ্ছে , বিজ্ঞানীরা যেটা বলেছেন , জাকির নায়েক সেটাই তার কোরানের মধ্যে আবিস্কার করার চেষ্টা করছেন। কিন্তু জাকির নায়েক কি নিজেই এই আবিস্কার করেছেন ? না তিনি করেন নি। তিনি আসলে তার অনুবাদটা একজনের কাছ থেকে ধার করেছেন , তার নাম রাশাদ খলিফা, যিনি একজন আমেরিকা প্রবাসী মিশরিয় , নিজেকে বিংশ শতাব্দীর নবী দাবি করেছিলেন। এ জন্যে সহিহ মুমিনেরা তাকে তার বাড়ীর সামনে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা করে। তার সম্পর্কে জানতে হবে এখানে – https://en.wikipedia.org/wiki/Rashad_Khalifa

রাশাদ খলিফা তার কোরানে যে অনুবাদ করেছেন সেটা হলো –

[79:30] He made the earth egg-shaped.*

ফুটনোটে লিখেছেন – *79:30 The Arabic word “dahhaahaa” is derived from “Dahhyah” which means “egg.”

এই কোরান পাওয়া যাবে এখানে – http://masjidtucson.org/quran/frames/

কিন্তু দুনিয়ার তাবৎ ইসলামী পন্ডিত যাদের অনেকেরই মাতৃভাষা ছিল আরবী তাদের অনুবাদে কোথাও উটের ডিমের সন্ধান পাওয়া গেল না , যেমন –

Sahih International: And after that He spread the earth.

Muhsin Khan:And after that He spread the earth;

Pickthall:And after that He spread the earth,

Yusuf Ali:And the earth, moreover, hath He extended (to a wide expanse);

Shakir:And the earth, He expanded it after that.

Dr. Ghali:And the earth, after that He flattened it (for life).

সুত্র : http://legacy.quran.com/79

79: 30. And the earth after that He spread.

সূত্র: http://www.clearquran.com/079.html

79: 30: 30. And after that He spread the earth;

সূত্র: http://www.noblequran.com/translation/

এই সব বিখ্যাত কোন অনুবাদেও ডিম্বের কোন সন্ধান পাওয়া গেল না। কেউই কোরানের মধ্যে ডিম্ব আবিস্কার করতে পারে নি। কিন্তু জাকির নায়েক ডিম্বের সন্ধান পেয়েছেন আর সেটা পেয়েছেন রাশাদ খলিফা নামক এক ভুয়া নবী দাবীকারীর অনুবাদে। রাশাদ খলিফা নিজে ভুয়া নবি হওয়াতে তার কোন গ্রহনযোগ্যতা জাকিরের কাছে নেই কিন্তু তার কোরান অনুবাদের গুরুত্ব জাকির নায়েকের কাছে অপরিসীম।

সুতরাং দেখা যাচ্ছে , জাকির নায়েকের কাছে একজন ভুয়া নবীর কোরানের অনুবাদ সঠিক , আর দুনিয়ার তাবৎ ইসলামী পন্ডিতদের অনুবাদ ভুয়া। তার মানে বস্তুত: রাশাদ খলিফা নামক ভুয়া নবীই হলো ইসলামের আসল বোঝনেআলা, বাকীরা কেউ কোরান বুঝতে পারে নি। কিন্তু তাতে আমাদের কিছুই যায় আসে না। কোরানকে বিজ্ঞানের সাথে মিলাতে গেলে কোরানের মধ্যে উট পাখির ডিম্ব আবিস্কার করতেই হবে যে কোন ভাবে হোক। আর আমরা আম জনতাও সেটা চাই। কারন আমরা সবাই জেনে শুনে বুঝেই ভোদাই হতে চাই, তাতেই শান্তি। ভোদাই হয়ে থাকার চাইতে শান্তি কি আর আছে দুনিয়ায় ?

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on “জাকির নায়েকের ডিম্বতত্ব: পাবলিক ভোদাই বানানোর সহজ তরিকা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 1 = 3