বেঁচে থাকুক ভালোবাসা

আসলে কোন একসময় লিখেছিলাম ভালবাসার সংজ্ঞা,যেটা ছিল অনেকটা এমন-
“ছোটো ছোটো অনুভুতি ছোটো ছোটো আশা কাছে পেলে ভালো লাগে না পেলে ব্যাথা ভালবাসা।মানুষের একটু জ্বালা সয়া ভালবাসার মানুষের একটু হাতের ছোঁয়া মনের আয়নায় সর্বদা তার ছবি সে তোমার কবিতা হলে তুমি তার কবি।”
অসলে অনেকেই তো অনেক রকম সংজ্ঞা দেয়,সমস্ত হাহাকার,ছারখার আর বরবাদে এবং সবকিছু নতুন করে সৃষ্টিতে কেউ যদি মিশে না থাকে তবে বলে ভালবাসা হয় না।আমারও তাই মনে হয়।
আবার এমন টাও হতে পারে”তুমি তো এমনই একজন শত সাধনায় না পেয়েও যারে,খুঁজে ফেরে এই মন”
তবে যদি বাস্তবে ভালবাসা বলে কিছু থাকে তার জন্য সাহস লাগে। তীব্র চাওয়া লাগে আর যে কোন অবস্থায় গ্রহন করার সাহস লাগে(উভয় ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য)।সারাজীবনের জন্য একজনকে দেখে বুকে ধ্বক করে না লেগে উল্টা প্রবল ভালোবাসায় আচ্ছন্ন হতে খুব হ্যাডম লাগে। এমন ভালবাসার উদাহরন আজ চোখের সামনে।
এনজিও কর্মী অলোক ভালোবেসেছিলেন লক্ষ্মীকে অনির্বচনীয় সে ভালোবাসায় এসিডে ঝলসে যাওয়া লক্ষ্মীর পোড়া চেহারা একটুও বাধা হতে পারেনি।
অলোক আর লক্ষ্মীর জন্য এক সমুদ্র ভালোবাসা… ভালো থাকুক ওরা, যে অনির্বচনীয় ভালোবাসার বাঁধনে বাঁধা পড়েছে ওরা, সে ভালোবাসা ঘিরে থাকুক ওদের অনাদি অনন্তকাল।
#”অলোক আর লক্ষ্মী” আপনারা ভালো থাকুন।বেঁচে থাকুক ভালোবাসা ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 1 = 1