আমরা এই সরকারী বিজ্ঞাপনের স্বাক্ষী হয়ে রইলাম

আমরা স্বাক্ষী হয়ে রইলাম। আমরা বুঝলাম অন্য কোথাও না শুধু রামপালেই বিদ্যুৎ কেন্দ্র করতেই হবে, নাহলে বিদ্যুতের অভাব দূর হবেনা। অন্য কোনো জ্বালানী নয় কয়লা এবং দ্যা অনলী অন দ্যা বেস্ট কয়লা দিয়েই বিদ্যুৎ বানাতে হবে, নাহলে উন্নয়ন হবেনা। ৭০ শতাংশ ব্যাংক লোন এবং আরো ১৫ শতাংশ ব্যয় বহন করে আমরা ৫০ শতাংশ মালিকানা আর ১৫ শতাংশ ব্যয় করে তারাও ৫০ শতাংশ মালিকানা, এরকম মহা সাম্যবাদী নায্য চুক্তি আমরা মানতে বাধ্য, না মানলে আমরা ধান্দাবাজ। দেশীয় বিদ্যুৎ কোম্পানি ৪ টাকা ইউনিটে যে বিদ্যুৎ বিক্রি করে তা তাদের কাছ থেকে ৮ টাকা ইউনিটে কিনে বাংলাদেশের স্বার্থ রক্ষা করতেই হবে,না করলে আমরা অন্য দেশের দালাল।

ক্ষমতা আর গোষ্ঠীস্বার্থ এই হচ্ছে তাদের প্রধান যুক্তি। সেটা স্পষ্ট নির্লজ্জ হয়ে বলতে পারেনা বলেই এই বিজ্ঞাপন, যা প্রমান করে তারা চাপ অনুভব করছে কিন্তু সেই চাপ তারা লুটেরা স্বার্থের শক্তি দিয়ে পরাভুত করতে চায়।

আমরা হয়তো ক্ষমতার দম্ভের কাছে ,মুনাফার স্বার্থের কাছে হেরে যাবো। এই বিজ্ঞাপন কে আমরা স্বাক্ষী রাখলাম। সুন্দরবন তার সমস্ত সৌন্দর্য নিয়ে বেঁচে থাকুক। যুগ যুগান্তর ধরে সিডর আইলা থেকে সুন্দরবন যদি আমাদের নিরাপত্তা দিয়ে যেতেই থাকে, তাহলে আমি বার বার এই বিজ্ঞাপনের কাছে হারতে চাই।

ডেইলি স্টার-এ দেওয়া সরকারী বিজ্ঞাপনের লিঙ্ক- নিম্নে দেখুন।


http://epaper.thedailystar.net/index.php?opt=view&page=16&date=2015-11-02

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 1 = 1