মডারেট মুসলমান এবং মুফতি নীল নিমো হুজুর

আমার মুরিদের মধ্যে কয়েজন জ্ঞানি আছেন। তেমনি একজন আজকে প্রশ্ন করল:
“হুজুর, নাতিশীতোষ্ণ বা মডারেট মুসলমান মানে কি?”

প্রম্ন শুনে আমি একটু চমকে গেলাম। এইরকম প্রশ্ন আমি আসা করি নাই। যাই হোক, আমি উত্তর দিলাম:
“মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করা, কাপুরুষ-মেরুদন্ডহীন-নাস্তিকদেরকে মডারেট মুসলমান বলা হয়ে থাকে।”

আমার উত্তর শুনে, মুরিদ টাকসি খাইয়া বলল:
“আস্তাগফিরুল্লাহ, হুজুর এইটা কি বল্লেন?”

আমি উত্তর দিলাম:
“অপ্রিয় হলেও কথাটা কিন্তু সত্যি। মডারেট মুসলমানদেরকে, মুনাফিক-নাস্তিক বলেও ডাকা যেতে পারে। এরা যেমন মুসলমানদের জন্য বিপদজনক, ঠিক তেমনি নাস্তিকদের জন্য বিপদজনক।”

মুরিদ বল্ল:
“হুজুর একটু খোলাসা করে বলেন।”

আমি উত্তর দিলাম:
“একজন মডারেট মুসলমান হল ভন্ড সুবিধাবাদি মুসলমান। সে একই সাথে অনেক কিছু চায়। যেমন:

১) ইসলাম শান্তির ধর্ম জেনেও সে নিজের মুসলিম দেশে থাকতে চায় না। সে সাত সমুদ্র তের নদী সাঁতরিয়ে আমেরিকা-ইউরোপে চলে যেতে চায়। কিন্তু আমেরিকা-ইউরোপে গিয়েও সে ইসলামিক আইন চায়।

২) সে শান্তি চায়, আবার জিহাদি ইসলামও চায়।

৩) সে পিজ্জাহাটের পিজ্জা-কোকাকলা খেয়ে ভুড়ি মোটা করে । তারপর আমেরিকান ল্যাপটপ ব্যাবহার করে নাস্তিক জুকার-বাগের ফেইজবুকে গিয়ে ‘নাস্তিক-ইহুদি-খ্রিষ্টানদের ফাসি চাই’ বলে স্টাটাস দেয়।

৪) সে আমেরিকাকে চরম ঘ্রিনা করে, কিন্তু কোন কিছু কেনার সময় মেইড-ইন-আমেরিকা বা ইই.উ দেখে কেনতে চরম ভালবাসে। মেইড-ইন ইরাক, আফগানিস্থান কিংবা মিডল ইস্ট লিখা দেখলে ভুলেও সে দিকে যায় না।

৫) সে বিজ্ঞানের জিওগ্রাফি বইতে পড়ে পৃথীবি জিওস্ফেরিকাল, আবার কোরান পড়ে বিশ্বাস করে পৃথীবি সমতল। সে দুইটাই বিশ্বাস করতে ভালবাসে।

৬) সে বিজ্ঞানের বায়োলজির বইতে পড়ে পুরুষ এবং মহিলার পাজরের হাড়ের (রিব) সংখ্যা সমান। একই সাথে সে বিশ্বাস করে, আদমের একটা রিব কেটে নিয়ে হাওয়াকে বানানো হয়েছিল।

৭) সে চরম আধুনিক, ভুত-প্রেত্নি, কুসংস্কারে একদম বিশ্বাষ করে না। তবে সে জীনে বিশ্বাষ করে।

৮) সে ইংরেজি চায়, আই.ইল.টি.এস চায়, আবার মাদ্রাসাও চায়।

৯) সে নারী চায়, নারীর সাথে ডেট করতে চায়, পাশাপাশি বুরখা-হেজাবও চায়।

১০) সুদ চায়, স্টক মার্কেটের শেয়ার চায়, আবার সুদ মুক্ত ইসলামিক ব্যাংকিং চায়।

১১) ঘুষ চায়, হজ্ব চায়।

১২) গীতবিতান, আমপারা, কোরান শরীফ, হারমোনিয়াম সবই তার ড্রইংরুমে চায়।

১৩) তরুণী-মুখো পাখাওয়ালা বোরাক, কাবাঘর, তীরবিদ্ধ দুলদুল, শাহরুখ, মাধুরী, সালমান শাহ সব ছবিরই তার কাছে সমান কদর।

১৪) মক্কা চায়, হলিউড চায়, আবার মুম্বাইও চায়।

১৫) পিস টিভি চায়, স্টার প্লাস চায়, প্লেবয় টিভি চায়, এইচবিও-ও চায়।

১৬) সে আলকায়দা, ইসলামি স্টেটকে বাহবা দেয়, খালিফা বুগদাদিকে বাঘের বাচ্চা বলে, তবে মেয়ের জন্য পাত্র খোঁজে আমেরিকান গ্রীনকার্ডধারী।

১৭) ফেইজ-বুকে “দেশি মডেল” “হটি জোকস” পেইজে লাইক দেয় আবার “নামাজ কায়েম কর” পেইজেও লাইক দেয়।

১৮) সে মিয়া-খালিফা, সানি-লিয়ন, তেতুল হুজুর এবং মুহাম্মদকে (স:) সমপরিমানে ভালবাসে।”

আমার উত্তর শুনে মুরিদ কেমন জানি চুপসাইয়া গেল। মনে হলো, তার সাথে কিছু জিনিষ কমন পড়ে গেছে। মুরিদ ভাইরা আমার, মন খারাপ করবেন না। কারন আমাদের মাননীয়া প্রধানমন্ত্রী, বাংলাদেশকে “মডারেট মুসলমান দেশ” বলে ইতিমধ্যেই ঘোষনা করেছেন।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 7 = 2