প্রকৃতির নয়নাভিরাম সৌন্দর্যের প্রতীক আহলাদি ঝর্ণা

ঘন সবুজ অরণ্যের বুক চিরে বেরিয়ে এসেছে ঝর্ণাগুলো। স্থানীয় লোকজন আহলাদি নাম দিয়েছেন, ফুল ঢালনি ঝেরঝেরি আর ইটাউরি ফুলবাগিচা ঝর্ণা। শুধু নামকরণেই আলাদা টান নেই। ঝর্ণাগুলো পাথারিয়া পাহাড়কে সাজিয়েছে অন্যরকম সৌন্দর্যে। মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার ভারতীয় সীমান্তে পড়েছে এই পাথারিয়া পাহাড়। পাথারিয়া পাহাড়টির উচু-নিচু টিলা সবুজ বৃক্ষরাজিতে ছাওয়া। পাহাড়ের বুক চিরে বেরিয়ে আসা প্রবাহমান পানি ছড়া দিয়ে সমতলে নেমে আসছে। ছড়ার পানি ছোট বড় পাথরের ওপর দিয়ে বয়ে চলছে। দুর্গম এই ছড়া দিয়ে হেঁটে ঝর্নার কাছে যেতে যত বিপত্তি ক্লান্তি আসুক না কেন। ছড়ার স্বচ্ছ শীতল পানি, চারদিকের সবুজ প্রকৃতি, বনফুল, শাসনি লেবুর সুবাস, পাখি ও ঝিঁঝিঁ পোকার কলতান সমস্ত ক্লান্তিকে দূর করে দিবে। ফুলবাগিচায় যেতে হলে প্রায় ৬০-৭০ ফুট উঁচু খাড়া দুটি পাহাড়ের পিচ্ছিল পথ বেয়ে এগিয়ে গেলে তখনই চোখে পড়বে ফুলবাগিচা জলপ্রপাত। প্রাকৃতিক ঝর্ণা আর ছড়া ও চারপাশে সবুজের সমারোহ দর্শণার্থীদের নজর কেড়ে নিচ্ছে। আসুন ঘুরে আসি সৌন্দর্যের প্রতীক আহলাদি ঝর্ণায়।

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.