ধর্মগুরু ও রাজনৈতিক নেতাদের প্রকৃত ছবি অনেকটা এইরকম। ।

মনটা অস্থির। ধর্মগুরু ও রাজনৈতিক নেতাদের উপর মেজাজটা বিগরে রয়েছে জঙ্গি হামলার পর থেকেই। মৃত জঙ্গিদের বয়স আমিও পার করে এসেছি। আমিও হিরো হতে চেয়েছিলাম। তখন জিয়ার আমল পৃথিবীর তাবত কর্ম শেষ করে নতুন কিছু করবার বাসনায় ধর্ম উদ্ধারে নিজেকে বিলিয়ে দেব বলে সিদ্ধান্ত চুরান্ত হল। সংগঠন হিসাবে বেছে নিলাম ইয়াং মুসরিম সোসাইটি নামের ততকালিন একটি ইসলামি যুব সংগঠন। র্নিদিধায় যোগ দিলাম। অনেকটা ওয়াই এম সি এর আদলে গড়া। এর তৎকালীন প্রানপুরুষ ছিলেন মিছবাহুর রহমান চৌধুরী/সরকার সর্মথিত ইসলামি ঐক্যজোটের বর্তমান ধর্মিও ষাঢ়।

এই মিছবাহুর রহমান চৌধুরীকে খুব কাছ থেকে দেখার র্দুভাগ্য আমার হয়েছিল। তার ভন্ডামি নারী নক্ষত্র সব যখন আমার নখদর্পনে এল ঠিক তখনি সে তার নেত্রিত্ব বাচাতে আমাদের এলাকা পরিত্যাগ করে পল্টনে অফিস সড়িয়ে নিল। এর মধ্যেই আমি তার সর্ম্পকে বিস্তারিত তথ্য/উপাত্ত সংগ্রহ করে ফেলেছিলাম। মিছবাহুর রহমান চৌধুরী তার শিক্ষাগত যোগ্যতা বলতে গিয়ে বলতেন তিনি ব্যারেষ্টারি পড়ছেন লন্ডনে। কিন্তু প্রমান হিসাবে কোন প্রকার কাগজ বা বিশ্বাস করা যায় এমন কোন তথ্য বা উপাত্ত তিনি কোন দিনই উপস্থিত করতে না পেরেই তিনি পলিয়ে বেচেছিলেন।

অগত্যা আমাকে সংগঠনের মুল অংশ থেকে সরিয়ে দেয়া হল একটু বেশী বুঝতে চাওয়ার কারনে। তবু্ও আমি যতটুকু তার সর্ম্পকে জানতে পেরেছিলাম তাই ছিল আমার জন্য যথেষ্ট। তিনি মুক্তিযুদ্ধের নয়মাস সিলেট জেলায় রাজাকার বাহিনীতে কর্মরত ছিলেন। শেখ হাসিনার এই হুজুর হেন আকাম কুকাম নাই যা তিনি নিজে ও তার ফলোয়ারদের দিয়ে করান নাই। বিপাকে পরলেই তিনি নবীজিকে স্বপ্নে দেখে ফেলতেন ও ধর্মিও আলোচনায় মশগুল হয়ে যেতেন। যাতে কেউ আর কোন প্রশ্ন উত্থাপন না করতে পারে। তার পুরা জীবনটাই চিটিং শিল্পের উপর প্রতিষ্ঠিত। লোক ঠকানোই ছিল তার প্রধান ব্যাবসা।

বর্তমান বাংলাদেশের বাস্তবতায় ধর্মগুরু ও রাজনৈতিক নেতাদের প্রকৃত ছবি অনেকটা এইরকম। সেই যে ধর্ম উদ্ধারের পাগলামিটা আমার মাথা থেকে বিদায় নিল আর কোনদিন তা ফিরে আসেনি। কিন্তু মিছাবাহুর রহমান শয়তানটা র্ধামিক সেজে সবাইকে গোলের পর গোল দিয়ে যাচ্ছে।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৪ thoughts on “ধর্মগুরু ও রাজনৈতিক নেতাদের প্রকৃত ছবি অনেকটা এইরকম। ।

  1. বেক্তি পূজা ইসলামে হারাম,কে
    বেক্তি পূজা ইসলামে হারাম,কে কি করল এই বিষয়ে আল্লাহ পাক আপনাকে কোন প্রশ্ন করবে না আপনি কি করলেন আল্লাহর জন্য তাই আপনাকে জিগ্গেস করা হবে,আপনি ইচ্ছা করলে একজন লোন উলফ মুজাহিদ হতে পারেন, এবং ইসলামের শরিয়া আইন প্রতিষ্ঠা করতে যারা বাধা দিচ্ছে তাদের কে হত্যা করতে পারেন,অথবা আত্বঘাতি হামলা করে নিজেকে শহিদ করে দিতে পারেন !

  2. শ—শনি, “বেক্তি পূজা ইসলামে
    শ—শনি, “বেক্তি পূজা ইসলামে হারাম,কে কি করল এই বিষয়ে আল্লাহ পাক আপনাকে কোন প্রশ্ন করবে না আপনি কি করলেন আল্লাহর জন্য তাই আপনাকে জিগ্গেস করা হবে,আপনি ইচ্ছা করলে একজন লোন উলফ মুজাহিদ হতে পারেন, এবং ইসলামের শরিয়া আইন প্রতিষ্ঠা করতে যারা বাধা দিচ্ছে তাদের কে হত্যা করতে পারেন,অথবা আত্বঘাতি হামলা করে নিজেকে শহিদ করে দিতে পারেন” !
    অনুগ্রহ করে সুত্র দিন। এমন কথা কোথায় বলা আছে। প্লীজ জঙ্গিত্বে উৎসাহ দেবেন না।

  3. আয়াত: আল্লাহ ক্রয় করে নিয়েছেন
    আয়াত: আল্লাহ ক্রয় করে নিয়েছেন মুসলমানদের থেকে তাদের জান ও মাল এই মূল্যে যে, তাদের জন্য রয়েছে জান্নাত। তারা যুদ্ধ করে আল্লাহর রাহেঃ অতঃপর মারে ও মরে। সুরা তওবা, ৯; আয়াত ১১১

  4. পথচারী ভাই আপনাকে শুধু
    পথচারী ভাই আপনাকে শুধু ধর্মান্ধ বললে ভুল হবে আপনি অশিক্ষিতও বটে। এভাবে কোরআন শরীফের খন্ডিত আয়াত দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করবেন না। “তারা যুদ্ধ করে আল্লাহর রাহেঃ অতঃপর মারে ও মরে” দেশে যুদ্ধাবস্থা বিরাজ করছে কি? র্নিঅস্র নিরিহ মানুষকে হত্যার অনুমতি আল্লাহ অনুমোদন করেন কি?

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

5 + 2 =