আমিও কইলাম কিছু মন যা চায় :D

গুলশান ও শোলাকিয়ায় হামলার সব তথ্য আগেই আমাদের কাছে ছিল: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ও আচ্ছা। সব জানবার পরে উনারাও সকল প্রস্তুতি লইয়া অপেক্ষা করতেছিলেন যে কখন জবাই চলবে, এরপর ধীরে সুস্থে সেনাবাহিনী আইসা জাতিকে কিছু একশন সিকোয়েন্স উপহার দিবেন। সবই তো উনাদের জানার পরেও হইলো, ওরা যেভাবে চাইছিলো সেভাবেই হইলো। উনার বা পুলিশ বা সরকারের সাথে আইএস লিঙ্ক নাই তো?

মানে থাকতেও পারে। রাজনীতিতে অসম্ভব বইলা তো কিছু নাই। কিছু বলদের মাথা ধুইয়া তাদের বলি বানানো হইলো এই কাজে। হয়তো আইএস নেতারা অনেক টাকা পাইছেন, ইরাক সিরিয়ায় তো দুর্দিন চলতেছে। ওদের টাকা লাগবে না? কিছু দেশী বৈদেশী মারা গেলেও আলটিমেট ফায়দাটা তো সরকারেরই হইলো। সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধে নাকি জাতি ঐক্যবদ্ধ। মানে সরকারের পতাকাতলে সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধের লাইগা সকলে লাইন ধইরা দাড়াইছেন। ঘোষনা দিয়া অভিযান চলতেছে। রাজনৈতিক বিরোধী দলগুলা (সংসদের বিরোধীদল না কিন্তু) ভিজা বিলাই হইয়া মাঝে মাঝে মিউ মিউ কইরা উপস্থিতি জানান দিতেছেন। মানে উনারা ম্যাও ভাষ্যে বলতে চান, “আমাগো দিকেও একটূ নজর দ্যান গো সরকার মহাশয়, অনেকদিন ক্ষমতার জুস খাইনা। ইস্যু দ্যান কোনো।” কিন্তু বোমা হামলা, জবাইটবাই তো ওগো নিজের পছন্দসই ইস্যু না, উনাগো জোটেই তো এই কামে এক্সপার্ট ৭১ এর ঐতিহ্যবাহী দল মওজুদ আছে।

আরও দুইচারটা এমন কাম হইলে সরকারের গদি আরও ৫০ বছরের লাইগা নিশ্চিত, কারণ এইসব সরকারের পক্ষের ইস্যু। বাকশালের মত জোর কইরা না হওয়াতে চাইলেও আইএসের উছিলায় নিশ্চিত হইয়া যাবে সেইটা, আইএস এর হাত ধইরা। এই হামলা তো আসলে সরকারই চালাইতেছে। আপনারা বোঝেন না? না বুঝলে আপনারা ছাগল, কাঠালপাতা আপনাগো প্রধান খাদ্য।

সরকার আগে টাকা দিছে আইএস রে হামলার জন্য চাপাতিধারী বলদ যোগান দিতে। রেস্টুরেন্টের ম্যাপ দিছে, কখন বৈদেশীরা বেশি আসবে তার তথ্য দিছে। এরপর বৈদেশিক মিডিয়ারে বুক উজার কইরা ভিডিও ফুটেজ সাপ্লাইয়ের ব্যবস্থা করছে। ৭১ টিভির ফুটেজের লগে ওইসবের মিল বেশি নাই তো? খেয়াল কইরা দেইখেন ভাইলোগ। সবই গদি রে ভাই, এইসব আমাগো আসাদুজ্জামান কামাল মামা জানেন। কামাল তুনে কামাল কিয়া ভাই। শখের গদি রক্ষার জন্য আপনার অবদান জাতি মনে রাখবে।

এইবার আরও বলি যে, এই হামলার জন্য আইএস কত অর্থের বিনিময়ে রাজী হইলো। পরিমানটা অনেকই। রিজার্ভের ৮০০ কোটি টাকা চুরির অংক থাইকা যেইটা উদ্ধার হয়নাই, তার পুরাটাই গেছে ওদের হাতে। এইটা বিশাল পরিকল্পনার অংশ। নাইলে সরকারের টাকা সরকারের অনুমোদন ছাড়া ট্রান্সফার রিকোয়েস্ট এমনি এমনি যায় নাকি? আর কোনো দেশে তো যায়না। ওই টাকা চীন, হংকং ঘুইরা সিরিয়ায় গেছে। অগ্রিম আছিলো ওইসব, আরও যাবে। কামাল মামারে জিগান, উনি সব জানেন।

আপনারা কইতে পারেন আমি কি লিখতেছি। তথ্য, রেফারেন্স কিংবা যুক্তি কই? লাগে নাকি এইসব আজকাল? কামাল সাহেব মন্ত্রীর পদে থাইকা ক্লাস ফাইভ পাশ মেথরের মত বুদ্ধি লইয়া গপ্প মারতে পারলে আমি আর কোন চ্যাটের বাল? আমিও কইলাম কিছু মন যা চায়…

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

47 − 46 =