প্রেম পত্র-৫১

আদরিনী
তোমার ছবি দেখলেই আমার কিছু একটা হয়।কেমনজানি, অন্যরকম ভালোলাগার অনুভুতি আমাকে গ্রাস করে রাখে পুরো সময়,কখনও তোমার নুপূরের আওয়াজ পাই,আবার কখনো মনে হয় হৃদস্পন্দন ছাড়াই আমি বেঁচে আছি শুধু তোমার জন্য।,হয়তো সেটা তীব্র আবেগ আর ভালোবাসার! তাই তোমার ছবিতেও চোখে কখনো বেশিক্ষণ চোখ রাখতে পারি না।তোমার চোখের মায়ায় নিজেকে পরাজিত করে ফেলি আমি।
তবুও চুপি চুপি তোমাকে দেখার লোভ আমি কখনোই সামলাতে পারি না।তুমি হয়তো ভাবছো আমি হয়তো পাগল হয়ে গেছি…..হ্যা, তোমার জন্যে আমি পাগল হয়ে গেছি।রোমিও -জুলিয়েট,কিংবা শিরি ফরহাদের মতো নয়,আমি তোমাকে ভালোবাসতে চাই আমার মতো করে।একান্ত নিজের করে রাখতে চাই।সৃষ্টি করতে চাই তোমার আমার অমর প্রেমকাহিনী।
আমার খুব বলতে ইচ্ছে করে, পাগলী তোমায় বলি ডেকে, শুভ সকাল।কোন এক মিষ্টি সকালে ভিষণ চাইছে পেতে মন শুধু তোমাকে,হাতটা বাড়িয়ে তুমি দাওনা প্রিয় একটু আদরে নাও জড়িয়ে তুমি শুধু এই আমাকে ৷গত সকালে দেখেছি স্বপ্ন বসেছিলে তুমি আমার পাশে,লাল শাড়ীতে মিষ্টি হাসিতে চুপটি করে ভালোবাসি বলেছি তোমায়৷চোঁখের পলকে অভিমান আমার অপেক্ষাতে থাকি রোজ সকালে,তোমার হাসিতে তোমার চিন্তায় অনেক প্রহর কেটে যায় আমার তোমায় ডাকবো আমি পাগলী বলে।
পেছন থেকে জাপটে ধরার মানে জানো?আমি প্রচন্ড আদর চাই।তোমার ভালবাসার তাপে চোখের সামনে আমি আইস্ক্রিমের মত গলে যেতে চাই।জড়িয়ে ধরে হৃদয়ের স্পন্দন শোনার মানে জানো?আমি তোমায় স্বর্গ দেখিয়ে দিতে চাই ।দুহাত দিয়ে গাল টিপে দেয়া আর নাকে নাক ঘসে দেয়ার মানে জানো?মানে হচ্ছে আমি আস্ত পাগল একটা। তোমার ভালবাসার বরপূত্র।কোমড়ের ওপর পিঠের ঠিক নিচে একদম মেরুদন্ড বরা বর জড়িয়ে উচু করে আঁকাশে তুলে ফেলা কি বলে জানো?আমি তোমার রাজা হতে চাই এ রাজ্যে শুধু তুমি আমার,আর যদি আমাকে ভালবেসে খুন করতে চাও তাহলে, মুখো মুখি সামনে এসে দাঁড়াও।এবার হাতে রাখো হাত…কপালে কপাল লাগিয়ে একটু মিষ্টি হেসে আমাকেও বলে দিও ভালবাসি।সারাটা দিন রাত তোমার ভালবাসার জন্য তৃষ্ণার্ত এ হৃদয়। সব কিছু করবো খর্ব. সগর্বে তোমার কপালের ওপর ঠিক দুই ভুরুর মাঝে ঠোট লাগিয়ে পড়ে থাকব অনন্তকাল। মাথা তুলে আমি দেখব জলে ভরা এক জোড়া মায়াবী চোখ।কি পরম আদরে তাকিয়ে আছে আমার দিকে।অনেক ভালোবাসী তোমাকে,এই চুমুর দিব্যি…
ইতি
একান্তর

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

71 − = 62