In a twinkling of an eye

মাঝে মাঝে ইচ্ছা করে পালিয়ে যেতে,
ঠিক পালিয়েও না,
হারিয়ে যেতে । ।
যেথায় আমার হারিয়ে যাওয়ার নেই মানা type এর কোন place এ।
এই ধরনের কোন place এর কথা ভাবলেই কেন জানিনা একটা বিশাল মাঠ দেখতে পাই। বিশালত্বে আকাশের কাছাকাছি সে মাঠটিকে দু’টুকরো করে প্রবাহিত যে নদীটা,সেটাতে শুধু শেষ বিকেলের সূর্যটার লালচে আভার প্রতিফলন।
দূরে কিছু ঘন হয়ে বেড়ে ওঠা জংলি গাছের ফাঁকে আসন্ন সণ্ধ্যা।
আর তারও অনেক দূরে , যেখানে দৃষ্টি তার সবটুকু ক্ষমতা দিয়েও পৌঁছুতে না পেরে দৃশ্যগুলো ঝাপ্সা করে দিয়েছে,ওখানে দুটি ইটের ভাটা যেন কালোমেঘ তৈরির কারখানা।

কল্পনায় ইটের ভাটা আসাটা হয়্ত খুব একটা স্বাভাবিক না।কিন্তু আমার হারিয়ে যাওয়ার ঠিকানায় ইটের ভাটা আছে। ।
হয়তো এর পিছনে কোন কারনও আছে।
আছে একটা গল্প।
যে গল্প আজকের নয়।
বহুদিনের । ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

17 − = 16