একজন পিন্টু সাহা ও তার ভাই

আধহাত জায়গা।নড়াচড়ার সুযোগ নেই।
এর মধ্যে পিন্টু সাহা নামের এক যুবক
বসে আছেন।বসে থেকে তিনি যত
না ঈশ্বরকে ডাকছেন তার
চেয়ে বেশি ভাবছেন মা-ভাই-
স্বজনদের কথা।
সাভারে রানা প্লাজা ধ্বসের ৫২
ঘন্টা পেরিয়ে গেছে।
হাতে ছবি নিয়ে অবিরাম লাশ
গুলো পরীক্ষা করে চলেছেন পিন্টুর
ভাই। বেশিরভাগ লাশই পঁচতে আরম্ভ
করেছে।বড় ভাই হলফ
করে বলতে পারেন না ছোট ভাইয়ের
লাশ তিনি এড়িয়ে গেছেন কিনা।
৫২ঘন্টা পর উদ্ধার করা হল পিন্টু
সাহাকে।
আর এতক্ষণ আতঙ্কে পাগলের মত
হাতড়ে বেরিয়েছেন তার ভাই।নাম
আবদুল জব্বার্।
ভাইকে পাওয়া মাত্র পিন্টু সাহার
মাকে ফোন করলেন জব্বার;জানালেন
‘মা,পিন্টুরে পাওয়া গেছে।
কতা কয়।’আর সেইসাথে কান্নায়
ভেঙে পড়লেন তিনি।
এই পিন্টু সাহা কিংবা আবদুল জব্বার
কাউকে আমি চিনি না।কিন্তু
বলতে চাই আমি মরলেও
বাঙ্গালী,বাঁচলেও বাঙ্গালী।আর তাই
নিজেকে একজন পিন্টু কিংবা জব্বারের
ভাই দাবি করছি।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৪ thoughts on “একজন পিন্টু সাহা ও তার ভাই

  1. আমি কবিতা বলি নাই । ফরম্যাট
    আমি কবিতা বলি নাই । ফরম্যাট বলেছি । এটা বর্ণনা মুলক লেখা । তাই বলেছি এটা হউয়া উচিত ছিল নির্দিষ্ট বাম পার্শ্ব কাঠামো বর্জন করে । তাই বলেছি ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 62 = 72