ধর্ম ধান্দাঃ

বাংলাদেশে হরেক রকম ধান্দাবাজ আছে যারা ভিন্ন ভিন্ন রকমের ধান্দাবাজীর কৌশল প্রয়োগ করে।
পকেটমার ছিনতাইকারী মলমপার্টির উৎপাত শহরে আর সুপারী চোর, লোটা চোর আর সিদচোরের উৎপাত গ্রামে এব্যাপারে আমার সকলে অবগত।এ ধরনের ধান্দাবাজ চোর কিংবা বাটপারেরা জগনগের গনধোলায়ের শিকার হয়েছে বহুবার অনেকে জীবন দিয়েছে জনতার হাতে।

কিন্ত মুলে যে ধান্দাবাজ তাকে জনগন কয়বার গনধোলাই দিয়েছে? নাকি জনগন বুঝতেই পারেনা এটা তাদের সাথে ধান্দাবাজী করা হয়েছে।এ যাবত কাল যদি নিরপেক্ষ ভাবে যাচায় ও তদন্ত্র করা হয় তাহলে দেখা যাবে ধর্মধান্দা হচ্ছে সবচে শক্তিশালী ধান্দা, এই ধান্দাবাজদের পুলিশে ধরেনা দুদকে তলব করেনা বোকা জনগণও এদের ধান্দাবাজ বলেনা; জনগনের মতে তারা পুতপবিত্র!

ধান্দাবাজী নাম্বার-১; এটা চরম ধান্দাবাজী এই ধান্দাবাজদের রুখার শক্তি কারো নেই।তারা সরকারী জায়গাই মসজিদ তোলে দিবে পুলিশ বাধাদিলে এসলাম গেল এসলাম গেল বলে রব তোলবে।
এবং নির্মানাধীন মসজিদের নামে বছরের পর বছর চাদাবাজী করবে দিন যায় মাস যায় বছর যায় কিন্ত মসজিদের কাজ শেষ হয়না!!
গেন্ডারিয়ার ঘটনা কি তা প্রমান করেনা এমন অসংখ্য প্রমান আছে সরকারী ও সংখ্যালঘুদের জাইগা মসজিদ দিয়ে দখল করা হয়েছে।

ধান্দাবাজী নাম্বার-২ ; এটাও প্রায় একই রকম কায়দার ধান্দাবাজী প্রার্থক্য এখানে মাদ্রাসা তৈরি হচ্ছে সরকারী কত জায়গা মাদ্রাসার নামে বেদখল হয়ে আছে তার হিসেব নেই; ভোটের জন্য আওয়ামিলীগ বিএনপি এসব ব্যাঙের ছাতার মত কাওমী মাদ্রাসা বানাতে সহযোগিতা করেছে।সরকারী জায়গা দখলের সহজ উপায় ওখানে মাদ্রাসা তৈরি করে দাও আর গভির রাত পর্যন্ত এলহু এলহু চীৎকার করা।
সফি ওরপে তেলুত সফি যে কিনা আওয়ামীলিগকে নাস্তিক ঘোষনা করেছে সেও রেলের জায়গা দখল করে আওয়ামিলিগের বন্ধু বনে গেল !আর আওয়ামিলিগ ১ কুটি টাকার রেলের জায়গা হাটাজারী মাদ্রাসাকে ছেড়ে দিয়ে সফি থেকে আস্তিকতার সার্টিফিকেট নিল! সত্যিই আজব এদেশ।

ধান্দাবাজী নাম্বার-৩; এটা সিজনাল বা শীতকালীন ধান্দা বলা যায়;শীতকালে মমিনের ঈমান দন্ড ঠান্ডা হয়ে যায় তাই ওয়াজের নামে গা-গরমের ব্যবস্থা মাত্র!।ওয়াজের একমাস আগে মাদ্রাসার ছাত্রদের (ছোট/বড়) চটের বস্তা দিয়ে ভিক্ষা করতে নামিয়ে দেয় বড় হুজুরেরা; বাড়ী বাড়ী আর পাড়া মহল্লাই চলে ওয়াজের নামে চাঁদাবাজি।ওয়াজ করবেন বিচিস্ট চিন্তাবিদ আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন আলহজ মায়ুলানা ছলছলাতি পির ছাহেবের মুরিদ “ছব্বর আলী বল্টু” কিছুক্ষন ভিন্নধর্মের সমালোচনা আর বিশেদেগার করে তিনি ওয়াজ শেষ করবেন।

ধান্দাবাজী নাম্বার-৪; এটাও সিজনাল ধান্দা কুরবানীর পশুর চামড়ার ধান্দা; এই দিন ধার্মিকের সব চামড়া ব্যবসায়ী সেজে যায় ধর্মের দোহায় দিয়ে যত কমদামে চামড়া কিনতে পারে সেটাই তাদের লাভ; কখনো কখনো এতিমের হক বলে চামড়ার দাম পরিশোধ না-করে চলে যায়।

আর ধর্মধান্দায় হচ্ছে বাংলাদেশে পুজিবিহীন লাভজনক ধান্দা ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

32 + = 38