মায়াবতী

সেদিন বৃষ্টি ছিল, মেঘের কালো ছায়ায় হারিয়ে যাওয়া নীল আকাশটায় অনেক কষ্ট
গুমোট পরিবেশটায় কে যেন ঠিক পা দুলিয়ে শান্তির শান্ত ধারায় একরাশ মুগ্ধতায়
কষ্টকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে আকাশপানে তাকিয়ে ছিল।
হ্যা, সে এক অনন্যা, সে এক রাগকুমারী, সে মায়াপুরীর মায়াবতী, নীলকন্যা
তার হাসিতে ফুল ফুটে যায় পৃথিবীর উত্তরে
গুঞ্জন করা শব্দে খা খা রোদে বৃষ্টি নামে স্বস্তি হয়ে পৃথিবীর দক্ষিণে
তার মায়াবী চোখে ডুব দিয়ে কাটিয়ে দেয়া যায় শত সহস্র বছর
সে এক স্নিগ্ধবতী, লক্ষী পাগলী।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 2 = 1