আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে জামায়াতের ডাকা হরতাল অযোক্তিক

মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ (পুনর্বিবেচনা) আবেদন খারিজ করে দিয়েছে উচ্চ আদালত। ফলে তার মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকল। এজন্য রোববার, ১৫ মে ২০১৬ সকাল ৬টা থেকে সোমবার ভোর ৬টা পর্যন্ত হরতাল ডেকেছে জামায়াত। রায়ের কিছুক্ষন পরেই সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে কেউ সংক্ষুব্ধ হলে তার আইন অনুযায়ী প্রতিকার হচ্ছে সেই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপীল করা বা রিভিউ করা। এই রায়ের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে নিজামীর আইনজীবী খন্দকার মাহবুবুর রহমান এই রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ বা পুনর্বিবেচনার আবেদন করেছিলেন।

উল্লখ্যে, আজ বৃহস্পতিবার, ৫মে ২০১৬ বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ বেলা সাড়ে ১১টায় জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ আবেদন খারিজ করে রায় ঘোষণা করেন।

আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে জামায়াতের ডাকা হরতাল মুজাহিদের রায়ের উপর কোন প্রভাব ফেলতে পারবে না। হরতাল করে তারা নিজামীর সাজা কমাতে বা তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের দায় থেকে মুক্ত করতে পারবেন না।

আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে জামায়াতের ডাকা এই হরতাল অযোক্তিক, অস্বাভাবিক এবং এই হরতাল সাধারন মানুষ সমর্থন করবে না। এই হরতাল শুধুমাত্র দেশের সাধারন মানুষের ক্ষতি বয়ে আনবে। তারা যদি হরতাল করেই তাদের দলের যুদ্ধাপরাধী, মানবতাবিরোধি অপরাধী নিজামীকে মুক্ত করতে বা সাজা কমাতে পারেন তবে উচ্চ আদালতে রিভিউ করার কি দরকার ছিল?

যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতা করতে গিয়ে মানবতাবিরোধী অপরাধ করেছেন, হত্যা, ধর্ষণ, অগ্নি সংযোগ, লুটপাট করেছেন, যে অপরাধের কারণে তাদের বিচার হচ্ছে, তারাই আবার আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হরতাল ডেকে দেশের মানুষকে বেকায়দায় ফেলছেন, দেশের মধ্যে নৈরাজ্য সৃষ্টি করার চেষ্টা করছেন, রাষ্ট্রীয় অর্থ ও সম্পদ নষ্ট করছেন। একমাত্র তাদের সৃষ্ট, তাদের দ্বারা বিপথে পরিচালিত কিছু মানুষ ছাড়া জামায়াতের এই হরতাল কেউই সমর্থন করবে না।

এদেশে জামায়াত নামক ধর্ম ব্যবসায়ীদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক বিএনপি পর্যন্ত নিজামীর রায় নিয়ে প্রকাশ্যে কোন কিছু বলেনি, বা তাদের এই হরতাল সম্পর্কে বিএনপি আজ পর্যন্ত প্রকাশ্যে কিছু বলছে না।

আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হরতাল কোন প্রভাব ফেলতে পারবে না, বা কোন সমাধান আনবে না, বরং জামায়াতের উচিত অতীত থেকে শিক্ষা নিয়ে সকল নৈরাজ্যজনক কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকা।

খোরশেদ আলম, লেখক ও গবেষক

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৪ thoughts on “আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে জামায়াতের ডাকা হরতাল অযোক্তিক

  1. আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হরতাল
    আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হরতাল কি করবে। অপরাধী তারা, শাস্তি পাবেই। এটাই স্বাভাবিক।

    1. আদালতে নিজেদের প্রমাণ করার
      আদালতে নিজেদের প্রমাণ করার বহু সুযোগ তারা পেয়েছে। এতো সুযোগ পৃথিবীর অন্য কোন আদালতে দেয়া হয়নি। আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হরতাল দিয়ে জনজীবন বিপর্যস্ত করা যে বড়ই অযোক্তিক। @ মাইনুল এহসান

  2. তারা দেশবিরোধী, বর্বর এবং
    তারা দেশবিরোধী, বর্বর এবং ব্রেইনলেস বলেই আদালতের চূড়ান্ত রায়ের বিরুদ্ধে হরতাল ডাকে। আফসোস।।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

58 − = 51