আলী বাবা ও ৪০ চোর

আলী বাবা আর ৪০ চোরের কাহিনী আমরা সবাই জানি। নতুনভাবে সেই গল্পটা আবার পড়া যাক।

আলীবাবা নামে একজন গরীব লোক ছিল। সে একদিন সাইবার ক্যাফেতে গেলো। তো সেখানে উপস্থিত ছিল ডাকাতদলের সর্দার। সে ফেসবুকে লগিন করছিল। আলীবাবা পাশে দাঁড়িয়ে থাকায় পাসওয়ার্ড দেখে ফেলল । ডাকাতসর্দার ফেসবুক ব্রাউজ করে চলে গেলো। তখন আলীবাবা এসে লিংক এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে সে ডাকাতসর্দারের ফেসবুকে লগইন করলো। ঢুকেই তার মাথা খারাপ অবস্থা। মিলিওন মিলিওন লাইকের পেজের এডমিন ডাকাত সর্দার । লোকের কাছ থেকে জোর জবরদস্তি করে এইসব পেজ ডাকাতি করেছে ওরা। আলীবাবা ভাবলো এর একটা পেজ ই তার ভাগ্যের চাকা ঘুরিয়ে দিতে পারে। সে একটা পেজ বাছাই করে নিজেকে তার এডমিন বানালো এবং এক্টিভিটি লগ থেকে তা মুছে দিলো। আর ডাকাত সর্দারের এডমিনশিপ বাতিল করে দিলো। এরপর সে খুশিমনে বাড়ি ফিরে এলো। এরপর পেজের লাইক বিক্রি করে সে বড়লোক হয়ে গেলো। তো তার এক ভাই ছিল সে ধনী হলেও লোভী ছিল। কিভাবে অবস্থার পরিবর্তন হলো জানতে চাইলে আলীবাবা তার ভাইকে সব খুলে বলে। তার ভাইয়ের মনে পেজ গুলো হাতানোর লোভ জাগে। তো সে আলীবাবার কাছ থেকে পাসওয়ার্ড জেনে সাইবার ক্যাফেতে যেয়ে লগইন করে কাজ করতে থাকে। আগের বার একটা পেজ হারানোর পর ডাকাতসর্দার সতর্ক হয়ে যায় সে মোবাইল নোটিফিকেশন অন করে রাখে। যখনি আলীবাবার ভাই ডাকাতসর্দারের আইডিতে লগইন করে তখনই ডাকাত সর্দারের ফোনে মেসেজ যায়। দলবল নিয়ে সাইবার ক্যাফেতে এসে আলীবাবার ভাইকে তারা হাতেনাতে ধরে। আলীবাবার ফেসবুক আইডি জেনে তারা আলীবাবার ভাইয়ের আইডি নষ্ট করে দেয়। এরপর তারা সবাই ফন্দী করে আলীবাবার আইডিতে একযোগে রিপোর্ট করতে থাকে। এতে আলীবাবার আইডি ফটো ভেরিফিকেশনে পড়ে। কিন্তু আলীবাবার কাজের মেয়ে মর্জিনা খুব বুদ্ধিমতি। সে ফটো ভেরিফিকেশন ঠিক করে ফেলে। এবং বাড়তি নিরাপত্তাস্বরূপ লগইন এপ্রোভাল অন করে রাখে। তারপর মর্জিনা ডাকাত সর্দারের ফ্রেন্ডলিস্ট থেকে সবগুলা ডাকাতের আইডি খুজে বের করে। তারপর সে ফেসবুকে লুতুপুতু মার্কা স্ট্যাটাস দেয় Guys D3 R h4rr4ss1ng m3 p1z r3p0r7. নিচে তাদের লিংক দিয়ে দেয়। (সে আবার ফেসবুক সেলিব্রিটি) পোলাপান আবেগে শতশত শেয়ার করে রিপোর্ট করে করে ডাকাতের দলের আইডি নষ্ট করে দেয়। এইভাবে মর্জিনার বুদ্ধিমত্তায় আলীবাবা রক্ষা পায়।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৪ thoughts on “আলী বাবা ও ৪০ চোর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 1 = 1