প্রেমপত্র-৮১

লুসিয়া,
প্রমিত প্রেম জানা নেই আমার,আমি সেই রবীন্দ্র যুগেই পড়ে আছি।
মুঠোফোনে ক্ষুদে বার্তা কিংবা হোয়াটস অ্যাপে চ্যাট কিচ্ছুটি ভাল লাগে না। আমি এখনও হৃদয় দিয়ে তোমাকে প্রেমপত্র লিখতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি।রেস্টুরেন্টে বসে দুই হাতে কাঠি নিয়ে চাইনিজ কিংবা জাপানিজ খাবার আমি খেতেও তেমন ভাল লাগে না।তারচেয়ে বরং দুই আঙুলে টিপে বাদাম টিএসসি দোকানে মাল্টা চায়ে ঠোঁট চুবাতে পারি এবং নিউমার্কেটের ফুসকা খেতে আমার ভাল লাগে।চুলে স্পাইক,কানে রিং দাড়িতে ফেঞ্চকাট,লিভাইস শার্ট,ডেনিম জিন্সও আমার ভাল লাগে না।টি শার্ট পাঞ্জাবী বা এক কালারের শার্ট ই আমাদের পছন্দ।প্লে লিষ্টে অসংখ্য তাহসান তপু,ব্যাকস্ট্রিট বয়েজ বনজোভি বা স্পাইস গার্ল থেকে আমার রবীন্দ্র সঙ্গীত,অঞ্জনদত্ত অর্নব বা অনুপম রায় আমাকে বেশি মহিত করো।খুব ইচ্ছে একটি এককালারের পাঞ্জাবি আর আর তুমি নীল রঙ্গের একটা শাড়ি পড়ে ঢাকার রাস্তায় বর্ষার প্রথম বৃষ্টিতে ভেজা সোদা কদম ফুলের গন্ধ নিব ।পুরো শহরটা বৃষ্টিতে ভিজে রিক্সায় ঘুরবো তুমি আমি।
এতো নাজেহাল অবস্থা হবে আমার তুমি নাপা এক্সট্রা তোমার পার্স এ নিয়ে আসবে,আর বলবে খেয়ে আমায় উদ্ধার করো।ইয়ে না মানে বালিকা একটা কথা ছিল,বুঝতে পাগলী আমি তোমার মায়ের অবিবাহিত মেয়ের বর হতে চাই বিশ্বাস করো অন্তত মশারি গোছানোর জন্য হলেও তোমাকে দরকার।উফফ্ বড্ড মশা।আমি বরাবরই একজন খুন হতে চেয়েছি তোমার ঘাতক চাহুনীতে। আমি জানি একদিন ভয়ঙ্কর সুন্দর জ্যোছনায় তুমি তোমার জীবনের সবচেয়ে নিখুঁত আর সুন্দরতম খুনটা করবে।
খুনি তো আমি হবই। তুমিই নাহয় ঠিক কর তৃষ্ণায় মরবে, নাকি দৃষ্টিতে।ঐযে ইংরেজীতে একটা কথা আছে না”I don’t need many lines to describe u,All i can say is that…i m nothing without u”ব্যাপারটা কিন্তু তার থেকেও সিরিয়াস।তোমাকে নিয়ে পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর প্রেমের কবিতাটা লিখব ভেবেছি। তাই কতকাল রাত ঘুমোইনি আমি।চোখ বন্ধ করে ভাবতে চেয়েছি তোমার মুখ তোমার শরীরের প্রতিটি ভাজ।
প্রতিটি পেশী, রক্তজালক।তোমাকে ভাবছি,হটাৎ দরোজায় খটখট
স্বপ্নালু চোখে দরোজা খুলেই দেখলাম তোমাকে বললে এত জ্বালাও কেন তুমি?আমি বলি আমি যে দিয়াশলাই তুমি অকটেন তাইতো কথা ছিল।ওমা দেখে দুধওয়ালা ছেলেটা মিচমিচ করে হাসে আর বলে ও মামা এসব কি কন মাথা খারাপ হইছেনি??দেখতো কেমন লাগে??আমি তোমাকে পিৎজা হাট, কে এফ সি তে নিয়ে যেতে চাই না।টিএসসির মাল্টা চা খাওয়ায় ইচ্ছে তোমার সাথে খুব।গ্ল্যাডিওলাস নাই বা দিলাম লালপদ্ম চলবে না?সুইমিং পুল দেখলেই মনে হয় অদৃশ্য বোর্ডে লিখা আছে বিলাসের ভাড়া দেড়শ গুন!চলো না কোনো এক জ্যোৎস্না রাতে পদ্ম দীঘিতে সাঁতার কাটি?আমার ঘামে ভেজা শরীরে আকণ্ঠ জড়িয়ে নিতে চাই তোমায়।
তুমি কি আমার মধ্যবিত্ত বউ হবে?
তুমি রোজ শাড়ি পড়বে,আমি রোজ কুচি ধরে দিব।তুমি রোজ বাঁকা করে টিপ পড়বে।আমি হাত দিয়ে ধরে সোজা করে দিব।তুমি রোজ ভেজা চুলে আমার ঘুম ভাঙাবো।আমি আড়মোড়া ভেঙে মুগ্ধ হয়ে দেখব আমি প্রতিদিন একবার করে তোমার প্রেমে পড়ব।
আর বলব “চলো পালিয়ে যাই”
তুমি বলবে কতবার পালাবে?আমি বলব তুমি এমন মিষ্টি মনে হয় প্রতিদিন পৃথিবী থেকে লুকিয়ে রাখি তোমায়,মনে হয় প্রতিদিন তোমার সাথে কৈশরী প্রেম করি।বড্ড ভালবাসিগো।
তোমারই
শ্রীকান্ত

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

56 − = 47