প্রভাত দর্শন

কী অদ্ভূত চিরস্থায়ী প্রক্রিয়ার মাঝ দিয়েই প্রবাহিত প্রতিটি অস্থায়ী মুহুর্ত ।
প্রতিটা মুহূর্তেই ঠিক কোথাও না কোথাও হচ্ছে ভোর।ঠিক প্রতি মুহূর্তেই কারো না কারো ঘুম ভাঙিয়ে উঠছে সূর্য ।কাটছে রাত…কোথাও না কোথাও ঝড়ে যাচ্ছে সেখানকার প্রভাত শিশিরগুলো ।
কোথাও ছেয়ে আছে অমাবস্যার নিগ্রো অন্ধকার আর কোথাও মানুষ দেখছে নদীর জলে জ্যোছনার প্রতিফলন। ।একই সময়ে কথাও গ্রীষ্ম,কোথাও বর্ষা।কোথাও শীতের শিড় শিড়ে হাওয়ায় বার বারই শুকিয়ে যাচ্ছে কারো জিভ বুলিয়ে ভিজানো ঠোঁটদুটি।

কোথাও বুড়ো মানুষটা ছানি পড়া চোখে দৃষ্টি মেলছেন দিগন্তে,ভাবছেন তার ফেলে আসা যৌবন। আবার ঠিক এই মুহূর্তেই কোথাও না কোথাও প্রেমিকের চোখে প্রতিশ্রুতি খুঁজে ফিরছে কোন এক প্রেমিকার চোখ।কোথাও গাঢ় অভিমানে সময় নিয়েই নিরবে পড়ছে দীর্ঘশ্বাস।কেউ হয়ে পড়ছে সরবহারা।পরক্ষণেই বুক বাঁধছে আশায়।

এই মুহূর্তেই কেউ না কেউ ছেড়ে গেলো ইহলোক। আবার কোথাও কেঁদে উঠে প্রাণের জানান দিল কোন এক নবজন্মা।গভীর ভালোবাসায় কোন এক বাবা দেখছেন নবজাতককে ।

পৃথিবীর সম্ভাব্য সব ঘটনাগুলোই ঘটে চলেছে ঠিক একইমুহুরতে।

মহাকালের প্রতিটি কাল বয়ে চলছে চিরকালের মাঝ দিয়ে ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 29 = 36