এখানে আস্ত এক গুদাম মওজুদ প্রেম ছিল

এখানে আস্ত এক গুদাম মওজুদ প্রেম ছিল

প্রেম পণ্য হিসেবে সস্তা এবং লুটপাটের বিষয়
এই গুদামের পরিণতিতেও ছিলো নিঃস্ব হওয়া,
যে যার ভাগটা বুঝে নিয়ে কোথায় যে চলে গেলো…

সেদিনের পুচকি অবন্তী এখন ক্লাস ফাইভে,
গালে চুমু খাবো কি, কোলে নিতে চাইলেও তার অস্বস্তি!
মানে, আমিও এখন এক বেগানা পুরুষ, ভাইয়াটা ভাইয়া নেই
তবে মনে পড়ে, এইতো সেদিনও সে বলছিলো চুমু দিতে দিতে-
“ভাইয়া, থুথু লাগায় দিছি…”
আমার মনে হতো, আমিও এক পবিত্র স্বত্বা
সেই থুথুর স্পর্শে ভিজে আমারো হতো গঙ্গা স্নান…

এখানে আস্ত এক গুদাম মওজুদ প্রেম ছিল

প্রেম পণ্য হিসেবে সস্তা এবং লুটপাটের বিষয়
এই গুদামের পরিণতিতেও ছিলো নিঃস্ব হওয়া,
যে যার ভাগটা বুঝে নিয়ে কোথায় যে চলে গেলো…

সেদিনের পুচকি অবন্তী এখন ক্লাস ফাইভে,
গালে চুমু খাবো কি, কোলে নিতে চাইলেও তার অস্বস্তি!
মানে, আমিও এখন এক বেগানা পুরুষ, ভাইয়াটা ভাইয়া নেই
তবে মনে পড়ে, এইতো সেদিনও সে বলছিলো চুমু দিতে দিতে-
“ভাইয়া, থুথু লাগায় দিছি…”
আমার মনে হতো, আমিও এক পবিত্র স্বত্বা
সেই থুথুর স্পর্শে ভিজে আমারো হতো গঙ্গা স্নান…

অবন্তী এখন কাস ফাইভে, ভাইয়াটা ভাইয়া নেই

গতবছর মশাটাও ভাগলো, আমার কেয়ারটেকার মোশাররফ
কাজকাম না থাকলে এসে বলতো, “স্যার, মাথা বানাইয়া দেই।”
ভাবতাম, ছেলেটার আমার জন্য কত মায়া, অনেক ভালোবাসে
প্রতিদানে তো পালটা মাথা বানানো চলে না, বকশিস দিতাম।
সেখানেই ছিলো তার ফায়দা; ঠিক একবছর হলো চলেও গেছে!
ভালো বেতন, পায়ের উপর পা তুলে জীবনের স্বাদ সবাই তো চায়

ভালোবাসায়, মায়ায়, অহেতুক আদরে মশাদের কি আসে যায়?

আমি তার কথা বলতে চাইছি না, ঈদের দিন পেরিয়ে যাবার-
ঠিক সাত মিনিট পর গতরাতে যার এসএমএস এলো;
বার্তায় ছিলো, “ঈদ মুবারাক! কেমন আছো?”
আমি মিথ্যা করেও তো সত্যটা বলার সাহস পেলাম না!
আমারও স্পষ্ট অক্ষরে জবাব, “ভালো আছি, ঈদ মুবারাক!”

এই ঈদে আর কি মুবারাক হবে? কি অর্থ এই মুবারাকবাদের?
মুবারাক নামে কিছু মানুষ ছাড়া পৃথিবীতে আজ অন্যকিছু নেই…

এখানে আস্ত এক গুদাম মওজুদ প্রেম ছিল
যদিও গল্পটা গুদামের নয়, প্রেমের; তবে না লিখলেই নয়-
গল্পের শেষটায় শুন্য গুদামে জ্বলেছে দাউদাউ আগুন…

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

71 − = 70