।। বৃষ্টি ভেজা মেয়েটি এবং কল্পনায় ভালোবাসা ।। পর্ব -১

ঘটনার শুরু এক বৃষ্টি ভেজা রাতে । গরমকাল !তেমন একটা বৃষ্টি হয়না , অনেক কম পরে । তাই ঘুম থেকে উঠে যখন মেঘলা আকাশ দেখলাম, প্রথম চিন্তাতেই বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিলাম । অফিস শেষে বাসায় যাওয়ার জন্য রউনা দিলাম । অফিস থেকে আমার বাসা বেশি দূরে না , তাই হেটেই রওনা দিলাম । কিছুদুর গিয়ে বড় রাস্তায় আসার পর যা না হওয়ার তা হল । বলা নেই কওয়া নেই হঠাত ঝুম বৃষ্টি ! ঝেড়ে দৌড় দিলাম মাথার উপরে কোনও ছাঁদ পাওয়ার আশায় । এবং পেয়ে গেলামও । একটি বন্ধ টিন শেডের দোকান , অবাক হলাম আমার সাথে আর কোনও আশ্রয় প্রার্থী নেই দেখে , খুব সম্ভব সকাল বেলা দেখেই হয়তো , বেপারটা নিয়ে আর মাথা ঘামালাম না । অপেক্ষা করতে লাগলাম কখন ঝুম বৃষ্টির অবসান হবে ।
দাঁড়িয়ে থাকতে থাকতে তন্দ্রা মতো এসে গিয়েছিলো ,অকস্মাৎ আমার পাশে কারো অস্তিত্ব অনুভব করলাম । চোখ মেলে দেখি একটা মেয়ে দাঁড়িয়ে আছে । হয়তো আমার সমবয়সী । বৃষ্টির কারণে হয়তো মাথার চুল ভিজে আছে মেয়েটির । আমাকে চোখ মেলতে দেখে একটু হাসি ফুটে উঠল যেন তার ঠোঁটে ।
” ভাইয়া আমার মোবাইলটা বৃষ্টি তে ভিজে কাজ করছেনা , আপনার মোবাইলটা একটু নিতে পারি ? ” বলে উঠল মেয়েটা ।

আমি কোনও কথা না বলে আমার মোবাইলটা এগিয়ে দিলাম । মেয়েটি খুব সম্ভব তার বাসায় ফোন দিয়েছে । আরেকজনের কথায় আড়ি পাতার অভ্যাস আমার কখনই ছিলনা , তাই মেয়েটির ফোন আলাপ শোনার আগ্রহ হারিয়ে ফেললাম । কথা শেষ করে মেয়েটি ফোন ফিরিয়ে দিয়ে বলল-
” আর বলবেন না ভাইয়া , কিভাবে যে বৃষ্টি শুরু হল বুঝলাম না , বলা নেই কওয়া নেই ! ”
আমি মৃদু হাসি দিলাম জবাবে । সুন্দরী মেয়ে দেখলে কেনও জানি আমার গলা শুকিয়ে যায় , গলা দিয়ে কথা বের হয়না ।

” এই যে দেখুন , আপনার কাছ থেকে সাহায্য নিলাম , অথচ আপনার নামটাই জানা হলনা । আমার নাম ”আরিশা” । আপনার নাম? ” মেয়েটি হাত বারিয়ে দিল হ্যান্ডশেক করার জন্য ।

” আমি ”ইফতি” । ” কোনমতে হাতটা ধরে একটু ঝাঁকিয়ে ছেড়ে দিলাম । জীবনে প্রথম কোনও অপরিচিত মেয়ের সাথে হাত মিলালাম , এই চিন্তাটি আমার সব বুদ্ধি বিবেচনা ঘোলা করে দিল ।
” ভাইয়া বোধহয় কথা কম বলেন । ” মেয়েটির ঠোঁটে হাসি যেন লেগেই আছে । ” না মানে , আসলে আমি একটু চিন্তিত ছিলাম … ” আমি আমতা আমতা করতে লাগলাম ।

” সর্বনাশ , ৯ টা বেজে গেছে ! বৃষ্টিও ধরে এসেছে, আসি ভাইয়া, সাহায্যের জন্য ধন্যবাদ ! ” বলেই মেয়েটা চলে গেল ।

আমি তার গমনপথের দিকে অবাক হয়ে চেয়ে রইলাম ।

সারারাত কাটলো অদ্ভুত এক অস্থিরতার মাঝে । মেয়েটার চিন্তা কিছুতেই মাথা থেকে ফেলতে পারলাম না । কি যেন নাম বলেছিল মেয়েটা? ও আরিশা ! কি চমৎকার নাম , আর তার কথা বলার ধরন মনে পরে গেল , কি সহজেই মেয়েটা অপরিচিত কাউকে আপন করে নেয় । রাত গেল মেয়েটির ভাবনায় । রাতে খাওয়া শেষে ভাবতে বসলাম , কিভাবে তার সাথে যোগাযোগ করা যায় , মনে পরল , সে আমার মোবাইল দিয়ে কাউকে ফোন দিয়েছিল । পরদিন সকালে , মোবাইল তুলে নিয়ে সাহস করে সেই অপরিচিত নাম্বারে ফোন করলাম । ও পাশ থেকে একজন ভদ্রলোকের কণ্ঠ ভেসে এলো – ” হ্যালো ”

” আঙ্কেল তুলি আছে ? ” আমার সাহস ইতোমধ্যে অর্ধেক হয়ে গিয়েছে ।

” তুমি কে বলছ বাবা? ”

” আমার নাম ইফতি , আরিশা আমাকে চিনবে । ”

” একটু লাইন এ থাকো । ”

আমি স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেললাম । ভেতরের ভয় অনেকটাই কেটে গেছে ।

” হ্যালো , ইফতি ভাইয়া ? ” আরিশার গলার আওয়াজ শুনেই আমার গলা আবার শুকিয়ে গেল । কিন্তু কিছু একটা তো বলতেই হয় –

” আরিশা , কেমন আছ ? ”

” জি ভাইয়া এইতো ! আপনি ? ”

” আমিও ভালো , আসলে গতকাল তোমার সাথে ভালোভাবে কথা বলতে পারিনি , একটা কাজের চিন্তা ছিল তো… ”

” এরকম হয় ভাইয়া , তারপর আমি তার ফেসবুক আইডি টা চেয়ে নিলাম, এড করার জন্য , আরিশা বল্লো তার আইডি নাম ।
তারপর তড়িঘরি করে বল্লো , আচ্ছা ভাইয়া আজকে রাখি , বাবার ফোন তো , আরেকদিন কথা হবে । ”

আচ্ছা ” তোমার নাম্বারটা নেয়া হলনা যে । ” আমি মনে করিয়ে দিলাম , হারানো সাহস অনেকটা ফিরে পেয়েছি ।

” একদম ভুলে গেছি ভাইয়া , লিখেন , ০১৬৭১… “, আমি দ্রুত তার নাম্বার লিখে নিলাম । সেদিনের মতো আমার অস্থিরতা কমল । যদিও আমি জানি , মেয়েটি আমার বৃষ্টি ভেজা কল্পনা ছাড়া আর কিছুই নয় ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৪ thoughts on “।। বৃষ্টি ভেজা মেয়েটি এবং কল্পনায় ভালোবাসা ।। পর্ব -১

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

5 + = 7