প্রেমপত্র-৭৩

স্বপ্নপরী
আমি গান শুনি, স্বপ্ন দেখি,তোমার ছায়ায় হাত বাড়াই,আমি জাপটে চাই তোমার কোমল ছোয়া।খুজাখুজি করি কিন্তু বুঝাতে পারি না কখনো,
তুমিহীন কতটা কষ্টে একাকি প্রহর পারি দিচ্ছি।প্রকান্ড বটো-বৃক্ষের মত আগলে ধরতে তোমায় মন চায়।অতঃপর স্বপ্নের আশ্রয় নিয়ে ঘুরে বেড়াই তোমার সমগ্র ভূ-মন্ডলে।তোমার খোঁজে কেটে যায় মাস, বছরের পর বছর।কিন্তু কখনো বুঝাতে পারি না,আমার বাস তোমার ছায়ায়।বিষণ্ণ বিকেলের আবছা কোন স্মৃতির কারাগারে ঠিক যেখানটায় তুমি পরাজিত হও, যেই ক্ষনে মোহ-মুক্তি ঘটে তোমার।আমি সমগ্র অস্তিত্ব নিয়ে বসে থাকি তোমার দোয়ারের ওপাশে।তোমার ভেতরের জগৎ জুড়ে আমি থাকব,এই প্রত্যাশায় বসে থাকি ভূসন্ডির কাক হয় সেই ভোরে।সেদিন একটা হৃদয় কথা দিয়েছিলো,পরাজিত হবে কোন এক ঘাতক চাহুনীতে,
কোন এক নূপুরের নিক্কনে কোন এক অসম্ভব মায়াবতীতে।এ হৃদয় মৌলিক আশ্রয় ছেড়ে প্রতিজ্ঞা করেছিলো, আজীবন দাস হব বলে আর বাকিটা জীবন ওড়নার বড়শী তে গাথা পড়বে বলে,পণ করেছিলো এই পাজি হৃদয় এক মহাকাল ব্যাপী মজে থাকবে তোমাতে।তুমি কি জানো
কোথায় নেই তুমি?আমার অগোছালো বিছানায়, ভোরের আলো যেখানে ছুঁয়ে যায়।আমার টুথব্রাশ খুঁজে পাওয়া তো টুথপেস্ট খুঁজে না পাওয়ায়।
আমার নাস্তার টেবিলে, তোমাকে জোর করে খাইয়ে দেয়ায় স্বপ্ন দেখায়।
তোমার চুল টেনে পনি টেল করে দেয়ায় ইচ্ছায় কোথায় নেই তুমি?
আমার হতাশা জড়ানো চোখে,আমার অভিমানে, আমার আব্দারে, আমার অভিযোগে।কোন ভুল হয়ে যাওয়ায়,আমার শংকিত চোখে,তোমার বুকে আশ্রয় খোঁজায়।
বলো আমি থাকতে চাই তোমার?তোমার প্রথম বন্ধুর গল্প বলায়, তোমার এ্যলমেলো পরীক্ষায়।তোমার এক ঘুমবহুল আড়মোড়া বিকেলে,গোসলের সময় চোখে সাবান জলের জ্বলুনিতে,রাজারানীর গল্পে আর বকে ঘুমপাড়ানোতে,তোমার ঘুমন্ত মুখের দিকে নির্নিমেশে চেয়ে থাকায়,
সব কিছু ভুলে যাওয়ায়, আমাকে বকা দেওয়ায়।বলো আমি কোথায় থাকতে চাইনা তোমার?
কখনও যদি পালাবার জায়গা না থাকে দিন, রাত্রি অথবা অন্ধকারে।
তুমি কি আমার হাতটা একটু ধরবে?যদি আমি পড়তে পড়তে থেমে যাই- মাঝপথে,কিংবা আটকে যাই কার্নিশেতুমি কি আমার হাতটা একটু ধরবে।
যদি কেউ বলে আর আমি নেই পাহাড়, সমুদ্র, কিংবা আমার ছোট্ট ঘরটিতে।তুমি কি আমার হাতটা একটু ধরবে?যদি আমি হারিয়ে যাই আমিতে মিশে যায় চুন-সুড়কির নগরীতে তুমি কি আমার হাতটা একটু ধরবে?যদি নিভে যাই অন্ধকারে,যদি ভেসে যাই রোদে,যদি ডুবে যাই পাথরে তুমি কি আমার হাতটা একটু ধরবে।যদি তলিয়ে যাই
স্মৃতিতে যদি ক্ষয়ে যাই জলে যদি থেমে যাই চলতে প্রিয়তমা, তুমি
কি আমার হাতটা একটু ধরবে?এতটুকুই বিশ্বাস করি আমি,চোখ বদ্ধ করে মোর প্রার্থনায়,তুমি আসছো,তুমি আসবেই,তোমাকে যে আসতেই হবে হে পাগলী।কারন খুব বেশি কিছু চাইনি তোমার কাছে,শুধু তোমার হৃদয়ের শুদ্ধ ভালবাসা চেয়েছি।তোমায় ভালবাসার সবটুকু অধিকার চেয়েছি।আমি পৃথিবীও চাইনি,শুধু ভালবেসে তোমার পাশে থাকার অধিকার চেয়েছি।
আরও কতগুলো দিন কেটে গেল তুমি শুধু চুপ করে থাকো।হৃদয়ের ঘরে এসে নাড়া দাও একবার শুধু একবার বল “তোমাতেই অবস্থান করছি”। আমি শুধু তোমার অপেক্ষাতেই আছি। জানো,আমর বিশ্বাস একদিন তুমি ঠিক আসবে।সে বিশ্বাসে ভর করে পথ চেয়ে বসে আছি এক মহাকাল।তুমি আসবে বলে। কিগো মায়াবতী আসবে তো?
তোমার
মেঘবালক

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

7 + 3 =