নিঃসংগ শয়তান

নতুন চশমাটা ভালো করে দেখে আবার চোখে দিলো আজাজিল। বয়স কম হয়নি। তাই এখন মাঝেমাঝে চশমা লাগে। মানুষ পৃথিবীতে এত ঝামেলা করছে যে তার এখন আর তেমন কিছু করতে হয়না। অনেক অবসর সময় পাওয়া যাচ্ছে। তবে কাজ ছাড়া সে থাকতে পারেনা। আজকে কী মনে করে যেন কোরান শরীফ খুলে বসলো। তার কোরান পুরা মুখস্ত। সে কোরান নাজিল হওয়ার আগেই তা লাওহে মাফুজে দেখছিল। তবে বেশিক্ষণ কোরান পড়লে হার্টে ব্যথা হয়। ইদানিং তার হার্ট দূর্বল হয়ে পড়ছে।

মানুষ এখন তার চেয়েও বড় শয়তান হয়ে উঠছে। না জানি আবার তার চামচারা কোন মানুষকেই নিজেদের নেতা বানিয়ে বসে। সেজদাহ কেলেংকারীতে তার ফেরেস্তাদের লীডারশীপ হাতছাড়া হয়েছিল। এটার জন্য অবশ্য ওই বোকা ফেরেস্তাগুলোই দায়ী। আরে হাদারামের দল, মানুষ বানানোর কথা শুনার পর তার বিরোধীতা করার কী দরকার ছিল। বিরোধীতার কারনে মানুষ বানানোর প্রক্রিয়া আরো দ্রুত হয়েছে। অবশ্য এটা নিয়ে আজাজিলের হাল্কা অভিমান আছে। তার সাথে একবারো আলোচনা করা হলোনা মানুষ বানানোর ব্যাপারে। সে কোরান শরীফটা বন্ধ করলো। একটা সিগেরেট ধরিয়ে ভাবতে লাগলো কেয়ামত কখন হবে। তার মনে অন্য একটা চিন্তা কিছুদিন কাজ করছে। কোনভাবে যদি কেয়ামতের ইনফরমেশনটা লিক করা যেত তাহলে কেয়ামতের আগেই সে তওবা করে ফেলবে। দরকার হলে আদমের কবরে গিয়ে সেজদাহও দিয়ে আসবে। আচ্ছা হাওয়ার কবরে কি সেজদাহ দিতে হবে?

নাহ, এই আল্লাহ সব সময় তাকে কনফিউশনের মধ্যেই রাখলেন। তার ইদানিং খুব একা একা লাগে। আল্লাহ আদমের জন্য হাওয়াকে বানালেন, কিন্তু তার জন্য কাউকে বানালেন না। কেন তার কি মন নেই? একদম ব্যাচেলর হয়েই তাকে সারাটা জীবন কাটাতে হচ্ছে। দুনিয়ার প্রথম ব্যাচেলর সে। সিগেরেটটা শেষ হয়ে এসেছে। সেদিকে তার মন নেই। আজাজিল এখন তার নিঃসংগতা নিয়ে ভাবছে।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 79 = 88