বিদেশীদের নিরাপত্তার জন্য সব ব্যবস্থা নিশ্চিত

বর্তমান পেক্ষাপট বিবেচনা করে বিদেশীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। নিঃছিদ্র নিরাপত্তার লক্ষ্যে বিদেশীদের দেয়া সকল সুপারিশও ধীরে ধীরে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। তবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জঙ্গী হামলা হলেও সেসব দেশে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে বিদেশী চাপ না থাকলেও বাংলাদেশে একই ইস্যুতে তাদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কোন কোন ক্ষেত্রে তাদের দ্বিমুখী আচরণও পরিলক্ষিত হচ্ছে। ভিয়েনা কনভেনশন অনুযায়ী কোন দেশে অবস্থান করা কূটনীতিক ও বিদেশী নাগরিকদের নিরাপত্তার দায়িত্ব স্ব স্ব দেশের। সে হিসেবে বাংলাদেশে অবস্থান করা বিদেশীদের দায়িত্বও বাংলাদেশ সরকারের। রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান রেস্তরাঁয় হামলার পরে বিদেশীদের নিরাপত্তায় সচেষ্ট বাংলাদেশ। সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে বিদেশীদের নিরাপত্তার বিষয়ে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। বিশেষ করে কূটনৈতিক জোনে নিঃছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। এছাড়া গোয়েন্দা তৎপরতাও অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে আরও বাড়ানো হয়েছে। বিদেশী কূটনীতিকরা তাদের নিরাপত্তা বাড়ানোর বিষয়ে সরকারের কাছে ইতোমধ্যেই ছয়টি সুপারিশ করেছেন। এসব সুপারিশের মধ্যে রয়েছে, কূটনৈতিক জোনে নিরাপত্তা নিশ্চিত, বিদেশী ক্লাবে নিরাপত্তা প্রদান, বিদেশী প্রতিষ্ঠানের অফিসে নিরাপত্তা বৃদ্ধি, ঢাকার বাইরে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা অফিসে নিরাপত্তা নিশ্চিত, বিমানবন্দরে চেক আউট ও চেক ইনের সময় বিদেশীদের নিরাপত্তা প্রদান ও ঢাকার বাইরে থাকা সকল বিদেশীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। এসব সুপারিশ ইতোমধ্যেই বাস্তবায়ন করা হয়েছে। তবে বিদেশীদের সকল প্রতিষ্ঠানে অস্ত্রধারী নিরাপত্তা প্রহরী নিয়োগ ও বুলেট প্রুফ গাড়ি ব্যবহারেরও অনুমতির বিষয়টি বিবেচনায় রাখা হয়েছে। এছাড়াও দেশের স্বাভাবিক পরিবেশ বজায় রাখতে সম্ভাব্য সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on “বিদেশীদের নিরাপত্তার জন্য সব ব্যবস্থা নিশ্চিত

  1. এসব কাফের যারা মুসলিমদের
    এসব কাফের যারা মুসলিমদের হত্যাকারী,শরীয়া আইন প্রতিষ্ঠায় বাধা দানকারি, তাদের যারা নিরাপত্তা দিবে সমর্থন করবে, তারা লোন উলফ মুজাহিদদের টার্গেট হবে, সুতরাং এসব নিরাপত্তা বাহিনীর নিরাপত্তা কে দিবে?

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

86 − = 79