ভালো থেকো প্রিয় বাংলাদেশ

জানি না কি হতে যাচ্ছে ! পুরো দেশে এমনিতেই রাজনৈতিক অস্তিরতা চরম পর্যায়ে। যুদ্ধপরাধীদের বিচার নিয়ে একটি রাজনৈতিক দল হয়ে উঠেছে অত্যন্ত সহিংস। প্রধান বিরোধী দল ক্ষমতার চিন্তায় আর কিছু নিয়ে ভাবার সময় পাচ্ছে না। সরকারী দল একঘুয়ে হয়ে আছে। তারা কারো কথা শুনতেই নারাজ। শাহবাগ আর হেফাজত নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে কাজ করছে দ্বিধাদ্বন্দ্ব।

এমন সময় ঘটল সাভার ট্র্যাজেডি। এমনিতেই কিছুদিন আগে ঘটে যাওয়া ফ্লাইওভার ধ্বস আর পোশাক কারখানার আগুনে শতাধিক প্রানহানির ঘটনায় মানুষের মধ্যে চাপা ক্ষোভ রয়ে গেছে। তার রেশ কাটতে না কাটতেই আবার এ ধরনের বিপুল প্রাণহানি মেনে নেওয়া ভীষণ কঠিন । সরকারী বিভিন্ন সংগঠনের পাশাপাশি আমজনতার বিপুল অংশগ্রহন সত্যিই অতুলনীয়। মানুষের জন্য মানুষের এমন ভালোবাসা হয়ত এত দুর্যোগ আর হানাহানির মধ্যে দেশকে টিকিয়ে রেখেছে। আর এক দিকে দেখা যাচ্ছে কিছু বিক্ষুব্ধ শ্রমিক রাস্তা অবরোধ করে আন্দোলন করছে। তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়া হিসেবে এই ধরনের ঘটনা বাংলাদেশে হরহামেশাই হয়ে থাকে। আমার আশংকা হচ্ছে এইসব সাধারণ শ্রমিকরা নিজেরাও জানেন না তারা কিভাবে নোংরা রাজনীতির শিকার হয়ে যেতে পারেন। তাদের মধ্যে হয়তোবা রাজনৈতিক দলের কর্মীরা প্রবেশ করে ব্যাপক ভাংচুর শুরু করবে । তাদের দেখে ক্ষুব্ধ শ্রমিকরাও ভাংচুরে অংশ নিবেন । পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ গুলি ছুড়বে। গুলিতে মারা যাবে কোন এক সাধারণ শ্রমিক ।সারাদেশে শুরু হয়ে যাবে শ্রমিক আন্দোলন। রাজনৈতিক স্বার্থে যোগ দিবে বিরোধী দল। শ্রমিক আন্দোলন হয়ে যাবে , সরকার পতনের আন্দোলন। আসল ঘটনা তখন কেও মনে রাখবে না ।একসময় বিরোধীদল ক্ষমতায় এসে সরকারী দল হয়ে যাবে। তাদের তখন মনে করতে খুব কষ্ট হবে সাভারে কি জানি একটা হয়েছিল …

মনে প্রানে প্রার্থনা করি যেন এমন কিছু না ঘটে । কিন্তু বাংলাদেশ বলেই এমন আশংকা উড়িয়ে দিতে পারছি না । এ দেশের ক্ষমতালোভী রাজনৈতিকরা ক্ষমতার জন্য সব করতে পারে। কোন মন্ত্রী কখনো ব্যর্থতার দায় নিয়ে পদত্যাগ করেন না। কোন তদন্ত কমিটিতে বিরোধী দলের কেও থাকে না। এ দেশে কি গনতন্র শুধু একটা শব্দ। রাজনীতি কি শুধু ক্ষমতায় যাওয়ার বা ক্ষমতায় ঠিকে থাকার লড়াই???

সব বিফল আস্ফালন শেষে একটাই প্রার্থনা, ভালো থেকো প্রিয় বাংলাদেশ ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২ thoughts on “ভালো থেকো প্রিয় বাংলাদেশ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

86 − = 79