পুরুষমানুষের প্রাণপ্রিয় বচন

মেয়েরা এত ন্যাকামি করে, মেয়েরা এত ঢং করে, মেয়েরা এত আহ্লাদ করে- এসব পুরুষমানুষের প্রাণপ্রিয় বচন। আবার মেয়েরা যখন ন্যাকামি, আহ্লাদ, ঢং না করে তখন তারাই বলে কাঠকোট্টা মেয়ে। একটু দুষ্টুমিও করতে পারে না। মেয়েদের জীবন সহজ নয়। জীবনের প্রতিটি লগ্নে অগ্নিপরীক্ষা।

তবে কি পুরুষেরা আহ্লাদ করে না? ঠিকই করে। ভালোই করে। কিন্তু এমন ভাবমূর্তি তৈরি করে রেখেছে যে তাদের ক্ষেত্রে আহ্লাদীপনা স্বীকার করা লজ্জাজনক। কোন মেয়েকে পাওয়ার জন্য পুরুষেরা যে পরিমাণ ন্যাকামি-আল্লাদ-ঢং করে, ঠিক পাওয়ার পরেই দৌত্যদানব ভাবমূর্তি পুরনরুদ্ধারে ব্যস্ত হয়ে পড়ে।

মেকআপ দেয়া নিয়ে পুরুষের হাসিঠাট্টার কমতি নেই। মেকআপ করলে বলে মেকআপের কারণে সুন্দর লাগছে আবার মেকআপ না করলে বলে একটু সাঁজতেও পারো না! মেকআপ তোলা নিয়ে পুরুষের হাসিতামাশার অন্ত নেই। আমাদের সমাজে তো চেহারা দেখেই মেয়েকে পছন্দ করে।যারা খুব বেশি পুরুষত্ব ফলায় তাদের কাছে মেকআপ হাসি ঠাট্টার বিষয় আবার প্রেমিকা বা স্ত্রী সাজুগুজু না করলেও তাদের কাছে সমস্যা। সবই পুরুষতন্ত্র ফসল।

নারীরা যদি পুরুষদের মত চেহারা চামড়া দেখে প্রেমিক-স্বামী পছন্দ করা শুরু করে তাহলে পুরুষদের মেকআপের পেছনে যে পরিমাণ অর্থ ব্যয় করতে হবে তা নারীর মেকআপ থেকে দ্বিগুণ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

98 − = 89