জংগিদের ধর্ম নাই যাহা একটি মিথ্যা বচনঃ

যারা বলছেন জংগিদের ধর্ম নাই আমার মতে তারা মিথ্যা বলছেন;বিশ্বব্যাপি জংগিবাদের উত্থান মুলত ধর্মকে ঘিরে পৃথিবীর প্রায় সব দেশই এখন জঙ্গিবাদের নির্মম থাবায় জর্জরিত,তৃতীয় বিশ্বের মুসলিম দেশে জংগিবাদের বিস্তার ঘটেছে বহু আগেই; কিন্ত এক্ষেত্রে বাংলাদেশ ছিল ব্যাতিক্রম কিন্তু শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের গায়েও আছড় দিয়েছে ইসলামি জঙ্গিবাদের বর্বর থাবা। গত পহেলা জুলাই ঢাকার গুলশানে হলি অর্টিজান বেকারিতে জংগি হামলায় নিহত হয়েছে ২০ জন নিরীহ মানুষ; তার মধ্যে ৯ জন ইতালীয় নাগরিক ৭ জন জাপানি ১ জন ইন্ডিয়ান ৩ জন বাংলাদেশি। এখানে ইতালিয়রা ও জাপানীয়রা ছিল আমাদের উন্নয়নের অংশিদার পরম বন্ধু,পোশাক শিল্প ব্যাবসায়ি ও জাপানীয়রা ছিল আমাদের মেট্রো রেলের পরামর্শক। জংগিরা ডুকেই প্রথমে হত্যা করেছে বিদেশীদের তাদের ভাষায় তারা বিধর্মী ও নাস্তিক; আর যার বেঁচে এসেছে তাদের মধ্যে হাসানাত আর করীম সন্দেহবাজন জংগি যে নিজেকে জিম্মি হিসেবে উপস্থাপন করেছে।বাকি যাদের ছেড়ে দিয়েছে তারা সকলে ছিল মুসলিম যারা কোরআনের আয়াত পারার কারনে রক্ষা পেয়েছে। এইদ্বারা কি বুঝা যায়না জঙ্গিরা ইসলাম ধর্মের প্রতি সহনশীল আর তারা খুজে খুজে হত্যা করেছে তাদের যাদের ধর্ম ইসলাম নয় বাংলাদেশি ফারাজ কে তারা হত্যা করেছে তার দুই বন্ধুকে ছেড়ে না আসার কারনে বাংলাদেশি আরেক নারী কে হত্যা করেছে মাথায় হিজাব না থাকার কারনে।

গুলশান হত্যার রেশ কাটতে না কাটতে হামলার শিকার হল বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ঈদ জমায়াত শোলাকিয়া। জনগণের ভাগ্য ভাল দুই পুলিশ কনেস্টেবলের জানের বদলে বেঁচে গেছে অনেক প্রান।তারাও ছিল ইসলামি জঙ্গি।শোলাকিয়ার ঈমাম ছিল তাদের মুল টার্গেট কারন তিনি ইসলামি জঙ্গিদের বিরুদ্ধে কথা বলেন। তাহলে কেন বলা হচ্ছে তাদের কোন ধর্ম নাই এই কথা বলে কি দায় এড়াতে পারবে মুসলমানেরা নাকি এখানে তারা ষড়যন্ত্র খুজবে?আর ধর্মই যদি না থাকে তাদের লাশ গুলো আপনারা কি করবেন। জংগিরা অবশ্যই ধর্মের পথে চলছে কোরানের অন্তত ১৬৪ টি আয়াতে আছে জিহাদের কথা অন্যধর্মাবল্বীদের হত্যা করার কথা দাস বানিয়ে রাখার কথা,জঙ্গি জিহাদিরা ঐ পথে আছে তাহলে কিভাবে তারা ধর্মহীন হল ?। আবার অনেক আয়াতে আছে শান্তির কথা,মডারেট মুসলিমরা বলে শান্তির কথা কিন্ত অনেক মডারেট ভিতরে ভিতরে জঙ্গিবাদ লালন করে।
যায়হোক, খুব জোরে প্রচার হচ্ছে জংগিদের ধর্ম নেই তারা মুসলিম না কিন্ত জংগিরা দাবি করছে তারা ধর্মের পথে আছে এবং তারাই খাটি মুসলিম।

খবরে দেখলাম জংগি আবিরের জানাজা দিচ্ছে একজন সরকারী মোল্লা;ওই একজনই তার জানাজায় অংশ গ্রহন করেছে; মৃত মানুষ জানাজা দেওয়া বা পোড়ার অর্থ হল তাকে তার ধর্মীয় অনুশাসন মতে শেষকৃত্য সম্পাদন করা।এবং জানাজা দেওয়া প্রমান করে জংগী আবির মুসলিম। তাহলে প্রশ্ন জংগিদের কোন ধর্ম নাই কেন বলা হচ্ছে?।আর যারা বলছে জঙ্গিদের ধর্মনেই আর তারাই জংগিদের জানাজা দিয়ে প্রমান করছে তাদের ধর্ম আছে এবং তারা মুসলিম।

অতএব, যারা বলে জাঙ্গিদের ধর্ম নেই তারা ডাহা মিথ্যা বলে।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 83 = 86