নির্বাচন নয়, অভ্যুত্থান-ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে সরকার-পরিবর্তন করতে চায় বিএনপি-জামায়াতজোট

নির্বাচন নয়, অভ্যুত্থান-ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে সরকার-পরিবর্তন করতে চায় বিএনপি-জামায়াতজোট
সাইয়িদ রফিকুল হক

রাজপথে দীর্ঘদিন যাবৎ লোকদেখানো আন্দোলন করছে বিএনপি-জামায়াতজোট। আর জামায়াতের রাজনীতি নিষিদ্ধ হবে-হবে বলে তারা বিএনপির ভিতরে মিশে গিয়ে সরকারবিরোধীআন্দোলন করছে। তবে তারা কেউই আসলে আন্দোলন করছে না। এরা সবাই মিলেমিশে ভিতরে-ভিতরে একদফার ভিত্তিতে আন্দোলন করছে। আর তাদের এই একদফা হলো: “ভোটে নয়, ব্যালটে নয়—অন্য যেকোনোভাবে বর্তমান আওয়ামীলীগসরকারের পরিবর্তন ঘটাতে হবে।” এজন্য তারা ১৯৭৫ সালের মতো সামরিক-ক্যু করতে চায়। এটি তাদের দীর্ঘদিনের লালিত-স্বপ্ন। এরা এখন ভোটাভুটির খেলা বাদ দিয়ে সামরিক-অভ্যুত্থান বা যেকোনো ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষশক্তির হাত থেকে রাষ্ট্রক্ষমতা ছিনিয়ে নেওয়ার জন্য একেবারে এককাট্টা। আর তাদের এব্যাপারে সর্বক্ষণ সর্বাত্মক সাহায্য-সহযোগিতা করছে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ ও চেতনাবিরোধী দেশী-বিদেশী অপশক্তি।

এরা কিছুদিন লোকজনকে দেখানোর জন্য কথিত তত্ত্বাবধায়ক-সরকারের জন্য মরীয়া হয়ে আন্দোলন করলো। আর এর জন্য মারা গেল শত-শত নিরীহ মানুষ। জনসমর্থন না থাকায় তাদের কোনো আন্দোলনই কার্যকর ও ফলপ্রসূ হয়নি। কিন্তু তারা কখনও থেমে নেই। তাদের আন্দোলনটা আসলে লোকজনকে দেখাবার জন্য। কারণ, তারা জানে, এই দেশে যত ভালো ও নিরপেক্ষ নির্বাচনই হোক না কেন, তাতে বিএনপি-জামায়াতজোটের জয়লাভের কোনো সম্ভাবনা নাই। সেই থেকে তারা বাইরে রাজনীতির নামে সরকারপতনের জন্য আন্দোলন-নাটক করছে—অপরদিকে, তারা ভিতরে-ভিতরে বর্তমান আওয়ামীলীগসরকারের পরিবর্তনের জন্য দেশী-বিদেশী সকল ষড়যন্ত্রকারীদের সঙ্গে এককাট্টা হয়ে এক ভয়ানক খেলায় মেতে উঠেছে।

বিএনপি-জামায়াত ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের বিরোধিতাকারী-রাষ্ট্রের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগস্থাপন করে আওয়ামীলীগবিরোধী মনোভাব দেখিয়ে তাদের সমর্থন আদায় করে সরকারপতন ঘটাতে চায়।
বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারী প্রথম সারির রাষ্ট্রগুলো হচ্ছে—মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইংল্যান্ড, সৌদিআরব, জার্মানী, তুরস্ক, ইতালী ইত্যাদি। আর এদের সঙ্গে পৃথিবীর ভয়াবহ জারজরাষ্ট্র পাকিস্তান তো সবসময়ই রয়েছে। বর্তমানে বিএনপি-জামায়াত পৃথিবীর জারজরাষ্ট্র পাকিস্তান ও তাদের জারজগোয়েন্দাসংস্থা আইএসআই এবং পৃথিবীর আরেকটি জারজরাষ্ট্র ইসরাইলের জারজগোয়েন্দাসংস্থা মোশাদের নির্দেশে পরিচালিত হচ্ছে।

