ঈশ্বর কোথাও নাই

আমি মুখ্যু-সুখ্যু নাস্তিক হুজুর, কিছুই মানি না।
ধর্ম কর্মের রঙ তামাশা কিছুই বুঝিনা।
ব্যভিচার যিনি হারাম বলে, তার কোলেতে দাশী,
নারী দেখলেই শফি বলে, তেতুল! তোমায় ভালবাসি।
আমি একাই হুজুর বাকিরা খেজুর, এই নিয়ে ঝগড়াঝাটি,
আসলে সবাই ধর্মের দালাল, কেউই নয় যে খাঁটি!
প্রানের ভয়ে হিন্দু পালায় নিয়ে ঘটিবাটি,
মুরিদেরা গাজা টানে, পীরের মাজার ঘাটি।
ধার্মিকেরা সব হারামজাদা, আস্ত বদের ধাড়ি,
তাহাজ্জতের অজুহাতে, ঘুমায় বেশ্যার বাড়ি।
বাড়ি গিয়ে হুজুর মিলাদ পড়ায়, দাওয়াতও খায় ভরপুর,
জিহাদিরা মানুষ মারে, লক্ষ্য তাদের হুর।
ধার্মিকেরাও শালা মাথা মোটা, নাচে মুর্খের দলে।
যাকাতের টাকায় অস্ত্র কিনে ছলে বলে কৌশলে।
সকল অয়াক্ত ভেস্তে দিয়ে খুদবা শুনে জুম্মার,
নাস্তিক পেলে চাপাতি চালায়, আল্লাহু আকবার।
এইখানেতে খান্ত গেলাম, আর বলার সাহস নাই,
ধর্ম কর্মের ভণ্ডামিতে ঈশ্বর কোথাও নাই।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

79 + = 84