♦ নাস্তিকের দেহ দান ♦

অনেকদিন পর আজ এক বন্ধুর সাথে দেখা। একগাল দাড়ি রেখেছে দেখছি, আগের ক্লিন সেভড চেহারাটা আর নেই। বেশ কিছুক্ষন আলাপের পর তার এক আচমকা প্রশ্ন –
বন্ধু তুমি তো তাইলে নাস্তিক হইয়া গেছ, আল্লায় জানে তোমার জায়গা দোযখেও আছে কিনা। আচ্ছা, তুমি মৃত্যুর পর তোমার দেহখানা কোন ধর্মের নিয়মে সৎকার করবা….??

বন্ধু, আমি আমি চাইছি মূলত আমার দেহখানা কোন ধর্মের নয়মেই সৎকার করবো না। আমি আমার দেহখানা অভুক্ত মাংসাশী প্রানীতে দান করে যাবো, অন্তত তারা আমাকে দ্বারা ক্ষুদা নিবারন করে অর্ধেকদিন অবদি অন্তত অন্যপ্রানীর প্রতি ক্ষুদার্ত হবে না। তারা শান্তিতে শয়ন করবে। মৃত্যুর পর এই মৃত দেহখানা হয় পুরিয়ে ফেলবে না হয় দাফন করে নষ্ট করবে, তার চেয়ে কিছু অভুক্ত প্রানী শান্তি পাবে, এটা কি বড় নয়…!! আমি এটাই চাইছি সত্যি, যদি আমার পরিবারের কারো অমত না থাকে।

এই কথা শুনে বন্ধু আমার বিচলিত হয়ে পড়লো, তার নাকি মাথা ঝিমঝিম করছে, প্রেসার বাড়ছে।
আর সহ্য করতে পারছে না, নাস্তিকের দেহ দান ইচ্ছা। একটা বিড়ির মাথায় আগুন ধরাইয়া তার প্রস্থান।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on “♦ নাস্তিকের দেহ দান ♦

  1. ইস্টিশন ব্লগের নীতিমালাটা
    ইস্টিশন ব্লগের নীতিমালাটা পুনরায় একবার দেখেন ভাইজান। আপনি ফ্লাডিং করছেন মনে হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 1 = 7