খৃষ্টান ধর্ম কি ?

অনেকেই আসলে জানে না খৃষ্টান ধর্ম কি , আর তারা কোন কিতাব অনুসরন করে। আর সেটা না জেনেই ধুমছে খৃষ্টান ধর্মের সমালোচনা করে। প্রায়ই দেখা যায়, ইসলামের নামে সন্ত্রাস ,হত্যা , ধর্ষন ইত্যাদিকে তুলে ধরলে , সাথে সাথে অনেকেই খৃষ্টান ধর্মও যে সন্ত্রাস, হত্যা , ধর্ষন ইত্যাদি সমর্থন করে , সেটা তুলে ধরে বাইবেল থেকে। আর বুঝাতে চায়, খৃষ্টান ধর্মও ইসলামের মতই একটা আগ্রাসী ধর্ম। কিন্তু বিষয়টা কি তাই ?

প্রথমেই বলে নেয়া উচিত – বাইবেল হলো পুরাতন ও নতুন নিয়মের সমাহার। পুরাতন নিয়মের মধ্যে তৌরাত কিতাব প্রধান , আর নুতন নিয়মের মধ্যে চারটি গসপেল যেমন – মথি, মার্ক , লুক ও যোহন প্রধান। খৃষ্টানরা এই গসপেলসহ নুতন নিয়মের অন্যান্য কিতাবকেই অনুসরন করে। তারা পুরাতন নিয়মকে অনুসরন করে না। তবে নুতন নিয়ম কিভাবে আসল, কেন যীশু দুনিয়াতে আগমন করলেন , সেটা বোঝার জন্যে পুরাতন নিয়মকেও খৃষ্টানরা অধ্যায়ন করে থাকে। অর্থাৎ পুরাতন নিয়ম যেমন তৌরাত কিতাব খৃষ্টানরা পাঠ করে থাকে শুধুমাত্র ধারাবাহিক নবীদের ঐতিহাসিক বর্ননা ও ঘটনাবলী জানার জন্যে। কিন্তু তৌরাত কিতাবে বর্নিত নানারকম হত্যা ,ধর্ষন ইত্যাদিকে তারা অনুসরন করে না। এটা অনেকটা বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইতিহাসকে জানতে গেলে আমরা যেমন সেই নবাবের আমল , বৃটিশ আমল ইত্যাদি আমলের ইতিহাসকে অধ্যয়ন করে থাকি, সেরকম একটা ব্যাপার। কিন্তু আমরা বাংলাদেশীরা শুধুই মুক্তিযুদ্ধের সময়কার আদর্শকে অনুসরন করি। খৃষ্টানরা ধর্মের বিবর্তন ও নানা ঘটনা জানার জন্যে পুরাতন নিয়ম যেমন তৌরাত অধ্যয়ন করে থাকে কিন্তু তারা যীশুর শিক্ষাকেই তাদের মূল শিক্ষা হিসাবে গ্রহন ও পালন করে থাকে।

আর ইহুদিরা যীশুকে ঈশ্বরের পূত্র বা তাদের ত্রানকর্তা হিসাবে মানে না , তারা তৌরাত কিতাবকেই অনুসরন করে থাকে।

সুতরাং প্রত্যেকের জানা উচিত , খৃষ্টান হলো তারাই যারা যীশুর শিক্ষাকে অনুসরন করে মাত্র। তাই পুরাতন নিয়মের তৌরাত কিতাবের নানা ঘটনা যেমন গনহত্যা , ধর্ষন ইত্যাদি উল্লেখ করে খৃষ্টান ধর্মের সমালোচনা করা হলো অজ্ঞতার নামান্তর। কিন্তু সাধারন মানুষ যেমন ধর্মের কিতাব এত অধ্যয়ন করে না , তাই , এভাবে তৌরাত কিতাব থেকে উদ্ধৃতি দিয়ে মানুষকে সহজেই বোকা বানান যায়। আর যারা এভাবে অন্যদের অজ্ঞতাকে পুজি করে তাদেরকে বোকা বানায়, তারা আর যাই হোক , সৎ মানুষ না।

দু:খের সাথে বলতে হবে , জাকির নায়েককে যখন কোরান বা হাদিস থেকে উদ্ধৃতি দিয়ে প্রশ্ন করা হয় জিহাদ সম্পর্কে, জিজ্ঞেস করা হয় ইসলাম ত্যাগের শাস্তি সম্পর্কে , তখন সাথে সাথেই জাকির নায়েককে দেখা যায়, তৌরাত কিতাব থেকে উদ্ধৃতি দিয়ে প্রমান করতে যে খৃষ্টান ধর্মেও এরকম জিহাদ আছে। বলা বাহুল্য, এটা হলো মানুষের অজ্ঞতাকে পুজি করে প্রতারনা করা।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৩ thoughts on “খৃষ্টান ধর্ম কি ?

    1. ঈশ্বর চাইলে তার পূত্র হতে
      ঈশ্বর চাইলে তার পূত্র হতে পারে না কিভাবে ? কোরান বলেছে আল্লাহর কোন স্ত্রী নেই তাই তার পূত্র নেই। তার মানে আপনার আল্লাহ মানুষ জাতিয় কেউ তাই তার পুত্রের দরকার পড়লে স্ত্রী থাকতে হয়। আমাদের ঈশ্বরের পুত্রের দরকার পড়লে তার শুধু ইচ্ছা থাকলেই হয়, পার্থিব কোন স্ত্রীর দরকার পড়ে না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 4 = 3