ইসলামের নামে সন্ত্রাস শিরোনামে কিছু সাক্ষাতকার

সম্প্রতি মুসলমানদের সাথে আলাপ আলোচনা করে বেশ কৌতুহলোদ্দীপক অভিজ্ঞতা হয়েছে। গোটা পৃথিবী ব্যাপী ইসলামী সন্ত্রাস সহ বাংলাদেশে ঘটে যাওয়া সাম্প্রতিক ঘটনাবলীর প্রেক্ষিতেই এই অভিজ্ঞতা সঞ্চয়। সেই অভিজ্ঞতাগুলোই এখন শেয়ার করা হবে। এখানে একই প্রশ্ন বিভিন্ন জনকে করা হয়েছে , আর বিভিন্ন জনে যে উত্তর দিয়েছে সেটা দেখান হলো।

প্রশ্ন-১। আচ্ছা , এই যে সিরিয়া-ইরাকে ইসলামিক স্টেট গঠিত হয়েছে , তারা ইসলামের নামে হত্যা , নারী ধর্ষন , লুটপাট ইত্যাদি করছে , এ ব্যাপারে আপনার কি মতামত?

উত্তর -(১) এই সব খবর দেখার সময় কোথায়? সারাদিন কাজ কর্ম নিয়ে ব্যস্ত থাকি , এতসব খবর দেখার টাইম নাই।
উত্তর-(২) এসবই আমেরিকা ও ইহুদিদের ষড়যন্ত্র। তারা এভাবে মুসলমানদের সর্বনাশ করতে চায়। তারা মধ্যপ্রাচ্যের তেল সম্পদ দখল করতে চায়। আই এস এর প্রধান যে আবু বকর বাগদাদী সে নাকি আসলে ইহুদি। ফেসবুকে প্রকাশ পেয়েছে।
উত্তর-(৩) এর সাথে ইসলামের কোনই সম্পর্ক নেই। ইসলাম শান্তির ধর্ম। যারা এইসব করছে , তারা কেউ মুসলমান না।

প্রশ্ন- ২। গুলশানে বিদেশীদেরকে হত্যা করা হলো , যারা করেছে তারা ইসলামের নামে সেটা করেছে বলে খবরে প্রকাশ। আপনার কি অভিমত?
উত্তর-(১) এসব বিদেশীদের ষড়যন্ত্র।
উত্তর-(২) এসব বি এন পি – জামাতের চাল। তারা রাজাকারদের বিচার ও শাস্তি রদ করতে চায়।
উত্তর-(৩) এসবের সাথে ইসলামের কোন সম্পর্ক নেই। এদেরকে ব্রেইন ওয়াশ করা হয়েছে।

প্রশ্ন- ৩। এদেরকে কিভাবে ব্রেইন ওয়াশ করা হলো? এদেরকে ইহুদি নাসারা বা বি এন পি -জামাত কিছু অস্ত্র দিয়ে বলল , যাও গিয়ে বিদেশীদেরকে হত্যা কর আর তোমরা নিজেরাই মারা যাও , আর সাথে সাথে তারা গিয়ে আক্রমন করল ? এছাড়া এসব ছেলেরা তো দেখা যায় ইংরেজী শিক্ষিত উচ্চ বিত্ত ঘরের , তারা কেন এরকমটা করবে ?
উত্তর-(১) সন্ত্রাসী গ্রুপের লিডাররা বহু সেয়ানা, ব্রেইন ওয়াশের নানা পদ্ধতি জানা তাদের।
উত্তর-(২) এরা আসলে ষড়যন্ত্রের শিকার।
উত্তর-(৩) এরা নিজেদের নাম ফাটানোর জন্যে এসব করেছে।

প্রশ্ন-৪। শায়খ আব্দুর রহমানকে চিনেন যে ছিল জে এম বি এর নেতা ?সে কি খুব বড় মাপের আলেম ছিল ?
উত্তর-(১) হ্যা , সে বড় মাপের আলেম ছিল।
উত্তর-(২) হ্যা ইসলাম সম্পর্কে তার বহু জানা শোনা ছিল।
উত্তর-(৩) ইসলাম সম্পর্কে তার অগাধ জ্ঞান ছিল।

প্রশ্ন-৫। এখন তো শোনা যাচ্ছে , এসব আত্মঘাতী যুবকেরা নাকি সবাই জে এম বি- এর সদস্য। তো আব্দুর রহমান যে আদর্শ প্রচার করে গেছে ,সেটার জন্যেই তো এরা আত্মঘাতী হচ্ছে। আব্দুর রহমান কি তাহলে ইসলাম বিরুদ্ধ কোন আদর্শ প্রচার করে গেছে?
উত্তর-(১) ইবলিশ শয়তানও আল্লাহর বড় ভক্ত ও জ্ঞানী ছিল। তেমনি আব্দুর রহমান বড় আলেম হলেও , এক পর্যায়ে তার ওপর শয়তান ভর করে। সেই শয়তানীই প্রচার করে গেছে শেষ দিকে।
উত্তর-(২) শেষ বয়সে এসে আব্দুর রহমানের মাথা বিগড়ে গেছিল।
উত্তর-(৩) আব্দুর রহমান ক্ষমতার মোহে পাগল হয়ে গেছিল।

এখন পাঠকবৃন্দ, আপনারা কি বুঝলেন ? যারা সাক্ষাতকার দিলেন , তারা কি সবাই সত্য কথা বলেছেন ? নাকি কিছু কিছু কথা লুকিয়ে গেছেন? নাকি তারা নিতান্তই অজ্ঞ , তাই তারা যা ভাবে সেটাই অকপটে বলেছেন?

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২ thoughts on “ইসলামের নামে সন্ত্রাস শিরোনামে কিছু সাক্ষাতকার

  1. যে জানে না, তাকে বলা হয় মূর্খ
    যে জানে না, তাকে বলা হয় মূর্খ। আর যে জানতে চায় না, তাকে কি বলা যায়? মুসলমানদের নাকি ঈমান নষ্ট হয়ে যায় জানতে গেলে।

  2. আবাল মুসলমান। শালারা সব বলদ।
    আবাল মুসলমান। শালারা সব বলদ। সামান্যতম বুদ্ধি নাই মাথায়। ফেসবুকে মস্তিষ্কের লড়াইয়ে হেরে গিয়ে শুধু গালি দেয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

41 + = 47