বিএনপি-জামায়াতজোট বর্তমানে তাদের পরিকল্পিত অভ্যুত্থান-ষড়যন্ত্র সংঘটিত করার আগে দেশের ভিতরে যা-যা করতে চায়:

১. দেশের ভিতরে একের-পর-এক গুপ্তহত্যা চালানো।
২. সংখ্যালঘু তথা হিন্দুসম্প্রদায়ের বিশেষ শ্রেণীভুক্ত মানুষদের হত্যা করে দেশের ভিতরে সাম্প্রদায়িক-সম্প্রীতি-বিনষ্ট করার পাশাপাশি সংখ্যালঘুদের ক্ষেপিয়ে তোলা। এক্ষেত্রে তারা বাংলাদেশের হিন্দুসম্প্রদায়ের উপর পরিকল্পিতভাবে আক্রমণ চালিয়ে তাদের হত্যা করে ভারতের সঙ্গে বর্তমান আওয়ামীলীগসরকারের সম্পর্ক-বিনষ্টের অপচেষ্টা।
৩. পাকিস্তানের জারজগোয়েন্দাসংস্থা আইএসআই ও ইসরাইলের বেজন্মা-মোশাদের নির্দেশে বিএনপি ও জামায়াত দেশের ভিতরে রহস্যজনকভাবে মানুষহত্যা শুরু করে তা অব্যাহত রাখার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।
৪. হিন্দুদের টার্গেট করে হত্যা করা হচ্ছে। এর উদ্দেশ্য হলো আমাদের প্রতিবেশীরাষ্ট্র ভারতকে আওয়ামীলীগসরকারের বিরুদ্ধে ক্রমাগতভাবে ক্ষেপিয়ে তোলা।
৫. হিন্দুসম্প্রদায়ের দালালশ্রেণীর নেতাদের মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে কিনে তাদের আওয়ামীলীগবিরোধী-অপকর্মে ব্যবহার করা হচ্ছে।
৬. এদেরই শয়তানীপরিকল্পনায় দেশের ভিতরে ব্লগারদের হত্যা করে বিশৃঙ্খলাসৃষ্টির অপচেষ্টা করা হচ্ছে।
৭. দেশের ভিতরে সংঘটিত যাবতীয় নাশকতার মূলে রয়েছে এদের এই পিছন-দরজা দিয়ে রাষ্ট্রক্ষমতাদখলের অপচেষ্টা।

বর্তমানে বিএনপি-জামায়াতজোট দেশে কোনো নির্বাচন চায় না। এটা আসলে তাদের রাজনৈতিক কথা ও মুখের বুলি মাত্র। তারা বর্তমান আওয়ামীলীগসরকারের পরিবর্তন চায় ১৯৭৫ সালের স্টাইলে। আর এছাড়া বর্তমানে তাদের কোনোভাবেই বাংলাদেশের রাষ্ট্রক্ষমতাদখল করার উপায় নাই। বর্তমানে তারা এই লক্ষ্যেই অগ্রসর হয়েছে, এবং সেই মোতাবেক তারা পাকিস্তানের আইএসআই ও ইসরাইলের প্রেসক্রিপশন-অনুযায়ী দেশের ভিতরে একের-পর-এক গুপ্তহত্যা চালাচ্ছে, এবং তারা কয়েকজন হিন্দুপুরোহিতকে হত্যা করে দেশের ভিতরে সাম্প্রদায়িক-সম্প্রীতি-বিনষ্ট করে দেশজুড়ে ভয়ানক গোলোযোগসৃষ্টির মাধ্যমে নিজেদের ঈপ্সিত শয়তানীউদ্দেশ্য সফল করতে চাচ্ছে।

এই শয়তানদের মোকাবেলা করে বর্তমান সরকারকে অবশ্যই দেশের ভিতরে গুপ্তহত্যা পরিচালনাকারী ও সাম্প্রদায়িক-সম্প্রীতি-বিনষ্টকারীদের কঠোর হস্তে দমন করতে হবে।

সাইয়িদ রফিকুল হক
মিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশ।
৩০/০৬/২০১৬

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

9 + 1 =