অনুভুতি,বিশ্বাস,সুখ,কষ্ট ওকান্না

ভাবা হয় নি কখনো অনুভুতি নিয়ে !!!অনুভূতিগুলোর কি কোনো অনুভুতি আছে? না দেখা এই অনুভব গুলো অক্সিজেনের মতই। এটাই আমাদের আলাদা করে দিয়েছে চার পা চালিত শুয়োর থেকে।সেই অনুভূতি নিয়ে ভাবার সময় হয় না আমার। ভাবি তার অনুভব নিয়ে।আচ্ছা বিশ্বাসের কি বিশ্বাসভাঙ্গে না নিজের প্রতি? যার ফাটলে মাথার নিচের তুলা ভিজে পচে গেছে বালিকার আর বালক ধুঁয়া ফুকুতে ফুকুতে ঝুলে পড়লো কড়ই গাছে। তাঁতে কি তারপৃথিবী একত্রে ধরে রাখাতো
বিশ্বাস অবিশ্বাসে রুপ নেয় না ? হ্যাঁ নেয়। একবার না হাজারবার না। তোমার আমার থেকে বেশি নেয়|
সুখের তো সব সময় সুখী হতে দেখি না। টাকার চাপে দুমড়ে পড়া সুখটাও ভাবে ইশ শ শ যদি এই টাই পড়া
লোকটার পকেট থেকে পালিয়ে পার্কের গার্ডের একটু বুক কাঁপিয়ে দিতে পারতাম সুখে
আহা! তাহলে কি সুখীই না হতাম নিজে। কেউ আমাকে সুখী করো বলে চিৎকার করে মরে সুখ।
তবে কষ্টের কষ্টটা অন্য রকম। সত্যি কষ্টেরা অনেক কষ্টে আছে। তারা একদম ফুরিয়ে যেতে চায়।তাদের অস্তিত্ব তাদের কাছেইবিধাতার হেঁয়ালিপনা। জনেজনে ঘুরে কষ্ট দেয়ার কষ্টরাই কষ্টে বেশী আছে। আর সর্ব শেষ কান্নার কথা বলি। উফফফফ !!! কান্নার থেকে বেশী কান্না আর কেউ করে না। সব অনুভুতির মধ্যে কান্নার কান্না করার কারণ বেশী সব থেকে। কান্নায় সব অনুভুতি প্রকাশ পায়। কান্নাটাআর সব অনুভবের ভার নিতে
পারে না। এত্তো সুখ কষ্ট হাসিরসাক্ষী হতে হতে কান্না আর বইতে পারে নাহ। আমরা যতটুক
না কাঁদি তার থেকে কান্নার কান্না বেশী। সে সব অনুভবকে আগলে রেখে কেঁদেই চলেছেl

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

1 + 9 =